আমরা শ্রীলঙ্কার চেয়ে পিছিয়ে নেই : মিরাজ

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৩৬ পিএম, ১৬ এপ্রিল ২০২১

শ্রীলঙ্কার মাটিতে সর্বশেষ টেস্ট সিরিজে পিছিয়ে পড়েও ঘুরে দাঁড়িয়েছিল বাংলাদেশ। ২০১৭ সালের মার্চে নিজেদের মাইলফলকগড়া শততম টেস্টে অবিস্মরণীয় এক জয় তুলে নিয়ে সিরিজ ১-১ সমতায় শেষ করেছিল টাইগাররা।

এবার দুই টেস্টের সিরিজ খেলতে শ্রীলঙ্কায় গেছে বাংলাদেশ দল। সেই জয়ের সুখস্মৃতি তো সবার মনে থাকবেই। বিশেষ করে মেহেদি হাসান মিরাজের মতো যারা ওই সফরে খেলেছিলেন, সাক্ষী হয়েছিলেন শততম টেস্টজয়ের, তাদের তো আলাদা একটা অনুভূতিই বয়ে যাবে মনে।

মিরাজ জানালেন, সেই শততম টেস্ট জয়ের স্মৃতি এখনও তার মনে তরতাজা। শ্রীলঙ্কায় দলের অনুশীলনপর্ব চলছে। এক ফাঁকে গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপে আসন্ন সিরিজ নিয়ে কথা বলেন টাইগার অফস্পিনার।

মিরাজ বলেন, ‘যখন শততম টেস্ট ম্যাচ জিতেছিলাম, খুব ভালো লেগেছিল। শ্রীলঙ্কার মাটিতে প্রথম টেস্ট জিতেছিলাম। ঐ মুহূর্তে অবশ্যই ভালো লেগেছিল। দলের সবার কমিটমেন্ট ছিল-আমরা ভালো ক্রিকেট খেলব এবং যে করেই হোক ম্যাচটা জিততে হবে। টিম মিটিংয়ে সবার ভেতর কমিটমেন্ট ছিল এবং বলছিল- আমাদের কিছু একটা করতে হবে, সর্বোচ্চটা দিতে হবে।’

‘যখন খেলা শুরু হয়েছিল তখন প্রত্যেকটা খেলোয়াড়ের কাছেই ওরকম এটিটিউড ছিল। বডি ল্যাঙ্গুয়েজও এরকম ছিল যে আমাদের জিততে হবে ম্যাচটা। ভালো সময় খারাপ সময় পাঁচ দিনই ছিল। শেষ দিন যখন ভালো ক্রিকেট খেলতে পেরেছিলাম এবং দল জিতেছিল। তখন খুব আনন্দ লেগেছিল সবার ভেতরে। খুব আনন্দ পেয়েছিলাম ঐ ম্যাচটা জিতে।’

শুধু ওই টেস্ট জয়ই নয়। শ্রীলঙ্কার মাটিতে সাম্প্রতিক সময়ে আরও কিছু সুন্দর স্মৃতি আছে বাংলাদেশের। এর মধ্যে একটি-২০১৮ সালের নিদাহাস ট্রফি। ভারত, শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশ-তিন দলকে নিয়ে হওয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টটিতে টাইগাররা একটুর জন্য চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি। ফাইনালে বাংলাদেশের বিপক্ষে শেষ বলে জয় পায় ভারত।

মিরাজ মনে করছেন, শ্রীলঙ্কায় গত ৩-৪ বছর যেভাবে খেলেছে বাংলাদেশ, তাতে স্বাগতিকদের থেকে কোনো অংশেই পিছিয়ে থাকবেন না তারা। মিরাজের ভাষায়, ‘এর আগে আমরা শ্রীলঙ্কায় যতবারই খেলেছি ভালো ক্রিকেট খেলেছি। নিদাহাস ট্রফি অল্পের জন্য জিততে পারিনি। শ্রীলঙ্কা সিরিজে (২০১৭ সালে) ওয়ানডেতে ১-১ ছিল, টেস্টেও ওরা একটা জিতেছে আমরা একটা জিতেছি। আমরা ওদের চেয়ে পিছিয়ে নই, গত ৩-৪ বছর যেভাবে খেলেছি ওদের মাটিতে। যদি আগের মত কমিটমেন্ট থাকে আর ফাইট দিতে পারি, তাহলে আমরা ভালো কিছু করতে পারব।’

শ্রীলঙ্কায় সর্বশেষ সিরিজে স্পিনারদের জন্য তেমন কিছু ছিল না। তারপরও লাইন লেহ্নে বল করে যেতে পারলে তৃতীয় বা চতুর্থ দিনের উইকেট থেকে সুবিধা পাওয়া যেতে পারে, মনে করেন মিরাজ।

টাইগার অফস্পিনার বলেন, ‘চ্যালেঞ্জ তো প্রত্যেক ক্ষেত্রেই থাকবে। স্পিনারদের জন্য শ্রীলঙ্কায় লাইন আর লেন্থ বেশ গুরুত্বপূর্ণ। এখানে উইকেট খুব ভালো থাকে। আমি মনে করি ১-২ দিন ওরকম না-ও কাজ করতে পারে। কিন্তু ৩-৪ দিনে উইকেটে স্পিনারদের সহায়তা থাকে। ঐ সুযোগ আমরা নিতে পারি। সর্বশেষ যে টেস্টগুলো খেলেছি স্পিনারদের ওরকম সুবিধা ছিল না। আমি আর তাইজুল ভাই চেষ্টা করেছি রান যেন কম দিয়ে ভালো জায়গায় বল করতে পারি। তখন অনেক সময় সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। বিগত দিনের টেস্টগুলোতে যেমন করেছি সেটাই করার চেষ্টা করব ইনশাআল্লাহ।’

করোনার এই পরিস্থিতিতে শ্রীলঙ্কা সফরে দলের সঙ্গে যোগ দিতে পারেননি স্পিন কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টোরি। তার বদলে স্বদেশি স্পিন কোচ সোহেল ইসলামকে এই সফরে দায়িত্ব দিয়েছে বিসিবি।

স্থানীয় এই কোচের সঙ্গে আগেও কাজ করার অভিজ্ঞতা আছে মিরাজ-তাইজুলদের। তাই সেটা বাড়তি সুবিধাই হবে মনে করেন মিরাজ। তিনি বলেন, ‘আমরা অনেক দিন ধরে সোহেল স্যারের সাথে কাজ করছি। বিশেষ করে আমি তো ছোটবেলা থেকেই কাজ করছি, তাইজুল ভাইও অনেক দিন ধরে কাজ করছে। আমাদের সুবিধা হল স্যার আমাদের ভালোমত চেনে। কোন জায়গায় উন্নতি করতে হবে, তা ভালো করে বলতে পারে। এখানে ২ দিন অনুশীলন করেছি। আমাকে নিয়ে কাজ করেছে, তাইজুল ভাইকে নিয়েও কাজ করেছে। দেশে থাকলে স্যারের সাথে কাজ করা হয়। দেশের বাইরে হয়তো বেশি পাই না। এই একটা সুযোগ পেয়েছি। তার সাথে পরামর্শ করব কিভাবে কি করলে ভালো হয়।’

এমএমআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]