পরিকল্পনা অনুযায়ী ব্যাটিং করতে পেরেছি : শান্ত

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৩৮ পিএম, ১৭ এপ্রিল ২০২১

২১ এপ্রিল থেকে শুরু প্রথম টেস্ট। লঙ্কানদের বিপক্ষে মূল লড়াইয়ে নামার আগে নিজেদের মধ্যে ভাগ হয়ে একটি দুইদিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলছে বাংলাদেশ দল। যে ম্যাচের প্রথম দিন রান পেয়েছেন টপ অর্ডারের সবাই।

কাটুনায়াকের চিলাও মারিয়ানস ক্রিকেট ক্লাব গ্রাউন্ডে লাল দল প্রথম দিন শেষ করেছে ১ উইকেটে ৩১৪ রান নিয়ে। হাফসেঞ্চুরি পেয়েছেন তামিম, সাইফ, শান্ত আর মুশফিক। তামিম ৬৩, সাইফ ৫২, শান্ত ৫৩ আর মুশফিক ৬৬ রান করে স্বেচ্ছায় অবসরে যান।

হাফসেঞ্চুরির দোরগোড়ায় এসে নুরুল হাসান সোহানও অবসরে গেছেন।উইকেটরক্ষক এই ব্যাটসম্যান করেন ৪৮ রান। মেহেদি হাসান মিরাজ ২৪ রানে অপরাজিত আছেন।

দলের ব্যাটসম্যানদের রানে ফেরার বিষয়টিকে খুব ইতিবাচক মনে করছেন তরুণ টপঅর্ডার নাজমুল হোসেন শান্ত। নিজেও পরিকল্পনা অনুযায়ী ব্যাটিং করতে পেরেছেন, সেই স্বস্তির কথা জানালেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

শান্ত বলেন, ‘আমার মনে হয় এটা খুব ভালো একটা প্রস্তুতি টেস্ট ম্যাচ শুরুর আগে। যেটা করতে চেয়েছিলাম আজকে, ওই পরিকল্পনা অনুযায়ী ব্যাটিং করতে পেরেছি। আশা করছি যে এই শেপে যদি ব্যাট করতে পারি, তাহলে আমাদের টেস্ট ম্যাচের জন্য ভালো হবে।’

শ্রীলঙ্কায় এখন অনেক গরম। সেই গরমে ব্যাটিং বা বোলিং দুটোই চ্যালেঞ্জিং। শান্তও মানছেন তা। তিনি বলেন, ‘অবশ্যই ওটা তো চ্যালেঞ্জিং। আসলে ওটা নিয়ে খুব বেশি কিছু বলার সুযোগ নেই। কারণ এই আবহাওয়াতেই আমাদের খেলতে হবে।’

২২ বছর বয়সী ব্যাটসম্যান যোগ করেন, ‘কিন্তু আমার কাছে মনে হয় শুরুতে বোলাররা ভালো বল করেছে। বিশ পঁচিশ ওভার পর ব্যাটিংটা অনেক সহজ ছিল। আমার মনে হয় ব্যাটসম্যানরা যারা আমরা ব্যাট করছি, খুব ভালো শেইপে ব্যাট করছি। আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে নিয়েছি। এখনো কঠিন কিন্তু। আমরা দুই তিন সেশন প্র্যাকটিস করছি। আজ খেললাম, কালও খেলব। সবমিলিয়ে আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছি। খুব বেশি আসলে চিন্তা করার অপশন নাই। এই ওয়েদারেই খেলতে হবে।’

শান্ত মনে করেন, টেস্টে ধৈর্য ধরে রাখাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। তার ভাষায়, ‘অবশ্যই টেস্ট খেলাটাই ওই রকম। আমার কাছে মনে হয় যে, যত ধৈর্য নিয়ে, সময় নিয়ে ব্যাটিং বা বোলিং করবে, সফল হওয়ার সম্ভাবনা ওই টিমেরই বেশি থাকবে। আমার মনে হয় যে অত লম্বা চিন্তা না করে, আমরা যদি সেশন বাই সেশন চিন্তা করি, তাহলে আরেকটু সহজ হবে। ওটাই প্ল্যান যে আমরা কীভাবে সেশন বাই সেশন ভালো করতে পারি।’

এমএমআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]