তামিমের সঙ্গে কী কথা হয়েছিল শান্তর?

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:২৪ পিএম, ২১ এপ্রিল ২০২১

অবশেষে বড় ইনিংসের দেখা পেলেন নাজমুল হোসেন শান্ত। পাল্লেকেলে টেস্টের প্রথম দিনে তাকে সব ধরনের বলই মোকাবেলা করতে হয়েছে। ওপেনিং জুটিতে যে তামিম ইকবালকে ১২ বল সঙ্গ দিয়েই সাজঘরে ফেরেন সাইফ হাসান।

ফলে শান্তকে নতুন বলের ওপেনারের মতোই খেলতে হয়েছে। খেলতে হয়েছে শেষ বিকেলে দ্বিতীয় নতুন বলেও। মাঝে সামলেছেন স্পিন। বলতে গেলে সারাদিনই ব্যাটিংয়ে কাটিয়েছেন শান্ত। খেলেছেন ক্যারিয়ারসেরা ১২৬ রানের হার না মানা ইনিংস। যে ইনিংসটিকে আরও বড় করার স্বপ্ন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যানের।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সর্বশেষ সিরিজে দুই টেস্টে শান্তর ইনিংসগুলো ছিল-২৫, ০, ৪ আর ১১ রানের। রান না পাওয়ার সেই চাপ মাথায় নিয়েই সকাল সকাল উইকেটে যেতে হয়েছিল শান্তকে। তামিমের সঙ্গে তখন কী কথা হয়েছিল? অভিজ্ঞ সঙ্গী হিসেবে তামিম তার ইনিংসটিতে কতটা সহায়ক ভূমিকা পালন করেছিলেন?

শান্ত জানালেন, তামিমের দ্রুতগতির রান তোলাই চাপ কমিয়ে দিয়েছিল তার ওপর থেকে। ৮ রানে প্রথম উইকেট পতনের পর ক্রিজে আসেন শান্ত। সে সময় ‘সিনিয়র ভাই’য়ের একটি কথা মনের মধ্যে গেঁথে নিয়েছিলেন তিনি। এরপর দুজন মিলে গড়েন ১৪৪ রানের জুটি।

তামিমকে নিয়ে শান্ত বলেন, ‘তামিম ভাই খুব ভালো ব্যাট করছিল। ওটা আমাকে হেল্প করেছে। উনি কুইক রান করছিলেন। তাই আমি টাইম নিতে পেরেছি।সারাদিনে আমি অমন কিছু চিন্তা করি নাই। আমি শুধু চিন্তা করেছি বল দেখব, খেলব। আমি বলের মেরিট অনুযায়ী খেলার চেষ্টা করেছি। ইনিংসটা খুব গোছানো ছিল, তাড়াহুড়ো করি নাই। এটা খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল।’

শান্ত যোগ করেন, ‘আমি যখন উইকেটে গেছি তামিম ভাই একটা কথা বলছিল- উইকেট ভালো, ওই অনুযায়ী ব্যাটিং করো। ওটাই মাথায় ছিল। বল দেখেছি, খেলেছি। উইকেট নিয়ে বেশি চিন্তা করিনি। যদিও নতুন বলে একটু সুইং করছিল। কিন্তু ইতিবাচক ছিলাম, ওটাই কাজে দিয়েছে।’

এমএমআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]