‘তামিম অন্যদের কাজ অর্ধেক সহজ করে দিয়েছে’

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ১১:৩০ পিএম, ২১ এপ্রিল ২০২১

দিন শেষে সেঞ্চুরিয়ান নাজমুল হোসেন শান্তর প্রশংসা সবার মুখে মুখে। তবে তামিম আার অধিনায়ক মুমিনুলের কথাও কেউ ভোলেননি। তাদের কৃতিত্ব দিয়েছেন সবাই।

শ্রীলঙ্কা সফরে দলনেতা হয়ে যাওয়া খালেদ মাহমুদ সুজনই তাই করেছেন। শান্তর সেঞ্চুরি নিয়ে কথা বলতে গিয়ে আগে তামিমের প্রশংসা সুজনের মুখে।

সুজনের ব্যাখ্যা, ‘আসলে আমাদের পরের দিকের ব্যাটসম্যানদের মানে মিডল অর্ডারের কাজটা অনেক ইজি করে দিয়েছে তামিম। তামিম লঙ্কান বোলারদের চড়াও হতে দেয়নি। উল্টো নিজের হাতেই লাগাম রেখে লাকমাল, বিশ্ব ফার্নান্ডো ও লাহিরু কুমারাকে শাসন করেছে। তাতে করে শান্তর ভাল ও স্বচ্ছন্দে খেলা সহজ হয়েছে। তামিম ও শান্তর জুটিতে দেখেন, বেশিরভাগ রান তামিমের। শান্ত খালি অন্যদিকটা ধরে রেখেছে। দারুণ এক জুটি গড়েছে তামিম ও শান্ত। তামিম খেলেছে অ্যাগ্রেসিভ ম্যুডে।’

শান্ত সম্পর্কে সুজনের মূল্যায়ন, ‘আমরা সবাই জানতাম যে শান্ত ক্যাপাবল। হ্যাঁ, হয়ত পারফরম করেনি। তবে আমাদের বিশ্বাস ছিল শান্ত ঠিকই পারবে। এটা খুব ভাল লাগার যে, সে জ্বলে উঠে সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়েছে। দারুন ব্যাটিং করেছে। আমার খুব ভাল লেগেছে।’

তামিমের সকালের সেশনের সাহসী আর আক্রমনাত্মক ব্যাটিং এবং শান্তর সেই সময়ের সহায়ক ভূমিকার অকুন্ঠ প্রশংসা বাংলাদেশ টিম লিডারের মুখে। তার ব্যাখ্যা, তামিমের ওই সাহসী ও অ্যাগ্রেসিভ ইনিংসটি বাকিদের সাহস দিয়ে গেছে। তাতে করে অন্যরা সাহসী ও উদ্যমী হয়েছে ।

সুজন বলেন, ‘তামিম স্বচ্ছন্দে ও সাহস নিয়ে আক্রমনাত্মক মেজাজে খেলায় ড্রেসিং রুম চাঙ্গা হয়েছে। সবার মাঝে একটা অনুপ্রেরণা ও উদ্যম চলে এসেছে, তামিম ভাই পারলে আমরা কেন পারবো না।’

জাগো নিউজকে আরও একটি বড় তথ্য দিয়েছেন। তার দীর্ঘ অভিজ্ঞতা বলে বাংলাদেশের ড্রেসিং রুম যখন চাঙ্গা-ফুরফুরে থাকে, ক্রিকেটাররা যখন আত্মবিশ্বাসী থাকেন এবং নিজেদের সামর্থ্যের ওপর আস্থা রেখে খেলেন, তখন নাকি পারফরমেন্স ভাল হয়। যেটা আজ হয়েছে।

সুজন ড্রেসিং রুমের আজকের বর্ননা দিয়ে বলেন, ‘আমি দীর্ঘদিন জাতীয় দলের সাথে আছি। বুঝি কখন কী টিমের অবস্থা? টিম বাংলাদেশের ড্রেসিং রুমে আত্মবিশ্বাস, আস্থা আর ফুরফুরে মেজাজটা খুব জরুরি। আজ প্রথম সেশনে যখন আমরা ২৬ ওভারে ১০৬ রান করেছি মাত্র ১ উইকেটে, তখনই বোঝা গেছে ড্রেসিং রুম চাঙ্গা। সবাই সাহস ও উদ্যম ফিরে পেয়েছে। তারই ফলশ্রুতিতে দিন শেষে ২ উইকেটে ৩০২ রান।’

এআরবি/আইএইচএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]