স্থগিত আইপিএল, এবার বিশ্বকাপও হাতছাড়া হচ্ছে ভারতের!

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:০৬ পিএম, ০৪ মে ২০২১

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) অনেক পরে বোধোদয় হলো। যখন ক্রিকেটাররাই আক্রান্ত হওয়া শুরু হলো। অথচ, কয়েকদিন আগেই বিসিসিআই’র পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছিল, আইপিএলের বায়ো-বাবল পরিবেশই নাকি সবচেয়ে নিরাপদ। ভারতের মধ্যে সবচেয়ে নিরাপদ স্থান হলো আইপিএলের বায়ো-সিকিউর পরিবেশ।

কিন্তু তাদের সেই গর্বের বায়ো-সিকিউর পরিবেশ নিমিষেই ভেদ করে ফেলেছে করোনাভাইরাস। যার ফলে টুর্নামেন্টটিকে স্থগিত করে দিতে বাধ্য হয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই। আইপিএল স্থগিত হওয়ার পরই এবার আলোচনায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। ভারতের মাটিতে আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পড়ে গেছে পুরোপুরি অনিশ্চয়তায়।

সব ঠিক থাকলে ১৬টি দেশকে নিয়ে আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হওয়ার কথা রয়েছে ভারতের মাটিতে। কিন্তু সে সময়ে করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়তে পারে ভারতে। এমনটাই শঙ্কা করা হচ্ছে।

এই পরিস্থিতিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপকে অন্যত্র সরিয়ে নিতে পারে আইসিসি। সংবাদ সংস্থা পিটিআই এমনটাই জানিয়েছে।

পিটিআই’র খবর অনুযায়ী, ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই) বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা সম্প্রতি ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের শীর্ষস্থানীয় ব্যক্তিদের সঙ্গে আলোচনায় বসেছিলেন। করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সংযুক্ত আরব আমিরাতে সরিয়ে নেয়ার পক্ষপাতী অনেকেই। সেটাই যদি হয়, তাহলে করোনার জন্য টি-টোয়েক্টি বিশ্বকাপও হচ্ছে না ভারতের মাটিতে।

যদিও বিশ্বকাপের দিনক্ষণ এখনও স্থির হয়নি। এমনকি বিশ্বকাপ শুরু হতে এখনও ছয় মাসের মত বাকি। বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি এখনই হাল ছেড়ে দিতে রাজি নন। কলকাতার সংবাদমাধ্যমকে সৌরভ বলেছেন, ‘টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরু হতে আরও কিছুটা সময় রয়েছে। আমরা করোনা পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছি। আগামীদিনে পরিস্থিতির বিচার করে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব।’

আইপিএল শুরু হওয়ার এক মাসের মধ্যেই করোনার কারণে তা স্থগিত হয়ে যাওয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য অশনি সংকেত।
সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বিসিসিআই কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ‘ভারতের ৭০ বছরের ইতিহাসে স্বাস্থ্যের এমন অবস্থা হয়নি। শুরু হওয়ার চার সপ্তাহের মধ্যে আইপিএল স্থগিত করে দেওয়া প্রমাণ করে বড় মাপের প্রতিযোগিতা আয়োজন করার মতো দেশের অবস্থা নেই। নভেম্বরে করোনা সংক্রমণের তৃতীয় ঢেউ দেখা দিতে পারে দেশে। সেই সময় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন করা কঠিন হয়ে উঠতে পারে। সেজন্য সংযুক্ত আরবে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হতে পারে প্রতিযোগিতা।’

বর্তমানে ভারতের করোনা পরিস্থিতি মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। জৈব সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে থেকে আইপিএল খেলছিলেন ক্রিকেটাররা। দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামেও হচ্ছিল ম্যাচ। তবুও করোনায় আক্রান্ত হতে হল ক্রিকেটারদের।

ভারতের স্বাস্থ্য বিশেজ্ঞদের দাবি, এরপর করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়তে পারে ভারতে। এরকম পরিস্থিতিতে কী আদৌ আয়োজন করা সম্ভব হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ? নাকি টুর্নামেন্ট চলে যাবে আরব আমিরাতে? সময় এর উত্তর দেবে।

আইএইচএস/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]