‘অঘোষিত ফাইনাল’ জেতার আত্মবিশ্বাস আবাহনী কোচ সুজনের

আরিফুর রহমান বাবু
আরিফুর রহমান বাবু আরিফুর রহমান বাবু , বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৬:০৮ পিএম, ২৫ জুন ২০২১

তার সামনে হ্যাটট্রিকের হাতছানি। মানে আগামীকাল ২৬ জুন শেরে বাংলায় আবাহনী জিতলেই কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনের হ্যাটট্রিক হবে। তার কোচিংয়ে টানা তিনবার ঢাকার প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন হবে আকাশি-হলুদরা।

তাই বলে আবার ভাববেন না আগে কখনও পর পর তিনবার চ্যাম্পিয়ন হয়নি আবাহনী। হয়েছে। আগেও হ্যাটট্রিক লিগ চ্যাম্পিয়ন হবার রেকর্ড আছে দলটির।

কিন্তু কেউ কি জানেন, অঘোষিত ফাইনালে আবাহনীর প্রতিপক্ষ যে প্রাইম ব্যাংক, সেই ক্লাব দল প্রথম ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ জিতেছিল খালেদ মাহমুদ সুজনের কোচিংয়েই?

সেটা ২০১৪-২০১৫ মৌসুমে। খালেদ মাহমুদ সুজনের কোচিংয়ে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের নেতৃত্বে লিগ চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল প্রাইম ব্যাংক।

আবাহনী শেষ দুইবারের চ্যাম্পিয়ন। এ পর্যন্ত ২০ লিগ ট্রফি উঠেছে আকাশি-হলুদ শিবিরে। এবার হলে ২১ বার চ্যাম্পিয়ন হবে আবাহনী।

এখন প্রশ্ন হলো- শনিবারের অঘোষিত ফাইনালে জিততে কতটা আত্মবিশ্বাসী আবাহনী কোচ? খালেদ মাহমুদ সুজনের উত্তর, ‘আমি অবশ্যই কনফিডেন্ট (আত্মবিশ্বাসী।’

তাই বলে প্রতিপক্ষ প্রাইম ব্যাংককে সমীহ দেখাতেও ভুল হয়নি আবাহনী কোচের। তিনি বলেন, ‘প্রাইম ব্যাংক বেশ ভালো দল। বোলিং অ্যাটাকটা দারুণ। ব্যাটিংয়ে ক'জন বেশ ভালো পারফরমার আছে। রনি-বিজয় সবাই খুব ভালো ব্যাটসম্যান। সব মিলে বেশ সমীহ করার মত দল। তারপরও আমার মনে হয়, আমরা মানে আবাহনী বেটার সাইড (তুলনামূলক ভালো দল)।’

টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে লাইন আপ ও শক্তি-সামর্থ্যেরর পাশাপাশি ছন্দ খুঁজে পাওয়া খুব গুরুত্বপূর্ণ, মনে করেন সুজন। আবাহনী কোচের ভাষায়, ‘আসলে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে মোমেন্টামটা খুব জরুরী। যে দল যত তাড়াতাড়ি মোমেন্টাম ধরে ফেলতে পারবে, তাদের জন্য সেটাই সবচেয়ে ভালো। আমরা আসলে বৃহস্পতিবারও মোমেন্টাম ভালো পেয়েছিলাম। লিটন আর আফিফ ভালো ব্যাটিং করেছে। শুরুতে দুই উইকেট নিয়েও আমরা ছন্দ ফিরে পেয়েছিলাম। কিন্তু ধরে রাখতে পারিনি। কালকের ম্যাচে সেটা ধরে রাখতে হবে। আমি এখনও বিশ্বাস করি, আমাদের টিমের সামর্থ্য আছে। আমরা প্রাইম ব্যাংককে হারাতে সক্ষম।’

তিনটি হার দেখা ম্যাচের সংক্ষিপ্ত চালচিত্র মেলে ধরে সুজন বলেন, ‘গত ম্যাচে আমার কোনো বোলারই ভালো করেনি। হয়তো একটু ভীতসন্ত্রস্ত্র হয়ে গিয়েছিল। শেখ জামালের ব্যাটিংটাও হয়েছে বেশ ভালো। আশরাফুল, সোহান ও নাসির আউটস্ট্যান্ডিং ব্যাটিং করেছে। আর আমাদের খারাপ দিন গেছে। একটি ম্যাচে অমন হতেই পারে।’

‘আমাদের পরাজয়গুলো দেখেন। বোলারদের জন্য হেরেছি কম। শক্তিশালী ব্যাটিং নিয়েও আমরা হেরে যেতাম। আমরা প্রথম লেগে প্রাইম দোলেশ্বরের বিপক্ষে ১৩২ তাড়া করতে পারিনি। মোহামেডানের বিপক্ষে ৫ ওভারে ২৮ করলে জিতাম। সেটা আমাদের ব্যাটিংয়ের দোষে। খেলাঘরের সাথেও আমরা ব্যাটিংয়ের কারণেই হেরেছি। ১৫ খেলায় এই একটি ম্যাচেই আমরা বোলিংয়ের কারণে হেরেছি। কাজেই আমি বোলারদের দোষ দেব না। তারা অনভিজ্ঞ। তবে সামর্থ্য কম, বোলিং কমজোরি এমন ভাবার কোনই অবকাশ নেই। আমি বিশ্বাস করি বোলাররা খুব দ্রুত ঘুরে দাঁড়াবে।’

সুজন যোগ করেন, ‘সত্যি কথা বলতে কি আমাদের আর কোনো উপায় নেই। জেতা ছাড়া অন্য কোন পথ নেই। অন্য কিছু ভাবার, চিন্তারও কোনো সুযোগ নেই। লিগ জিততে চাইলে কালকের অঘোষিত ফাইনালে জিততেই হবে। যে হারবে সে তৃতীয় হয়ে যেতে পারে। তাই আমরা সামর্থ্যের সবটুকু উজাড় করে দেব ভালো খেলতে, জিততে। ইনশাআল্লাহ।’

এআরবি/এমএমআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]