টি-টোয়েন্টি জেতায় বোলাররা, আমাদের বোলিংটাই শক্তিশালী : ইমরান

আরিফুর রহমান বাবু
আরিফুর রহমান বাবু আরিফুর রহমান বাবু , বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৬:৫০ পিএম, ২৫ জুন ২০২১

ইতিহাস-পরিসংখ্যান পরিষ্কার সাক্ষী দিচ্ছে, ঢাকার ক্লাব ক্রিকেটে সর্বাধিক ২০ বারের চ্যাম্পিয়ন আবাহনী। আগামীকাল ২৬ জুন দুপুরে অঘোষিত ফাইনালে প্রাইম ব্যাংককে হারাতে পারলে রেকর্ড ২১ বার লিগ ট্রফি উঠবে আবাহনীর ঘরে।

আবাহনী যদি হয় সবচেয়ে বেশিবারের লিগ বিজয়ী, তাহলে কোচ হিসেবে সর্বাধিক শিরোপা কার? এ প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গেলে একটি নামই বেরিয়ে আসবে। তিনি সারোয়ার ইমরান।

আবাহনী যে ২০ বারের লিগ চ্যাম্পিয়ন, তার অন্তত তিনভাগের একভাগ লিগ বিজয়ের নৈপথ্য রূপকার সারোয়ার ইমরান। তার কোচিংয়ে অন্তত ছয়বার লিগ শিরোপা জিতেছে আকাশি-হলুদরা।

এছাড়া ভিক্টোরিয়া আর লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জও সারোয়ার ইমরানের কোচিংয়ে হয়েছে লিগ চ্যাম্পিয়ন। সব মিলিয়ে অন্তত ৮ থেকে ১০ বার চ্যাম্পিয়ন টিমের কোচ ইমরান।

১৯৯৬-১৯৯৭ সৌসুমে কোচ হয়ে প্রথম আবাহনীতে যোগদান। এর মধ্যে ২০০০ সাল পর্যন্ত চার লিগের মধ্যে ১৯৯৯ ছাড়া বাকি তিনবারই আবাহনী চ্যাম্পিয়ন হয় ইমরানের কোচিংয়ে। এরপর মাশরাফির ক্যাপ্টেন্সিতেও আবাহনী যখন চ্যাম্পিয়ন হয়, তখন তিনি ছিলেন আবাহনীর কোচ।

সময়ের প্রবাহতায় এখন সেই সারোয়ার ইমরান প্রাইম ব্যাংকের কোচের দায়িত্বে। আগামীকাল আবাহনীতে হারাতে পারলে প্রাইম ব্যাংক তার কোচিংয়ে প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগ চ্যাম্পিয়ন হবে। কোচ সারোয়ার ইমরান থাকাতেই আশাবাদী হতে পারেন প্রাইম ব্যাংক সমর্থকরা।

কিন্তু ইমরান নিজে কী ভাবছেন? অঘোষিত ফাইনালে তার দল কি আবাহনীকে হারানোর ক্ষমতা রাখে? কোচ হিসেবে তিনি কতটা আশাবাদী? আত্মবিশ্বাসই বা কতখানি?

জাগো নিউজের কাছ থেকে এমন প্রশ্ন পেয়ে সারোয়ার ইমরান বলেন, ‘আসলে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে আত্মবিশ্বাসই শেষ কথা নয়। সেখানে নির্দিষ্ট সময়ের অ্যাপ্রোচ, অ্যাপ্লিকেশন আর পারফরম্যান্সটা খুব জরুরি। সেটাই ম্যাচ নির্ধারণী ভূমিকা রাখে।’

তার অনুভব, টি-টোয়েন্টি খেলাটা অতি অল্প সময়েই রং বদলায়। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে প্রাইম দোলেশ্বরের সাথে তার দল প্রাইম ব্যাংকের ম্যাচের প্রসঙ্গ টেনে দেশের এ অন্যতম সিনিয়র ও দক্ষ কোচ বলে ওঠেন, ‘কাল দোলেশ্বরের সাথে যখন আমরা ১২৬ রানের পুঁজি নিয়ে হারলাম, ওই ম্যাচেও কিন্তু এক সময় মনে হচ্ছিল, আমরা জিততে পারি। কিন্তু শামিম পাটোয়ারী এক থেকে দুই ওভারে ম্যাচের পুরো দৃশ্যপট বদলে দিয়েছে। তার ব্যাটিংয়ে হঠাৎই খেলার চিত্র যায় পাল্টে।’

অঘোষিত ফাইনালে নিজ দলের সম্ভাবনার কথা উঠতেই এ অভিজ্ঞ কোচ বলে ওঠেন, ‘আসলে এই ফরম্যাটে বলেকয়ে কিছু করা কঠিন। এখানে যে কেউ জিততে পারে। আবাহনীও জিততে পারে, আমরাও জিততে পারি।’

সারোয়ার ইমরান যোগ করেন, ‘আমাদের খেলোয়াড়রা যদি বিশ্বাস করে আমরা জিতব, ভেতরে যদি প্রচণ্ড ইচ্ছাশক্তি কাজ করে। ভাল খেলার যদি ক্ষুধা থাকে, তাহলে আমরাই জিতব। চ্যাম্পিয়ন হব। তবে আবাহনীও ভালো দল। আমি এটাকে ফিফটি ফিফটি বলব।’

আপনি কি নিজ দলের ব্যাটিংয়ের চেয়ে বোলিংকে এগিয়ে রাখতে চান? এমন প্রশ্নের জবাবে ইমরানের উত্তর, ‘বোলিং তো বরাবরই ভালো হয়েছে আমাদের। ব্যাটিংও খারাপ না। মেইন ব্যাটসম্যানের কাছ থেকে সাপোর্ট পেলে অবশ্যই চ্যাম্পিয়ন হতে পারব।’

আপনি বলছেন টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে কাগজ-কলমের শক্তি তেমন প্রভাব ফেলে না। তারপরও আপনার কাছে যদি জানতে চাওয়া হয়, ফেবারিট কে-আবাহনী নাকি প্রাইম ব্যাংক? ইমরানের আত্মবিশ্বাসী জবাব, ‘ফেবারিট প্রাইম ব্যাংক।’

কিভাবে এবং কেন? প্রাইম ব্যাংক কোচের দাবি, ‘আমাদের বোলিংটা ভালো আর টি-টোয়েন্টি ম্যাচ জেতায় আসলে বোলাররা। ২০ ওভারের ছোট্ট ফরমেটে হয়তো ব্যাটসম্যানদের প্রতিই সবার দৃষ্টি থাকে। তবে আমার মনে হয় এ ফরম্যাটে ম্যাচ জয়ী ভূমিকাটা বোলারদেরই বেশি থাকে। প্রতিপক্ষকে কম রানে বেঁধে রাখতে পারলে জেতার সম্ভাবনা বেশি থাকে। আর আমাদের বোলিংটা অনেক শক্তিশালী।’

এআরবি/এমএমআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]