ব্যাটসম্যান না পেয়ে বিপদ ভারতের, রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে শ্রীলঙ্কার জয়

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৪২ এএম, ২৯ জুলাই ২০২১

করোনা কত কিছু না দেখাল ক্রিকেটকে! আরেকটু হলে বোধ হয় কোচ রাহুল দ্রাবিড়কেই ব্যাটিংয়ে নেমে যেতে হতো। কলম্বোয় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ব্যাটসম্যানের কোটা পূরণ করতেই যে ঘাম ঝরল ভারতের!

ক্রুনাল পান্ডিয়া হঠাৎ করোনা আক্রান্ত হওয়ায় মঙ্গলবারের ম্যাচটি পিছিয়ে আনা হয় বুধবারে। কিন্তু ভারত একাদশ সাজাবে কী করে? ক্রুনালের সংস্পর্শে আসা আরও আটজনকে যে আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে।

সবমিলিয়ে স্কোয়াডে বাকিই ছিল ১১ জন সদস্য। এর মধ্যে চারজনের টি-টোয়েন্টি অভিষেক করতে হলো। পাঁচজন বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান নিয়ে মাঠে নামতে হলো ভারতকে, ছয় নম্বরেই ব্যাটসম্যান কোটায় পেসার ভুবনেশ্বর কুমার!

এমনিতেই শ্রীলঙ্কায় দ্বিতীয় সারির দল নিয়ে খেলতে গেছে ভারত। এবার জোড়াতালি দিয়ে একাদশ সাজিয়েও স্বাগতিকদের চাপে ফেলে দিয়েছিল তারা, সেটাও আবার মাত্র ১৩২ রানের পুঁজি নিয়ে।

যদিও রুদ্ধশ্বাস লড়াইটি শেষ ওভারে এসে ৪ উইকেট আর ২ বল হাতে রেখে জিতেছে শ্রীলঙ্কাই। তিন ম্যাচের সিরিজে তারা ফিরিয়েছে ১-১ সমতা।

১৩৩ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে দলীয় ১২ রানের মাথায় আভিষ্কা ফার্নান্ডোকে হারায় শ্রীলঙ্কা। এরপর কুলদীপ যাদব, বরুণ চক্রবর্তী আর রাহুল চাহার- এই স্পিনত্রয়ীর দাপটে রীতিমতো ঘামতে থাকে শ্রীলঙ্কা।

সেট হয়ে সাজঘরে ফেরেন ওপেনার মিনোদ ভানুকা (৩১ বলে ৩৬)। ১০৫ রান তুলতে যখন ৬ উইকেট হারিয়ে বসেছে শ্রীলঙ্কা, তখন হাতে মাত্র ১৬ বল তাদের। রান দরকার ২৮। ভারতের ভাঙাচোরা দলের কাছেই প্রায় হারতে বসেছিল স্বাগতিকরা।

jagonews24

তবে এক প্রান্তে মাটি কামড়ে পড়ে ছিলেন ধনঞ্জয় ডি সিলভা। সতীর্থরা আসা যাওয়ার মিছিলে থাকলেও তিনি হাল ছাড়েনি। ম্যাচ গড়ায় শেষ ওভার পর্যন্ত। শ্রীলঙ্কাকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন ধনঞ্জয়া। ৩৪ বলে মাত্র একটি করে চার-ছক্কায় অপরাজিত থাকেন ৪০ রানে।

এর আগে পাঁচ অভিষিক্ত দেবদত্ত পাডিক্কেল, রুতুরাজ গায়কোয়াড়, নিতিশ রানা এবং চেতন সাকারিয়াকে নিয়ে ব্যাটিংয়ে নামে ভারত। অভিষেক ম্যাচেই শিখর ধাওয়ানের সঙ্গে ওপেন করতে নেমেছিলেন রুতুরাজ। শুরুটা তিনি ভালোই করেছিলেন। প্রথম পাওয়ার প্লে-তে বিনা উইকেটেই ৪৫ রান তুলে সফরকারিরা।

অতি আক্রমণাত্মক হতে গিয়ে উইকেট হারান রুতুরাজ (১৮ বলে ২১)। তারপরও ১২ ওভার শেষে ভারতের রান ছিল ১ উইকেটে ৮১। ধাওয়ান টিকে থাকলেও টি-টোয়েন্টির ব্যাটিংটা করতে পারছিলেন না। স্লগ সুইপ করতে গিয়ে বোল্ড হন ভারতীয় দলপতি (৪২ বলে ৪০)।

এরপর দেবদূত পাডিক্কেল ২৩ বলে ২৯ রান করে সাজঘরের পথ ধরেন। সঞ্জু স্যামসন (১৩ বলে ৭), নিতিশ রানাও (১২ বলে ৯) সুবিধা করতে পারেননি।

আসলে নিচের দিকে ব্যাটসম্যান না থাকায় ভারত যেন ঝুঁকিও নিতে চাইছিল না। শেষ পর্যন্ত ৫ উইকেটে ১৩২ রানে তারা থামে তারা, যে পুঁজি নিয়েই কাঁপিয়ে দিয়েছিল স্বাগতিকদের। তবু শেষ রক্ষা হলো না।

এমএমআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]