সেই ক্রেইগ ম্যাকডেরমটের ছেলে বেন এখন ঢাকায়

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:২৯ পিএম, ২৯ জুলাই ২০২১

এখনকার অস্ট্রেলিয়ার ফাস্ট বোলিংয়ের কথা উঠলেই চলে আসে মিচেল স্টার্ক, জস হ্যাজলউড, প্যাট কামিনসদের নাম। তবে আশির দশকের মাঝামাঝি সময় থেকে নব্বইয়ের দশকের মাঝামাঝি পর্যন্ত এই অসি ফাস্ট বোলিংয়ের পুরোধা ছিলেন ক্রেইগ ম্যাকডেরমট।

ইতিহাস-পরিসংখ্যান সাক্ষী দিচ্ছে, অস্ট্রেলিয়া যখন এই উপমহাদেশে (১৯৮৭ সালে ভারত ও পাকিস্তান) হওয়া প্রথম বিশ্বকাপ জিতেছিল, সেই সাফল্যের অন্যতম রুপকারই ছিলেন ফাস্ট বোলার ক্রেইগ ম্যাকডেরমট। বলার অপেক্ষা রাখে না, যুক্তরাজ্যের বাইরে সেটাই ছিল প্রথম বিশ্বকাপ। এর আগের তিন আসরই বসেছিল ইংল্যান্ডে।

সেই সাবেক অস্ট্রেলিয়ান ফাস্ট বোলার ক্রেইগ ম্যাকডেরমটের ছেলে বেন ম্যাকডেরমট আছেন এবারের বাংলাদেশ সফররত অস্ট্রেলিয়ান দল। যারা বিশ্ব ক্রিকেটের খুঁটিনাটি খোঁজখবর রাখেন, তাদের কাছে এটা কোন নতুন খবর নয়। বাংলাদেশের এ প্রজন্মের অনেক তরুণই এটা জানেন।

তবে ক্রেইগ ম্যাকডেরমট যে কত বড় আর কী ভয়ঙ্কর ফাস্ট বোলার ছিলেন, তার অর্জন আর প্রাপ্তি কী? এই উপমহাদেশই যে তার সাফল্যের স্বর্গ, সেই ধারণা আছে ক’জনার?

প্রায় তিন যুগ আগে ১৯৮৭ সালে এই উপমহাদেশে বসেছিল বিশ্বকাপের আসর। সেমিফাইনালে লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে ইমরান খান, রমিজ রাজা, জাভেদ মিঁয়াদাদ, সেলিম মালিক, ইজাজ আহমেদ, সেলিম ইউসুফ, আবদুল কাদির, ওয়াসিম আকরামদের নিয়ে গড়া অতি শক্তিশালী পাকিস্তানকে ১৮ রানে হারিয়ে ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেছিল অ্যালান বোর্ডারের অস্ট্রেলিয়া।

সেই ম্যাচে অসিদের জয়ের নায়ক ক্রেইগ ম্যাকডেরমট। পাকিস্তানের ব্যাটিং লাইনআপ গুড়িয়ে যায় অসি ফাস্ট বোলারের বিধ্বংসী বোলিংয়ে। তার বোলিং বিশ্লেষণ ছিল ১০-০-৪৪-৫।

১৯৮৪-১৯৮৫’তে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট শুরু করা ক্রেইগ ম্যাকডেরমট ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত প্রায় একযুগ অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের প্রধান বোলিং অস্ত্র ছিলেন। ৭১ টেস্টে ক্রেইগ ম্যাকডেরমটের উইকেট সংখ্যা ২৯১ আর ১৩৮ ওয়ানডেতে উইকেট পেয়েছেন ২০৩টি।

jagonews24

টেস্টে ১৭ বার ৪ উইকেট দখল করার রেকর্ড আছে এ অসি ফাস্ট বোলারের, ৫ উইকেট পেয়েছেন ১৪ বার। আর ম্যাচে ১০ উইকেট আছে ২ বার। অন্যদিকে ওয়ানডেতে ৪ উইকেট ৪ বার আর ৫ উইকেট একবার। সেটা পাকিস্তানের বিপক্ষে, বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে।

তার ছেলে এবার বাংলাদেশে। আগামী ৩ আগস্ট থেকে শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে টাইগারদের সঙ্গে অসিদের যে ৫ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ রয়েছে, তাতে খেলতে দেখা যেতে পারে বেন ম্যাকডেরমটকে। এই তো গত চলতি মাসেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুইটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি খেলেছেন এ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান।

আশি-নব্বইয়ের দশকে বিশ্ব ক্রিকেটের খোঁজখবর রাখতেন যারা, তারা নিশ্চয়ই বেন ম্যাকডেরমটকে টিভিতে দেখে পুলকিত হবেন। তাদের স্মৃতিতে জাগবে ৮৭’র বিশ্বকাপে পাকিস্তানের শক্তিশালী লাইনআপের বিপক্ষে ক্রেইগ ম্যাকডেরমটের বারুদে বোলিংয়ের কথা।

এবার দেখা যাক, ক্রেইগ ম্যাকডেরমটের ছেলে বেন ম্যাকডরমেট ঢাকায় কী করেন? অবশ্য বাবা ক্রেইগ ফাস্ট বোলার হলেও, ছেলে বেন পুরোদস্তুর ব্যাটসম্যান। যিনি মাঝেমধ্যে করে থাকেন উইকেটকিপিংও। তাই ঢাকায় সুযোগ পেলে গতির ঝড়ের বদলে হয়তো ব্যাটের ঝড় তোলার চেষ্টাই থাকবে বেন ম্যাকডরমেটের।

এআরবি/এসএএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]