বিসিবির হাতে ‘আর কোনো সুযোগ ছিল না’

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:০০ পিএম, ৩০ জুলাই ২০২১

প্রায় চার বছর পর অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল খেলতে এসেছে বাংলাদেশে। বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যতম পরাশক্তিরা বাংলাদেশে আসায় ভক্ত-সমর্থকদের মধ্যে আগ্রহ-উত্তেজনার পারদ থাকবে তুমুলে- এমনটাই হতো স্বাভাবিক সময়ের পরিস্থিতি।

কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার এবারের সফরকে ঘিরে উল্টো বিরক্ত ও নাখোশ দেশের ক্রিকেট ভক্তরা। এর কারণ অসিদের বেঁধে দেয়া হাজারও নিয়ম। যার সবশেষটি কি না, টিম হোটেলে বাংলাদেশ দলই ব্যবহার করতে পারবে না জিম। হোটেলের জিম শুধুমাত্র ব্যবহার করতে পারবে অসিরাই।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে এমন অসংখ্য সব নিয়মের কথা জানিয়েই পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে এসেছে অস্ট্রেলিয়া। সেই পাঁচ ম্যাচও কি না হবে মাত্র সাত দিনে। আগামী ৩ আগস্ট (মঙ্গলবার) শুরু হবে সিরিজ। পরের চার ম্যাচ যথাক্রমে ৪, ৬, ৭ ও ৯ আগস্ট।

সবমিলিয়ে মাত্র ১১ দিনের সফরে বাংলাদেশে এসেছে অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু কেনো এমন তাড়াহুড়ো? বিসিবিই বা কেন মেনে নিল এত সব নিয়ম? উত্তর দিয়েছেন বোর্ডের প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন। জানিয়েছেন, বিসিবির হাতে আর কোনো সুযোগ ছিল না।

শুক্রবার সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে আলাপে সিইও বলেছেন, ‘আমাদের হাতে আর কোনো সুযোগ ছিল না। অস্ট্রেলিয়া যত কম সময়ের মধ্যে সম্ভব খেলা শেষ করে চলে যেতে চাচ্ছে।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘আবহাওয়ার বিষয়টিও বিবেচনায় রাখতে হয়েছে। যেহেতু টি-টোয়েন্টি ম্যাচ আর মাঠের প্রস্তুতি ভালো। মাঠের ড্রেনেজ সিস্টেম সম্পর্কে আপনাদের ধারণা আছে। আশা করি খেলাগুলো আমাদের মত করে শেষ করতে পারব।’

বিসিবির কাছ থেকে এতসব সুবিধা চাওয়ার পর সেগুলো যথাযথ পেয়ে অস্ট্রেলিয়াও বেশ খুশি বলে জানালেন নিজামউদ্দিন চৌধুরী। এখনও পর্যন্ত কোনোকিছু নিয়ে অভিযোগের কোনো বার্তা মেলেনি অসিদের কাছ থেকে।

সিইওর ভাষ্য, ‘আমার মনে হয় তারা যেসব সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছে তা তাদের প্রত্যাশারও বেশি। তাদের যে তথ্য পাচ্ছি তাতে মনে হচ্ছে, তারা এখন পর্যন্ত সবকিছু নিয়ে খুশি। বিশেষ করে ওদের প্রথম যে শর্ত ছিল- এয়ারপোর্ট থেকে হোটেলে যাওয়া পর্যন্ত এবং হোটেলের পরিবেশ সবকিছু নিয়ে খুশি আছে আমি মনে করি।’

এসময় অস্ট্রেলিয়াকে এত বেশি সুবিধা দেয়ার বিষয়ে বিসিবির প্রধান নির্বাহী বলেন, ‘এখন যে পরিস্থিতি, স্ট্যান্ডার্ড বায়ো বাবল প্রটোকল আছে। এই প্রটোকলের বাইরে অস্ট্রেলিয়া দল বাড়তি কিছু চাহিদার কথা জানিয়েছে, আমরা সেগুলো পূরণের চেষ্টা করেছি। এর বাইরে কিন্তু তেমন কিছু না। বিষয়টাকে অতিরঞ্জিত করে দেখার সুযোগ নেই। বর্তমান পরিস্থিতিতে এটাই নিউ নরমাল এবং আমাদেরকে এভাবেই ইভেন্টগুলো আয়োজন করতে হবে।’

এসএএস/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]