ভারতের বিপক্ষে দাঁড়িয়ে কাশ্মীরে খেলবেন দিলশান

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:৩১ এএম, ০২ আগস্ট ২০২১

পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে প্রথমবারের মতো হতে চলেছে বড় পরিসরে ক্রিকেট টুর্নামেন্ট। আগামী শুক্রবার থেকে শুরু হবে কাশ্মীর প্রিমিয়ার লিগের (কেপিএল) খেলা। কিন্তু এতে প্রতিনিয়ত বাধা দিয়ে চলেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)।

লিগটির জন্য নিবন্ধিত বিদেশি ক্রিকেটারদের হুমকি দিচ্ছে বিসিসিআই। তারা সাফ জানিয়েছে, কেপিএল খেললে আর কখনও ভারতে ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট কাজের জন্য যাওয়া যাবে না। বিসিসিআইয়ের এমন হুমকিতে কেপিএল থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকার ৫ ক্রিকেটার।

তবে ভারতের বিপক্ষে দাঁড়িয়ে লিগটি খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন শ্রীলঙ্কার সাবেক অধিনায়ক তিলকারাত্নে দিলশান। তার দল মুজাফফর টাইগার্সের মালিক আরশাদ খান তানোলি নিশ্চিত করেছেন এ তথ্য। তানোলির মতে, দিলশানের কাশ্মীরে খেলার সিদ্ধান্ত ভারতীয় বোর্ডের মুখে চপেটাঘাত।

ক্রিকেট পাকিস্তান ডট কমকে তানোলি বলেছেন, ‘কাশ্মীর প্রিমিয়ার লিগে দিলশানের অংশগ্রহণ বিসিসিআই ও ভারতের মুখে চপেটাঘাত। দিলশানের সঙ্গে কথা হয়েছে আমার। সে কেপিএল খেলতে রোমাঞ্চিত। এরই মধ্যে পাকিস্তানের ভিসার আবেদন করেছে সে। পাকিস্তান ও কাশ্মীর সমর্থকদের পক্ষে আমরা তাকে স্বাগত জানাই।’

উল্লেখ্য, কেপিএলের জন্য নিবন্ধিত ছয় বিদেশি খেলোয়াড় ছিলেন শ্রীলঙ্কার সাবেক অধিনায়ক তিলকারাত্নে দিলশান, দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক তারকা ব্যাটসম্যান হার্শেল গিবস, ইংল্যান্ডের ম্যাট প্রায়র, মন্টি প্যানেল, ফিল মাস্টার্ড ও ওয়াইজ শাহ। টুর্নামেন্টের ছয় দলে খেলার কথা ছিলো এ ছয় বিদেশি ক্রিকেটারের।

কেপিএলের ছয় দল হলো ওভারসিজ ওয়ারিয়র্স, মুজাফফরবাদ টাইগার্স, রাওয়ালকোট হকস, বাঘ স্ট্যালিয়নস, মিরপুর রয়্যালস এবং কোটলি লায়নস। এ ছয় দলের অধিনায়ক যথাক্রমে ইমাদ ওয়াসিম, মোহাম্মদ হাফিজ, শহিদ আফ্রিদি, শাদাব খান, শোয়েব মালিক ও কামরান আকমল।

প্রতিটি দলের পাঁচ জন করে কাশ্মীরের খেলোয়াড় থাকবে। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে কাশ্মীরের পার্লামেন্টারি স্পেশাল কমিটির চেয়ারম্যান শেহরিয়ার খান কেপিএলের ঘোষণা দেন। আজাদ কাশ্মীরের প্রেসিডেন্ট মাসুদ খানকে কেপিএলের চিফ প্যাট্রন করা হয়েছে।

পাকিস্তানের সাবেক পেসার ওয়াসিম আকরাম এই লিগে প্রতিষ্ঠা সহ-সভাপতি এবং তারকা অলরাউন্ডার শহিদ আফ্রিদি রয়েছেন শুভেচ্ছাদূত হিসেবে। টুর্নামেন্টের সবগুলো ম্যাচ হবে ১৮ হাজার ধারণক্ষমতাসম্পন্ন মুজাফফরবাদ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

এসএএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]