ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন নেপালের কিংবদন্তি

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:২৬ পিএম, ০৩ আগস্ট ২০২১

নেপাল ক্রিকেটের অবিসংবাদিত কিংবদন্তি তিনি। ২০০২ সালে মাত্র ১৪ বছর বয়সে অনূর্ধ্ব-১৫ পর্যায় থেকে শুরু, পরের ১৯ বছর নেপাল ক্রিকেটের সেবা করে গেছেন ৩৩ বছর বয়সী অলরাউন্ডার পরশ খাড়কা।

অবশেষে ২০২১ সালে এসে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন খাড়কা। তার আগে গড়েছেন সহযোগী সদস্য দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি দিন অধিনায়কত্ব করার রেকর্ড।

২০০৯ থেকে ২০১৯ পর্যন্ত নেপালকে ৬ ওয়ানডে ও ২৬ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়েছেন খাড়কা। যেখানে জয়ের দেখা পেয়েছেন ৩ ওয়ানডে ও ১১ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে। সবমিলিয়ে ১০ ওয়ানডে ও ৩৩ টি-টোয়েন্টি খেলেছেন তিনি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে অবসরের ঘোষণা দিয়ে খাড়কা লিখেছেন, ‘নেপালের হয়ে খেলা আমার সবচেয়ে বড় অর্জন। এজন্য আমি সবসময় আমার কোচ, সতীর্থ, সমর্থক, স্টেকহোল্ডার, বন্ধুবান্ধব এবং পরিবারের কাছে কৃতজ্ঞ। তারা গত ১৮ বছর ধরে আমাকে সমর্থন দিয়ে গেছে।’

এখনই কেনো অবসরের সিদ্ধান্ত? তা জানিয়ে খাড়কা আরও লিখেছেন, ‘এখন সময় হয়েছে। একজন ক্রিকেটার হিসেবে আমি আমার পুরোটা দিয়েছি, দেশের জন্য ভালো কিছু অর্জন করতে। আমার সবচেয়ে বড় স্বপ্ন হলো নেপালকে ভালো একটি ক্রিকেটীয় জাতি হিসেবে দেখা। যা পেতে গত দুই দশকে আমি নিজের সবটা দিয়েছি।’

তিনি আরও লিখেছেন, ‘নেপালের ক্রিকেটকে আরও উন্নত করতে ক্রিকেট কমিউনিটি ও সকলের সর্বাত্মক প্রচেষ্টা প্রয়োজন। আমি বিশ্বাস করি, সবার সৎ ও নিষ্ঠাপূর্ণ অবদানে আমরা এটি অর্জন করতে সক্ষম হবো।’

নেপালের হয়ে খেলার বড় অংশে ৩ ও ৪ নম্বরে ব্যাটিং করেছেন খাড়কা। ওয়ানডেতে ৩১৫ ও টি-টোয়েন্টিতে করেছেন ৭৯৯ রান। দুই ফরম্যাটেই নেপালের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ৩৩ বছর বয়সী খাড়কা।

নেপালের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়েছেন তিনি। ওয়ানডেতে নেপালের একমাত্র সেঞ্চুরিটিও তারই দখলে। কখনও মিডিয়াম পেস, আবার কখনও অফস্পিন বোলিং দিয়েও দলে অবদান রেখেছেন তিনি।

খাড়কার নেতৃত্বে ২০১৪ সালে টি-টোয়েন্টি ও ২০১৮ সালে ওয়ানডে স্ট্যাটাস পেয়েছে নেপাল। পরে ২০১৯ সালে তার অধীনেই আরব আমিরাতকে হারিয়ে প্রথম ওয়ানডে জয়ের স্বাদ পায় নেপাল। ২০১৪ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নেপালের অধিনায়ক ছিলেন তিনি।

২০১৯ সালের অক্টোবরে আইসিসির সহযোগী সদস্য দেশ হিসেবে নেপালের পুনরায় অন্তর্ভুক্তির পর অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেন খাড়কা। ২০২০ সালের মার্চে সবশেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন তিনি। একই বছরের নভেম্বরে সহযোগী দেশগুলোর মধ্যে আইসিসির দশকসেরা ক্রিকেটারের জন্য মনোনীত হয়েছিলেন খাড়কা।

এসএএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]