পাকিস্তানের ‘লক্ষ্য’ ছিলো শুধু ভারত, বাড়লো আরও দুই দেশ

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৪২ এএম, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১

আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের যথাযথ প্রস্তুতি নেয়ার জন্য ১২টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচের ব্যবস্থা করেছিলো পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। কিন্তু প্রথমত বৃষ্টি আর এরপর নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের আচমকা গড়িমসির কারণে সেই ১২ ম্যাচের সবকয়টি পাচ্ছে না পাকিস্তান।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে পাঁচ ম্যাচ খেলার কথা ছিলো পাকিস্তানের। সেখানে করোনাভাইরাসের কারণে কমানো হয় এক ম্যাচ। পরে বৃষ্টির কারণে একটির বেশি ম্যাচ পুরোপুরি খেলা সম্ভব হয়নি। আর এবার ঘরের মাঠে প্রথমে নিউজিল্যান্ড আর পরে সফর বাতিল করে দিয়েছে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলও।

অর্থাৎ বিশ্বকাপের আগে ১২টি ম্যাচ খেলার পরিকল্পনা করলেও, মাত্র ১টি ম্যাচ খেলতে পারছে ২০০৯ সালের বিশ্ব টি-টোয়েন্টির চ্যাম্পিয়নরা। যা তাদের প্রস্তুতিতে বড় ধাক্কা হিসেবেই বিবেচিত হচ্ছে। তবে এতে মোটেও বিচলিত হচ্ছেন না পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের নতুন চেয়ারম্যান রমিজ রাজা।

উল্টো আসন্ন টুর্নামেন্টে ভারতের পাশাপাশি ইংল্যান্ড আর নিউজিল্যান্ডকেও নিজেদের লক্ষ্যে পরিণত করেছেন পিসিবি চেয়ারম্যান। ইংল্যান্ড আর নিউজিল্যান্ডের হুট করে বাতিলের প্রতিবাদটা মাঠে ভালো খেলার মাধ্যমেই দিতে চান রমিজ। সেজন্য নিজের খেলোয়াড়দেরও তাতিয়ে দিচ্ছেন তিনি।

পিসিবির পক্ষ থেকে দেয়া এক ভিডিওবার্তায় রমিজ বলেছেন, ‘আমরা বিশ্বকাপে যাবো, যেখানে এতোদিন আমাদের লক্ষ্য ছিলো একটি দল, আমাদের প্রতিবেশী (ভারত)। এখন যুক্ত হলো আরও দুইটি দল- ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ড। তাই এখন নিজেদের শক্তি দেখাতে হবে এবং বোঝাতে হবে তারা কাজটা ঠিক করেনি। মাঠেই আমরা প্রমাণ করবো।’

পরপর সিরিজ বাতিল হওয়ায় খেলোয়াড়দের মনোবল বাড়ানোর মিশনে নেমেছেন পিসিবি বিগ বস। রমিজ মনে করেন, একের পর এক দল পাকিস্তান সফর থেকে সরে দাঁড়ানোর পর এখন তাদের সামনে একটাই পথ, তা হলো বিশ্বের সেরা দল হয়ে যাওয়া, যাতে সবাই স্বেচ্ছায় পাকিস্তান সফর করে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে তিনি লিখেছেন, ‘ইংল্যান্ডের ওপর হতাশ। তারা নিজেদের প্রতিশ্রুতি রাখলো এবং যখন আরেকটি ক্রিকেট খেলুড়ে দেশের সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন ছিল, তখনই তারা সরে দাঁড়ালো। আমরা টিকে থাকবো ইনশাআল্লাহ্‌। এটা সজাগ হওয়ার বার্তা যেনো আমরা বিশ্বের সেরা হয়ে দেখাই এবং সব দল কোনো অজুহাত ছাড়াই পাকিস্তান সফর করে।’

উল্লেখ্য, দুইটি সিরিজ বাতিল হওয়ার পর এখন পাকিস্তানের সামনে বিশ্বকাপ প্রস্তুতির একটিই পথ খোলা রয়েছে। তা হলো আগামী ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হতে যাওয়া ঘরোয়া ন্যাশনাল টি-টোয়েন্টি কাপ। বিশ্বকাপের আগে পাকিস্তানের সব খেলোয়াড়কেই দেখা যাবে এই টুর্নামেন্টে।

এসএএস/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]