ভারতই বাতিল করিয়েছে নিউজিল্যান্ডের সফর: দাবি পাক মন্ত্রীর

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:০০ পিএম, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

সিরিজ শুরুর প্রাক্কালে হঠাৎ করেই তা বাতিল করে দিয়ে ফিরে যায় নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দল। সর্বোচ্চ নিরাপত্তার নিশ্চয়তা দেয়া সত্ত্বেও ফিরে যায় কিউইরা। পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের হস্তেক্ষেপেও সমস্যার সমাধান হয়নি। নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটাররা পাকিস্তানের ক্রিকেটকে ধ্বংস করে দিয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছে দেশটির সাবেক এবং বর্তমান ক্রিকেটাররা।

গত শুক্রবার নিউজিল্যান্ড নিরাপত্তার অজুহাত দেখিয়ে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সীমিত ওভারের ক্রিকেট সিরিজ বাতিল করার পরে ইংল্যান্ডও পাকিস্তানে খেলতে যাবে না বলে এরইমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছে।

পাকিস্তানে হঠাৎ করে ক্রিকেটের এই বিপর্যয় সৃষ্টির পেছনে ভারতের হাত রয়েছে বলে মনে করছেন দেশটির তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী। তিনি দাবি করেন ভারতের পক্ষ থেকেই কিউইদের প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে ই-মেইল পাঠানো হয়, যে কারণে সিরিজ বাতিল হয়ে যায়।

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের এক কর্মকর্তা আগেই জানিয়েছিলেন ই-মেইলের মাধ্যমে কিউই দলকে হুমকি পাঠানো হলেও তা গুরুতর নয় বলে আগেই বাতিল করা হয়। পাক মন্ত্রীর বক্তব্যে যেন সে সুরই বেজে উঠলো।

তার দাবি অগস্টে তেহরিক-ই-তালিবান পাকিস্তানের এহসানুল্লাহ এহসানের নাম নিয়ে কিউই দলকে হুমকি দিয়ে একটি ই-মেইল পাঠানো হয়, যাতে নিউজিল্যান্ড সরকার ও ক্রিকেট বোর্ডকে পাকিস্তানে দল না পাঠানোর পরামর্শ দেওয়া হয়।

এরপরেও নাকি হামজা আফ্রিদি নামে আরেক অ্যাকাউন্ট থেকে কিউইদের আরেকটি হুমকিমূলক ই-মেইল পাঠানো হয়। তার দাবি তদন্তকারী সংস্থা এই ঘটনার সঙ্গে ভারতের যোগসূত্র পেয়েছে। যদিও যে মেশিন থেকে তা পাঠানো হয়, তার ঠিকানা সিঙ্গাপুরের।

জনাব চৌধুরী জানান, ‘ওটা (ই-মেইল) ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক (ভিপিএন) ব্যাবহার করে পাঠানো হয়, যার ফলে তা সিঙ্গাপুরের ঠিকানা দেখায়। তবে যে মেশিনের সাহায্যের কিউইদের হুমকির বার্তা পাঠানো হয়, সেটা ভারতের। ফেক আইডি ব্যবহার করে মহারাষ্ট্র থেকে তা পাঠানো হয়।’

এখানেই তিনি ক্ষান্ত হননি। ইন্টারপোলকে পুরো ঘটনার তদন্ত করার দাবি জানানোর পাশপাশি চৌধুরী জানান ডিসেম্বরে সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলকেও মেইল পাঠানো হয়েছ। ‘এর মধ্যেই ওদেরও (ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল) হুমকি দেওয়া হয়েছে। এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক। আমাদের মতে দেশে যাতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট না হয়, তার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। আইসিসি এবং বাকি সংস্থাদের এর বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া উচিত’- দাবি পাকিস্তানের এই মন্ত্রীর।

আইএইচএস/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]