মোস্তাফিজের আগুন ঝরানো বোলিং, রাজস্থানের লক্ষ্য ১৫৫

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৫৬ পিএম, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

আগের ম্যাচে দুর্দান্ত বোলিং করে দলের অবিশ্বাস্য জয়ে বড় অবদান রেখেছিলেন। যদিও সে ম্যাচে উইকেট পাননি। এবার মোস্তাফিজুর রহমান হাজির আরও ভয়ংকর চেহারায়। প্রতিপক্ষের রান তো আটকালেনই, সঙ্গে নিলেন উইকেটও। তার চেয়েও লক্ষ্যণীয় ব্যাপার, ৪ ওভার বল করে একটি বা্উন্ডারিও হজম করেননি তিনি।

আবুধাবিতে কাটার মাস্টারের আগুন ঝরানো বোলিংয়েই দিল্লি ক্যাপিটালসের মতো পয়েন্ট তালিকায় দাপট দেখানো দল বড় লক্ষ্য ছুড়ে দিতে পারেনি রাজস্থান রয়্যালসকে। ৬ উইকেটে ১৫৪ রানে থেমেছে দিল্লির ইনিংস। অর্থাৎ জিততে হলো মোস্তাফিজদের করতে হবে ১৫৫।

টস হেরে ব্যাট করতে নামা দিল্লিকে শুরুতেই চেপে ধরেন রাজস্থানের বোলাররা। মোস্তাফিজকে দিয়ে আক্রমণ শুরু করেন রাজস্থান অধিনায়ক সঞ্জু স্যামসন। প্রথম ওভারে উইকেট না পেলেও মাত্র ৬ রান খরচ করেন কাটার মাস্টার।

প্রথম তিন ওভারে বিনা উইকেটে ১৮ রান তোলে দিল্লি। এরপর ২১ রানের মধ্যে সাজঘরের পথ ধরেন দুই ওপেনার শিখর ধাওয়ান (১২ বলে ১০) আর পৃথ্বি শ (৮ বলে ৮)। পাওয়ার প্লের প্রথম ৬ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে মাত্র ৩৬ রান তুলতে পারে রিশাভ পান্তের দল।

এরপর পান্তের সঙ্গে ৪৪ বলে ৬৫ রানের জুটিতে রানের গতি কিছুটা বাড়ান শ্রেয়াস আয়ার। পান্ত ততটা মেরে খেলতে পারেননি। ১২তম ওভারে ফের বল হাতে নিয়ে দিল্লি অধিনায়ককে (২৪ বলে ২৪) বোল্ড করেন মোস্তাফিজ। ওই ওভারে টাইগার পেসার দেন মাত্র ৫ রান।

jagonews24

এক ওভার পর মারমুখী আয়ার পড়েন দুর্ভাগ্যজনক স্ট্যাম্পিংয়ের ফাঁদে। রাহুল তেয়াতিয়ার বলে শট খেলতে গিয়ে ক্রিজের একটু বাইরে চলে এসেছিলেন আয়ার, স্যামসন স্ট্যাম্প ভেঙে দেন চোখের পলকে। ৩২ বলে ১ বাউন্ডারি আর ২ ছক্কায় আয়ার ফেরেন ৪৩ রানে।

সিমরন হেটমায়ার (১৬ বলে ২৮) চালিয়ে খেলছিলেন। ১৭তম ওভারে মোস্তাফিজ তাকে শর্ট থার্ডম্যানে সাকারিয়ার ক্যাচ বানান। কাটার মাস্টারের ওই ওভার থেকে ৪ রান তুলতে পারে দিল্লি।

ইনিংসের শেষ ওভারটিও করেন মোস্তাফিজ। বাঁহাতি এই পেসারের ওভারটিতে বাউন্ডারি না হলেও দিল্লি তুলে নেয় ৯ রান। সবমিলিয়ে ৪ ওভারে মাত্র ২২ রান খরচায় মোস্তাফিজ শেষ করেন ২ উইকেট নিয়ে।

এমএমআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]