আরও বেশি প্রার্থী নির্বাচন করলে খুশি হতেন পাপন

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ১০:০৮ পিএম, ০৬ অক্টোবর ২০২১

প্রার্থীদের, ভক্ত ও সমর্থকদের গগনবিদারি চিৎকার, উদ্দীপক স্লোগানে মুখর ছিল শেরে বাংলা স্টেডিয়াম ও তার আশপাশ। দুপুর গড়িয়ে বিকেল নামতেই সেই হৈ চৈ আর শোরগোল বাড়লো।

বিকেল থেকেই নাজমুল হাসান পাপন, নাইমুর রহমান দুর্জয়, তানভির আহমেদ টিটু আর ফাহিম সিনহার সমর্থকদের গলাই শোনা বেশি শোনা যাচ্ছিল। নির্বাচন কমিশনের রিটার্নিং অফিসার আলী রেজা সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় বিসিবি পরিচালক পরিষদ নির্বাচনের প্রাথমিক ফল ঘোষণা করার আগেই একের পর এক বিজয়ী প্রার্থীরা বিসিবি অফিসের দোতলা থেকে নেমে আসতে থাকেন।

যদিও ঠিক সূর্য ডোবার মুহূর্তে নিজের পরাজয়ের কথা মিডিয়ার কাছে জানিয়ে যান খালেদ মাসুদ পাইলট। এরপর নির্বাচিত পরিচালকদের মধ্যে আকরাম খান, ওবেদ নিযাম, খালেদ মাহমুদ সুজন, নাইমুর রহমান দুর্জয়, তানভির টিটু, ইফতেখার রহমান মিঠুসহ আরও অনেকে হাসিমুখে নির্বাচনী অফিস থেকে বের হয়ে গাড়িতে করে ফিরে যান নিজালয়ে।

তার আগে সন্ধ্যা ৭টা নাগাদ মিডিয়ার সাথে কথা বলেন বিসিবির সদ্যবিদায়ী কমিটির সভাপতি ও প্রাথমিক ফলে এনায়েত হোসেন সিরাজ এবং গোলাম মর্তুজা পাপ্পার সাথে সর্বাধিক ৫৩ ভোট পেয়ে প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত নাজমুল হাসান পাপন।

নির্বাচনের পরিবেশ, ভোট প্রদান এবং সামগ্রিক বিষয় নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন পাপন। তিনি জানান, প্রত্যাশার চেয়েও অনেক বেশি ভোটার ভোট দিয়েছেন।

পাপনের ভাষায়, ‘আমরা যে ধারণা করেছিলাম তার চেয়ে অনেক বেশি, কোথাও কোথাও ৯৯ ভাগ, মানে সবাই ভোট দিতে এসেছে। এই যে ভোট পড়েছে, এটাই সবচেয়ে বড় কথা। সাধারণত নির্বাচনে দেখি যে অনেকে ভোট দিতে আসে না, তাদের মতামত আমরা পাই না। এই নির্বাচনে প্রায় সব ভোট পড়েছে।’

তিনি আগে কখনও নির্বাচন করেনি। এটাই ছিল বিসিবিতে পাপনের প্রথম নির্বাচন। সেই অভিজ্ঞতা জানিয়ে পাপন বলেন, ‘নির্বাচন কাকে বলে, আসলে আমি ক্রিকেট বোর্ডে এর আগে দেখিনি। গত দুবার নির্বাচন হয়নি, আজকে দেখলাম মোটামুটি নির্বাচন প্রক্রিয়া সুষ্ঠু ছিল। এতে কোনো সন্দেহ নেই, শান্তিপূর্ণ ছিল। মানুষ ভোট দিয়েছে, এটাই বড় কথা।’

আরও বেশি প্রার্থী নির্বাচন করলে খুশি হতেন পাপন। তার কথা, ‘আরও খুশি হতাম যদি আরও অনেক অংশগ্রহণ থাকতো। আরও অনেক ভালো ভালো ক্রিকেটের সঙ্গে সম্পৃক্ত লোক আছে। যাদের আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, তারাও ক্রিকেটে অনেক অবদান রাখতে পারে।’

সঙ্গে যোগ করেন, ‘এরকম অনেকেই আসেনি (নির্বাচনে)। আসতে পারতো, কিন্তু আসেনি। এটা আমার মনে হয়। হতে পারে এটা প্রথম নির্বাচন বলে তারা একটু সন্দিহান ছিল। কিন্তু সামনের নির্বাচনে তারা সকলেই অংশগ্রহণ করবে, আরও বেশি বেশি অংশগ্রহণ করবে, এটাই আমি চাই।’

নতুন ৬ পরিচালক এসেছেন বোর্ডে। তবে বেশিরভাগই পুরোনো। পাপন বোঝানোর চেষ্টা করেছেন, আগের বোর্ডেও তার কাজ করতে সমস্যা হয়নি। এবারও হবে না।

পাপনের ভাষায়, ‘আগে যে বোর্ড ছিল, সেখানে কাউকে নিয়ে কাজ করতে আমার সমস্যা হয়নি। এবারও যারা আসবে, তাদের নিয়ে কাজ করতে সমস্যা হওয়ার কোনো কারণ নেই। প্যানেল না দেওয়ার কারণই হল এটা। প্যানেল যদি থাকতো, তাহলে বাইরে থেকে কেউ আসলে বলতাম যে তার সঙ্গে সমস্যা হবে কি না। এখন তো সেটা না, যে জিতবে সেটাই প্যানেল।’

এআরবি/এমএমআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]