বিশ্বকাপ ইতিহাসে এমন ঘটনা এর আগে ঘটেছে মাত্র দু’বার

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:৩৮ পিএম, ১৭ অক্টোবর ২০২১

শুরু হয়ে গেল সপ্তম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। ওমানের আল-আমিরাত ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে দুই ওপেনারের জোড়া ফিফটিতে পাপুয়া নিউগিনিকে ৩৮ বল হাতে রেখে ১০ উইকেটে হারিয়েছে ওমান।

তবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ইতিহাসে ১০ উইকেটের জয় এটাই প্রথম নয়। এটা হচ্ছে তৃতীয় ঘটনা। এর আগে এমন ঘটনা ঘটেছে দু’বার। কাকতালীয়ভাবে দুটো ঘটনারই তারিখ ২০ সেপ্টেম্বর।

১। ২০ সেপ্টেম্বর, ২০০৭, ভেন্যু: কেপটাউন, দক্ষিণ আফ্রিকা

শ্রীলঙ্কা ১০১ রানে অলআউট (১৯.৩ ওভার); অস্ট্রেলিয়া ১০২/০ (১০.২); ফল: অস্ট্রেলিয়া ১০ উইকেটে জয়ী

সেমিফাইনালে যাওয়ার জন্য ম্যাচটি ছিল দু’দলের জন্যই ‘বাঁচা-মরার লড়াই’। টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক অ্যাডাম গিলক্রিস্ট। তার সিদ্ধান্তকে সঠিক প্রমাণ করতে শুরু থেকেই লঙ্কান ব্যাটসম্যানদের চেপে ধরেন অসি বোলাররা।

স্টুয়ার্ট ক্লার্কের দুর্দান্ত বোলিংয়ে (৪-০-২০-৪) তিন বল হাতে রেখেই ১০১ রানে গুটিয়ে যায় লঙ্কানদের ইনিংস। ১০২ রান তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই চড়াও হন গিলক্রিস্ট ও ম্যাথ্যু হেইডেন। ৫৮ বল হাতে রেখে ১০ উইকেটের বিশাল জয়ে সেমিফাইনালে ওঠে অসিরা।

২। ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১২, ভেন্যু: হাম্বানতোতা, শ্রীলঙ্কা

জিম্বাবুয়ে: ৯৩/৮ (২০); দক্ষিণ আফ্রিকা: ৯৪/০ (১২.৪); ফল: দক্ষিণ আফ্রিকা ১০ উইকেটে জয়ী

গ্রুপ ‘সি’র ম্যাচটি ছিল জিম্বাবুয়ের জন্য ‘বাঁচা-মরার লড়াই’। টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন প্রোটিয়া দলপতি এবি ডি ভিলিয়ার্স। অলরাউন্ডার জ্যাক ক্যালিসের দুর্দান্ত বোলিংয়ে (৪-১-১৫-৪) ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ৯৩ রান সংগ্রহ করে জিম্বাবুয়ে।

৯৪ রান তাড়া করতে নেমে দুই ওপেনার রিচার্ড লেভি (৫০*) ও হাশিম আমলা (৩২*) ৪৪ বল হাতে রেখে দক্ষিণ আফ্রিকাকে নিয়ে যান জয়ের বন্দরে। তৃতীয়বার ১০ উইকেটে জিতলো ওমান।

আইএইচএস/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]