আত্মবিশ্বাসে টগবগ করছেন হ্যাজেলউড

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:০৩ পিএম, ১৮ অক্টোবর ২০২১

দলে আছেন মিচেল স্টার্ক, প্যাট কামিন্সের মতো তারকা পেসার। তবুও এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে হয়তো অস্ট্রেলিয়া দলের পেস বোলিং লাইনআপের নেতৃত্ব সামলাতে হতে পারে জশ হ্যাজেলউডকে।

কেননা অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ দলে থাকা একমাত্র পেসার হিসেবে সংযুক্ত আরব আমিরাতে সদ্য সমাপ্ত আইপিএল খেলে প্রস্তুতি সারতে পেরেছেন হ্যাজেলউড। একটা সময় গায়ে শুধু টেস্ট খেলোয়াড়ের তকমা লেগে থাকলেও, সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটেও যে তিনি কার্যকর এবারের আইপিএল দিয়ে তা প্রমাণ করেছেন এই পেসার।

চেন্নাই সুপার কিংসের শিরোপা জয়ের পথে রেখেছেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। ফাইনালে ২ উইকেটসহ ৯ ম্যাচে তিনি ঝুলিতে পোরেন ৯ উইকেট। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে বিশ্বকাপে নামার আগে তাই আত্মবিশ্বাসী টগবগ করে ফুটছেন হ্যাজেলউড।

অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ ক্যাম্পে যোগ দেয়ার পর এই ফাস্ট বোলার বলছিলেন, ‘এখন আমি যেকোনো মুহূর্তেই আগের চেয়ে অনেক বেশি আত্মবিশ্বাসী থাকি। একজন বোলার হিসেবে আপনি কখনই টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে আধিপত্য দেখাতে পারবেন না। কিন্তু, আমি এখন খুব বেশি আত্মবিশ্বাসী ।’

বাংলাদেশের বিপক্ষে গত আগস্টে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলার পর থেকেই মাঠে নেই স্টার্ক এবং কামিন্স। বিশ্রাম শেষে স্টার্ক এরই মধ্যে দলে ফিরে অনুশীলন শুরু করে দিলেও, সদ্যজাত সন্তানের পাশে থাকতে ক্যাম্পে যোগ দিতে দেরি হয়ে যায় কামিন্সের। এখন তাই কোয়ারেন্টিনে সময় কাটাতে হচ্ছে এই পেসারকে।

বিশ্বকাপের শুরুর দিকে স্টার্কের সঙ্গে নিশ্চিতভাবে তাই একাদশে থাকছেন হ্যাজেলউড। দলে বর্তমানে নিজের রোল কি, হ্যাজেলউড জানেন। মাঠে এবার তার প্রতিফলন দেখাতে চান তিনি, ‘প্রত্যেকটা ম্যাচ ভিন্ন। যদিও এটা টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট, তবুও সব সময়ই কিছু না কিছু শেখা যায়। হোক সেটা চেন্নাই কিংবা অস্ট্রেলিয়া, বর্তমানে দলে আমার কাজ কি, সেটা জানি আমি।’

শেষ ১০ টি-টোয়েন্টি ম্যাচের ৮টিতেই হেরেছে অস্ট্রেলিয়া। নেমে গেছে আইসিসি টি-টোয়েন্টির র‍্যাংকিংয়ের সাতে। যদিও শেষ দুই সিরিজে অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ দলে থাকা সিংহভাগ খেলোয়াড়ই খেলেননি। সিনিয়ররা ছিলেন বিশ্রামে। বিশ্বকাপের আগে পাওয়া সেই বিশ্রাম কাজে দিবে বলেই মনে করছেন তিনি, ‘শেষ দুই বছরে আমরা নির্দিষ্ট খেলোয়াড়দের নিয়ে খেলেনি। অনেকেই বিভিন্ন সময়ে বিশ্রামে ছিলেন। তবে বিশ্বকাপে আমরা সবাইকে পাচ্ছি। র‍্যাংকিং হয়তো আমাদের সম্পর্কে এক কথা বলছে, তবে আমাদের স্কোয়াডের দিকে তাকালে আপনি ভিন্ন কথা ভাবতে বাধ্য।’

এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার যাত্রা শুরু হবে আগামী ২৩ অক্টোবর। আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে সুপার টুয়েলভের প্রথম ম্যাচে অজিরা মুখোমুখি হবে দক্ষিণ আফ্রিকার। সেই ম্যাচের আগে আগামী বুধবার ভারতের বিপক্ষে একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে হ্যাজেলউডরা।

এসএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]