সেই ইয়াসির আলীর ব্যাটেই শেষ হাসি চট্টগ্রামের

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:২২ পিএম, ২০ অক্টোবর ২০২১

জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় দিন সেঞ্চুরি করে নজর কেড়েছিলেন তিনি। তার ১২৯ রানের ইনিংসটিও আসলে ম্যাচে চালকের আসনে বসিয়ে দিয়েছিল চট্টগ্রামকে।

শেষ পর্যন্ত সেই প্রথম ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ান ইয়াসির আলী রাব্বিই রাজশাহী বিভাগের বিপক্ষে চট্টগ্রামকে জেতালেন।

জয়ের জন্য মাত্র ৭৭ রান করতে গিয়ে বাঁ-হাতি স্পিনার সানজামুলের স্পিন জাদুতে হারতে বসেছিল চট্টগ্রাম। ৩৫ রানে ইনিংসের অর্ধেকটা খোয়াও যায়। সেখান থেকে একা হাল ধরেন ইয়াসির আলী রাব্বি। ওপেনার সাদেক (১৩), তাসামুল (২), ইরফান শুকুর (৭), মুমিনুল হক (০) ও নাইম হাসান (৫) খুব অল্প সময় ও সংগ্রহে ফিরে যান।

এমন বিপদের মুখে হাল ধরে ইয়াসির আলী। ৫৬ মিনিটে ৩৯ বলে সমান দুটি করে চার ও ছক্কায় ৩৮ রানের হার না মানা ইনিংস খেলে চট্টগ্রামকে পৌঁছে দেন জয়ের বন্দরে।

৭৭ রান করতে গিয়ে চট্টগ্রাম যে ৬ উইকেট হারায় তার ৪টিরই পতন ঘটান রাজশাহীর বাঁ-হাতি স্পিনার সানজামুল ইসলাম।

রাজশাহী প্রথম ইনিংসে: ১৬৬ /১০, ৪১.৩ ওভার (তৌহিদ হৃদয় ৬৮, সাব্বির রহমান ২০, সানজামুল হক ২১, তাইজুল ১৪, মেহেদি রানা ২/৩৯, ইফরান ২/২৪, নাইম হাসান ৪/৪২, হাসান মুরাদ ২/৪২) ও দ্বিতীয় ইনিংসে ২৫৯/১০, ৯৯ ওভার (জহুরুল ৫৩, তৌহিদ হৃদয় ৬৮, ফরহাদ রেজা ৪০, সানজামুল ৩৯, মেহেদি হাসান রানা ৩/৫৩ ও নাইম হাসান ৪/৬১)।

চট্টগ্রাম প্রথম ইনিংসে ৩৪৯/১০, ১০০ ওভারে (মুমিনুল হক ৫০, ইয়াসির আলী রাব্বি ১২৯, ইরফান শুকুর ৬৩, মেহেদী হাসান রানা ৩৬; তাইজুল ৪/১২৯, সানজামুল ৫/৯৯, মোহর শেখ ১/২৬)। ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৭৮/৬, ২৪.১ ওভার (সাদেক ১৩, ইয়াসির আলী রাব্বি ৩৮*, সানজামুল ৪/৪২)।

এআরবি/আইএইচএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]