নিষ্ফলা ম্যাচে শতরান রংপুরের ওপেনার জাহিদের

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:৪০ পিএম, ২০ অক্টোবর ২০২১

প্রথম ইনিংসে খুলনার লিড ছিল মোটে ৩ রানের এবং সেটা ছিল তৃতীয় দিন শেষের ঘটনা। তখনই বোঝা যাচ্ছিল এ ম্যাচ নিষ্ফলা থেকে যাবে। হয়েছেও তাই। খুলনা আর রংপুর বিভাগের ম্যাচ ড্র’ই থেকে গেছে।

তবে আজ চতুর্থ ও শেষ দিন এ নিষ্প্রাণ ম্যাচে প্রাণ ফিরিয়ে এনেছেন রংপুরের তরুণ ওপেনার জাহিদ জাভেদ। আগের তিনদিন দুই দলের দুই স্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজ ও সোহওয়ার্দী শুভ ৬ উইকেট শিকার করে নজর কেড়েছিলেন। শেষদিন সেঞ্চুরি করে পাদপ্রদীপের আলোয় রংপুরের জাহিদ জাভেদ।

প্রথম ইনিংসে ৬ উইকেট দখল করে রংপুরকে ২৫৭-এ থামিয়ে দিয়েছিলেন খুলনার অফস্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজ। অন্যদিকে খুলনার বড়সড় লিড নেয়ার পথে বাধা হয়ে দাঁড়ান রংপুরের বাঁ-হাতি স্পিনার সোহরাওয়ার্দী শুভ।

তিনি ৮৭ রানে ৬ উইকেট দখল করলে খুলনার প্রথম ইনিংস শেষ হয় ২৬০ রানে। প্রথম ইনিংসে ৩ রানে পিছিয়ে পড়া রংপুর তৃতীয় দিন শেষে বিনা উইকেটে শেষে উল্টো ৩৯ রানের লিড পায় রংপুর।

গতকাল তৃতীয় দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে রংপুরের স্কোর ছিল বিনা উইকেটে ৪২। ওপেনার মাইশকুর ২১ আর জাহিদ জাভেদ অপরাজিত ছিলেন ২০ রানে।

আজ বুধবার শেষ দিন পুরো সময় ব্যাট করে রংপুরের দ্বিতীয় ইনিংসে সংগ্রহ ২৬৬/৮। ২০ রানে দিন শুরু করা ওপেনার জাহিদ জাভেদ অনবদ্য শতরান করেন।

প্রায় পৌনে ৫ ঘণ্টা (২৮১ মিনিট) ক্রিজে থেকে ১৮১ বলে ১০ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কায় ১০১ রানের ইনিংস সাজান রংপুরের এ তরুণ ওপেনার। তার সঙ্গী মাইশুকুর আউট হন ৪০-এ। এছাড়া তানবির হায়দারের সংগ্রহ ছিল ৫২ রান।

রংপুর প্রথম ইনিংসে: ২৫৭/১০ (মেহেদি হাসান মিরাজ ৬/৯০) ও দ্বিতীয় ইনিংসে ২৬৮/৮, ৮০ ওভার (জাহিদ জাভেদ ১০১, মাইশুকুর ৪০, তানবির হায়দার ৫২, মিরাজ ৩/৮৩, নাহিদুল ৩/৫৬ ও আবুল হালিম ২/৩৫)।

খুলনা প্রথম ইনিংস: ২৬০/১০, ৮৯.৩ ওভার (এনামুল বিজয় ৮৪, সোহরাওয়ার্দী শুভ ৬/৮৭)। ম্যাচ ড্র।

এআরবি/আইএইচএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]