নাইম-মুশফিকের ফিফটিতে ১৭১ রানের পুঁজি টাইগারদের

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৫০ পিএম, ২৪ অক্টোবর ২০২১

শারজায় সুপার টুয়েলভে নিজেদের প্রথম ম্যাচে দারুণ ব্যাটিং করেছে বাংলাদেশ। নাইম শেখ আর মুশফিকুর রহীমের জোড়া ফিফটিতে ভর করে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৪ উইকেটে ১৭১ রানের চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছে টাইগাররা।

নাইম ৫২ বলে ৬ বাউন্ডারিতে ৬২ করে আউট হলেও মুশফিক ৩৭ বলে ৫৭ রানে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন। অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যানের হার না মানা ইনিংসটি সাজানো ৫ বাউন্ডারি আর ২ ছক্কায়।

দুই ওপেনার লিটন দাস ও নাইম শেখের দারুণ ব্যাটিংয়ে সুপার টুয়েলভের প্রথম ম্যাচে উড়ন্ত সূচনা করে বাংলাদেশ। প্রথম ৫ ওভারে বাংলাদেশ স্কোরবোর্ডে সংগ্রহ দাঁড়ায় ৩৮ রান। সবাই ধরে নিয়েছিল, পাওয়ার প্লেটা ভালোভাবেই শেষ করতে পারবেন বাংলাদেশ।

কিন্তু না, সেটা আর হয়নি। হার্ড হিটিং করতে গিয়েই বিপদ ডেকে আনেন লিটন। বলকেই কেন যেন মাথার ওপর দিয়ে পার করতে পারেন না। লাহিরু কুমারার বলটিকে লিটন চেষ্টা করেছিলেন ৩০ গজের ওপর দিয়ে বাউন্ডারি পার করাতে। কিন্তু বলটি মিড অফে দাসুন সানাকার হাতের মুঠোয় চলে যায়। ৪০ রানের মাথায় পড়ে প্রথম উইকেট।

এরপর মাঠে নেমেই দুটি বাউন্ডারি মারলেন, সাকিব আল হাসান যেন শ্রীলঙ্কান বোলারদের বলে দিলেন, ‘সাবধান! আমি কিন্তু আজ ঝড় তুলতেই মাঠে নেমেছি।’ কিন্তু সাকিবের সতর্কবার্তা মোটেও গায়ে মাখলেন না লঙ্কান বোলাররা। উল্টো ঝড়ের আভাস দেয়া সাকিবের স্ট্যাম্প সমূলে উৎপাটন করে দেন লঙ্কান পেসার চামিকা করুনারত্নে।

লিটন আউট হওয়ার পর মাঠে নেমে সাকিব মাত্র ৭ বল উইকেটে টিকলেন। দুই বাউন্ডারিতে রান করলেন ১০টি। এরপরই করুনারত্নের বলে বোল্ড হয়ে গেলেন। বল ছিল লেগ স্ট্যাম্পের ওপর। সাকিব চেয়েছিলেন ফ্লিক করতে। কিন্তু ডেলিভারিটি ছিল খুবই নিখুঁত। ব্যাট ফাঁকি দিয়ে গিয়ে আঘাত হানে স্ট্যাম্পে।

সাকিব-লিটন ফিরে গেলে তৃতীয় উইকেটে নাইম-মুশফিক মিলে যোগ করেন ৭৩ রান। চলতি বিশ্বকাপে দ্বিতীয় ও সবমিলিয়ে চতুর্থ ফিফটি তুলে নেন নাইম। হাফসেঞ্চুরি করার পর যখন তার ব্যাট আরও ধারালো, আরও শানিত হওয়ার কথা ছিল, তখন খুব বেশিদূর যেতে পারেননি তিনি। 

নাইম সাজঘরে ফিরে যান ৬২ রানের মাথায়। লঙ্কান বোলার বিনুরা ফার্নান্দোর বলকে পুল খেলতে গিয়েছিলেন। কিন্তু বল উপরের কানায় লেগে উঠে যায়। সেই বল নিজেই ধরে নিলেন বিনুরা। ৫২ বলে ছয় চারের মারে খেলা ৬২ রানের ইনিংসের যবনিকাপাত ঘটে।

এরপর ইনিংসের বাকি অংশের হাল ধরেন মুশফিক। দীর্ঘ ২৩ মাস পর আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ফিফটি তুলে নেন এ ডানহাতি ব্যাটার। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এটিই তার প্রথম সেঞ্চুরি। মাত্র ৩২ বলে পঞ্চাশ পূরণের পর তিনি শেষপর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ৩৭ বলে ৫ চার ও ২ ছয়ের মারে ৫৭ রান করে। 

অন্যদিকে আফিফ হোসেন ৬ বলে ৭ ও অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ করেন ৫ বলে ১০ রান। শ্রীলঙ্কার বোলারদের মধ্যে একটি করে উইকেট নেন চামিকা করুনারত্নে, বিনুরা ফার্নান্দো ও লাহিরু কুমারা।

এমএমআর/এসএএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]