বল হাতে আশরাফুলের জাদু, করলেন হ্যাটট্রিক

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:৫০ পিএম, ২৪ অক্টোবর ২০২১

হাজার মাইল দূরে আরব আমিরাতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভে প্রথম ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। আর দেশের মাটিতে জাতীয় ক্রিকেট লিগে প্রথম শ্রেণির লড়াইয়ে মাঠে নেমেছেন জাতীয় ক্রিকেটাররা। যেখানে বল হাতে সবাইকে চমকে দিয়েছেন মোহাম্মদ আশরাফুল।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে স্বাগতিক চট্টগ্রাম বিভাগের বিপক্ষে দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে মাঠে নেমেছে আশরাফুলের বরিশাল বিভাগ। ম্যাচের প্রথম দিনই দুই দল হারিয়ে ফেলেছে ১০টি করে উইকেট। যেখানে হ্যাটট্রিকসহ ৫ উইকেট শিকার করেছেন একসময়ের সুপারস্টার আশরাফুল।

ম্যাচের প্রথম ইনিংসে আশরাফুলের বরিশাল অলআউট হয়েছে ১৪৬ রানে। ইনিংসের সূচনা করতে নেমে আশরাফুলের ব্যাট থেকে আসে মাত্র ৪ রান। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬০ রান করেন রাফসান আল মাহমুদ, মইন খানের ব্যাট থেকে আসে ৪৫ রান।

চট্টগ্রামের পক্ষে বল হাতে তরুণ বাঁহাতি স্পিনার হাসান মুরাদ নেন ৫ উইকেট, ডানহাতি অফস্পিনার নাইম হাসানের শিকার ৪ উইকেট। এছাড়া বাঁহাতি পেসার মেহেদি হাসান রানা নিয়েছেন অন্য উইকেটটি।

বরিশালকে মাত্র ১৪৬ রানে গুটিয়ে দিয়ে ব্যাট করতে নেমে স্বস্তি পায়নি চট্টগ্রাম বিভাগ। নতুন বলেই আশরাফুলকে বোলিং করা বরিশালের অধিনায়ক ফজলে মাহমুদ রাব্বির। অধিনায়কের আস্থার প্রতিদান দিতে একদমই সময় নেননি আশরাফুল।

ইনিংসের অষ্টম ওভারে উদ্বোধনী জুটি ভাঙার পাশাপাশি পরপর তিন বলে তিনটি উইকেট নেন আশরাফুল। ওভারের চতুর্থ বলে সাদিকুর রহমান, পঞ্চম বলে মাহমুদুল হাসান জয় ও শেষ বলে ইয়াসির আলি রাব্বিকে ফিরিয়ে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন আশরাফুল।

শুধু হ্যাটট্রিক করেই থেমে থাকেননি তিনি। এরপর আরেক ওপেনার পারভেজ হোসেন ইমন ও মেহেদি হাসান রানাকে সাজঘরে পাঠিয়ে প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারের সপ্তম ফাইফার পূরণ করেন আশরাফুল। তার পাশাপাশি পাঁচ উইকেট নেন বাঁহাতি স্পিনার মনির হোসেনও।

এ দুই স্পিনারের তোপে মাত্র ৮৭ রানে অলআউট হয়ে গেছে চট্টগ্রাম। তাদের পক্ষে ব্যাট হাতে সর্বোচ্চ ২০ রান করেছেন অধিনায়ক ও উইকেটরক্ষক ব্যাটার ইরফান শুক্কুর। এছাড়া পারভেজ ইমন ১৭, শাহাদাত হোসেন দীপু ১৪ ও সাদিকুর করেছেন ১১ রান।

এসএএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]