আরিফুল, নাসির ও নাইমের ব্যাটে রান

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:২২ পিএম, ২৬ অক্টোবর ২০২১

ঢাকার হয়ে জোড়া শতক উপহার দিয়েছিলেন দুই টপ অর্ডার আব্দুল মজিদ আর সাইফ হাসান। তাদের সেঞ্চুরির ওপর ভর করেই রংপুরের বিপক্ষে ৩৯৪ রানের মোটামুটি সমৃদ্ধ পুঁজি গড়েছিল ঢাকা বিভাগ।

ঢাকার ওই ফ্রন্টলাইনারের মত শতরান করতে না পারলেও রংপুরের হয়ে তিন তিনজন হাফ সেঞ্চুরি করেছেন। তারা হলেন নাঈম ইসলাম, নাসির হোসেন ও আরিফুল হক। এর মধ্যে নাঈম ইসলাম ১৪০ বলে ৫৫, নাসির হোসেন ১৬৪ বলে ৬৬ (দুই ছক্কা ও ৬ বাউন্ডারি) রানে ফিরলেও আরিফুল পৌঁছে গিয়েছিলেন শতরানের খুব কাছাকাছি।

কিন্তু মাত্র ২ রানের জন্য পারেননি। ঢাকার বাঁ-হাতি স্পিনার নাজমুল অপু আরিফুলকে ৯৮ রানে আউট করে দেন। ১১৮ বলে প্রায় ওয়ানডে মেজাজে সাজানো ওই ইনিংসে আরিফুল ৪টি ছক্কা ও ৫টি বাউন্ডারি হাঁকান।

এই নাঈম, নাসির ও আরিফুলের দৃঢ়তায় রংপুরও পাল্টা ভাল জবাব দিয়েছে।

আকবর আলীর রংপুরের প্রথম ইনিংসে সংগ্রহ দাঁড়ায় ৩২১। তাতে করে ঢাকা বিভাগ প্রথম ইনিংসে এগিয়ে থাকে ৭৩ রানে। তবে রংপুর হয়ত লিডই নিতে পারতো। পারেনি ঢাকার দুই স্পিনার শুভাগত হোম (৪/৭৪) আর নাজমুল অপুর (৪/১৩২) স্পিন ঘূর্ণির মুখে। তারা দুজন সমান চারটি করে উইকেট পেয়েছেন।

এদিকে আজ মঙ্গলবার তৃতীয় দিন শেষ সেশনে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে ঢাকার সংগ্রহ বিনা উইকেটে ৩৮। আব্দুল মজিদ ১৭ আর রনি তালুকদার ২১ রানে অপরাজিত। এখন সব মিলিয়ে ঢাকার লিড দাঁড়ালো ১১১ রান।

বুধবার শেষ দিন প্রথম সেশনে চালিয়ে খেলে ঢাকা কী রংপুরকে দু’শো-আড়াইশো রানের টার্গেট ছুঁড়ে দিতে পারে কি না, সেটাই দেখার। যদি ঢাকা অন্তত ২০০ রানের টার্গেটও দিতে পারে, তবেই খেলা জমবে। না হয় নিষ্প্রাণ ড্র’র সম্ভাবনাই বেশি।

এআরবি/আইএইচএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]