বিশ্বকাপের আগে যুব দল গোছানোর আশা সুজনের

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:৪২ পিএম, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১

আফগান আর লঙ্কান যুবাদের সঙ্গে পারেনি বাংলাদেশের যুবারা। তবে কোলকাতায় ভারতীয় ‘বি’ দলকে হারিয়ে তিন দলের এক টুর্নামেন্ট জিতেছে বাংলাদেশের যুবারা (অনূর্ধ্ব-১৯)। এ সাফল্য নিয়ে আছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। এক পক্ষের কথা, সাফল্য যার বিপক্ষেই আসুক, সাফল্য তো। যাকে হারিয়েই জিতুক যুব দলতো ট্রফি জিতেছে।

আর অন্য পক্ষের কথা, এটা নিয়ে বাড়াবাড়ির কিছু নেই। ভারতের মূল যুব দল এটা না। ভারতীয় ‘এ’ যুব দলও না। ‘বি’ দল। মানে কাগজে কলমে এটা ভারতের যুবাদের তিন নম্বর দল। তাদের হারিয়ে শিরোপা জয়ে এত উচ্ছ্বাসের কী আছে?

এদিকে যুব দল যে স্ট্যান্ডিং কমিটির অধীনে, সেই বিসিবির গেম ডেভোলপমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ সুজন অবশ্য এ সাফল্যকে একদম ছোট করে দেখতে নারাজ। তার ব্যাখ্যা, এটা অবশ্যই ভাল সাফল্য।

সামনে এশিয়া কাপ ও বিশ্বকাপ আছে কিন্তু আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর জন্য এটা দরকার ছিল। আমরা তো এ বছর অনুশীলন বা ম্যাচ অনুশীলন কম করেছি এ দলটা তারপরও ভারতের কন্ডিশনে দুটা দলের সঙ্গে অনুর্ধ্ব-১৯,‘এ’ ও ‘বি’র বিপক্ষে জিতেছে। সেটা অবশ্যই আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর রসদ। এরপরে এশিয়া কাপ আছে তারপরই তো বিশ্বকাপ। আমি বিশ্বাস করি চ্যাম্পিয়ন হতে তো ভাগ্যও লাগে কিন্তু ছেলেরা তৈরি হচ্ছে।’

কিন্তু এই দলটিই আফগানিস্তান আর শ্রীলঙ্কান যুবাদের সঙ্গে পারেনি। সেটাকে কিভাবে দেখছেন? সুজনের জবাব, ‘আসলে এই দলটা তরুণ। অনেক কিছুই বুঝে ওঠেনি। আমাদের ট্রেনারও আসছিল না অনেকদিন ধরে। কোচের অন-অফ ছিল। এখন তো দলটা গুছিয়ে ফেলেছে। বিশ্বকাপ আসতে আসতে আরো গুছিয়ে ফেলবো। উইন্ডিজে সেন্ট কিটসে খেলা হবে সেখানের কন্ডিশন আমাদের স্পিনারদের জন্য ভালো হবে, যদিও এই দলে দারুণ পেসার ম্যাচ উইনার আছে। তো বিশ্বকাপের আগে আমরা গুছিয়ে ফেলবো আশাকরি।’

এআরবি/আইএইচএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]