সেঞ্চুরিয়নকে ‘মিনি ঢাকা’ মনে হয়েছে তামিমদের

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:৩৮ পিএম, ২৩ মার্চ ২০২২

চাঁদে ম্যাচ আয়োজন করুন, সেখানেও দেখবেন বাংলাদেশের সমর্থকরা উপস্থিত হয়ে গেছে- ২০১৫ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের দর্শকদের ব্যাপারে এমনটাই বলেছিলেন জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার ও বিশ্লেষক হার্শা ভোগলে।

এই কথার প্রমাণ যেন প্রতিনিয়তই পাচ্ছে ক্রিকেট বিশ্ব। খেলা হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে, স্বাভাবিকভাবেই মাঠে আধিক্য থাকার কথা স্বাগতিক দর্শকদের। কিন্তু পুরো ম্যাচজুড়ে, শুধু ম্যাচ নয় পুরো সিরিজের তিন ম্যাচেই দেখা গেছে বাংলাদেশের পতাকা উড়িয়ে বেড়াচ্ছেন প্রবাসী দর্শকরা।

যা ছুঁয়ে গেছে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটারদের হৃদয়কেও। দলের পক্ষে অধিনায়ক তামিম ইকবাল জানিয়েছেন, তাদের মনে হয়েছে ম্যাচটি যেনো খেলা হচ্ছে দেশে রাজধানী ঢাকার মিরপুর স্টেডিয়ামেই। হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোর বরাত দিয়ে দর্শকদের দ্বাদশ ব্যক্তি হিসেবে উল্লেখ করেন টাইগার অধিনায়ক।

Supporter

বুধবার সিরিজের শেষ ম্যাচের পর পুরস্কার বিতরণীতে তামিম বলেছেন, ‘সত্যি বলতে আমার মনে হয়েছে এটি মিনি ঢাকা। তারা অসাধারণ ছিল। রাসেল, আমাদের হেড কোচ যেমনটা বলে, তারাই আমাদের দলের দ্বাদশ ব্যক্তি। আমরা যেখানেই খেলি, জিতি অথবা হারি... তারা সবসময় থাকে আমাদের পাশে।’

সাফল্যময় ওয়ানডে সিরিজ শেষে এবার দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলবে টাইগাররা। সেই সিরিজ শুরুর আগে যেন স্বস্তির নিশ্বাস ফেলার সুযোগ পেয়েছেন তামিম। তবে টেস্টে অধিনায়ক না হলেও দল হিসেবে ভালো খেলার প্রত্যয় জানিয়ে গেছেন তামিম।

supporter

তার ভাষ্য, ‘আমাকে একটু বিশ্রাম দাও, আমি অনেক চাপে ছিলাম (হাসি)। আমি টেস্ট অধিনায়ক নই। তবে নিশ্চিত আমরা টেস্টেও ভালো করতে চাই। আমরা নিউজিল্যান্ডকে তাদের মাটিতে হারিয়েছি। তাই অবশ্যই এখানেও আমরা ভালো খেলতে চাই। এখন আমি একটু স্বস্তির নিশ্বাস নিতে পারবো। এই ম্যাচগুলো খুবই চাপের ছিল আমার জন্য।’

এসএএস/আইএইচএস/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]