জয়-শরিফুলদের কোচই এখন শ্রীলঙ্কার বড় শক্তি

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৩৩ পিএম, ২২ মে ২০২২

বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বিশ্বজয়ী কোচ শ্রীলঙ্কার নাভিদ নাওয়াজ। তার অধীনেই ২০২০ সালের যুব বিশ্বকাপে শিরোপা উঁচিয়ে ধরেছিলেন আকবর আলি, মাহমুদুল হাসান জয়, শরিফুল ইসলামরা। চলতি বছর হওয়া ২০২২ সালের বিশ্বকাপেও আইচ মোল্লা, রিপন মন্ডলদের কোচ ছিলেন নাভিদ।

তবে টাইগার যুবাদের দায়িত্ব ছাড়ার পর নিজ দেশের সহকারী কোচ হিসেবে কাজ শুরু করেছেন এ লঙ্কান। ইংলিশ হেড কোচ ক্রিস সিলভারউডের অধীনে লঙ্কানদের রণপরিকল্পনায় বড় ভূমিকা থাকে নাভিদের। রোববার থেকে শুরু হতে যাওয়া চলতি সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টেও নাভিদের দিকেই তাকিয়ে লঙ্কানরা।

চট্টগ্রামে সিরিজের প্রথম টেস্টের উইকেট ছিল রানপ্রসবা। তাই প্রথম দিন থেকেই ড্র হওয়ার কথা আঁচ করতে পারছিল সফরকারীরা। তবে মিরপুরের কন্ডিশন পুরোপুরি ভিন্ন। এখানে ফলহীন টেস্ট দেখা যায় না বললেই চলে। প্রায় সময় চারদিনেই শেষ হয়ে যায় মিরপুরের টেস্ট।

এ কারণে মিরপুরে ঠিক কী পরিকল্পনায় এগোতে হবে, সেটি ঠিক করার জন্য নাভিদের বাংলাদেশে কাটানো সময়ের অভিজ্ঞতা কাজে লাগাবে শ্রীলঙ্কা। ম্যাচের আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে এ কথা সোজাসাপ্টা জানিয়ে দিয়েছেন লঙ্কান হেড কোচ সিলভারউড। পাশাপাশি মিরপুরের পরিসংখ্যানের দিকেও নজর থাকবে লঙ্কানদের।

সিলভারউড বলেছেন, ‘আমি এখনও উইকেট দেখিনি। তবে আমার সঙ্গে কোচিং স্টাফে এমন একজন (নাভিদ নাওয়াজ) আছে, যাকে আপনারা সবাই চেনেন, যে এসব কন্ডিশন সম্পর্কে জানে। আমি আমার সহকারী কোচের সঙ্গে কথা বলবো, যাতে আমরা বুঝতে পারি এই উইকেট কেমন ব্যবহার করবে।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘আমরা তার বাংলাদেশে কাটানো সময়ের অভিজ্ঞতা ও জ্ঞানটা ব্যবহার করবো। পাশাপাশি এই মাঠের পরিসংখ্যানও দেখবো, যাতে করে অধিনায়কের হাতে কন্ডিশন কাজে লাগানোর মতো সেরা বোলিং অপশন তুলে দেওয়া যায়।’

এসএএস/এমএমআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]