দলকে স্বস্তিতে রেখে চা পানে লিটন-মুশফিক

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:০৯ পিএম, ২৩ মে ২০২২

ভয়াবহ বিপর্যয়ে দিন শুরুর পর দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছেন মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস। এ দুজনের ব্যাক টু ব্যাক শতরানের জুটিতে বাংলাদেশ দলও পেয়েছে স্বস্তির সুবাতাস। দলকে বিপদ থেকে উদ্ধার করে দুজনই হাঁকিয়েছেন ব্যক্তিগত ফিফটি। তাদের ব্যাটে লড়ছে বাংলাদেশ।

মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিন চা পানের বিরতি পর্যন্ত ৫৩ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ১৫৩ রান। ষষ্ঠ উইকেট জুটির সংগ্রহ দাঁড়িয়েছে ১২৯ রান। এ নিয়ে চতুর্থবারের মতো টেস্টে শতরানের জুটি গড়লেন মুশফিক ও লিটন। চট্টগ্রামে সিরিজের প্রথম ম্যাচেও এ দুজনের ছিলো ১৬৫ রানের জুটি।

দুই লঙ্কান পেসার কাসুন রাজিথা ও আসিথা ফার্নান্দোর তোপে ইনিংসের সপ্তম ওভারের মধ্যে সাজঘরে ফিরে গিয়েছিলেন বাংলাদেশের প্রথম পাঁচ ব্যাটার। ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই সাজঘরের পথ ধরেন মাহমুদুল হাসান জয়। মাত্র পাঁচ টেস্টের ক্যারিয়ারে জয়ের এটি চতুর্থ ডাক।

তার দেখানো পথে হাঁটতে সময় নেননি তামিম ইকবাল (০), নাজমুল হোসেন শান্ত (৮), মুমিনুল হক (৯) ও সাকিব আল হাসানরা (০)। মাত্র ২৪ রানে কিংবা সপ্তম ওভারের মধ্যে পাঁচ উইকেট পতনের নজির আগেও ছিল বাংলাদেশের। তাই এ অভিজ্ঞতা মোটেও নতুন নয় টাইগারদের জন্য

সেখান থেকেই ইনিংস মেরামতের দায়িত্ব নেন মুশফিক ও লিটন। দুজন মিলে প্রথম সেশনে আর বিপদ ঘটতে দেননি। দ্বিতীয় সেশনেও দেখেশুনে খেলে উইকেটবিহীনভাবেই কাটিয়েছে পুরোটা সেশন। লঙ্কান বোলার-ফিল্ডারদের হতাশায় ডুবিয়ে চট্টগ্রামের মতো ঢাকায়ও পঞ্চাশোর্ধ্ব রানের ইনিংস বের হলো তাদের ব্যাট থেকে।

মুশফিক তুলে নিয়েছেন ক্যারিয়ারের ২৬তম ফিফটি। লিটনের এটি ১৩তম টেস্ট ফিফটি। তবে ব্যক্তিগত ৪৭ রানের মাথায় জীবন পেয়েছিলেন লিটন। এর বাইরে এ দুজনের জুটিতে রীতিমতো অসহায়ই ছিলেন লঙ্কান বোলার-ফিল্ডাররা। চা পানের বিরতি পর্যন্ত মুশফিক ৬২ ও লিটন ৭২ রানে অপরাজিত রয়েছেন।

এসএএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]