চট্টগ্রামের আক্ষেপ ঢাকায় মিটিয়ে লিটনের সেঞ্চুরি

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:০৩ পিএম, ২৩ মে ২০২২

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সিরিজের প্রথম ম্যাচের একমাত্র ইনিংসেই সেঞ্চুরির সুযোগ পেয়েছিলেন লিটন দাস। কিন্তু অফস্ট্যাম্পের অনেক বাইরের বল তাড়া করতে গিয়ে আউট হয়ে যান ৮৮ রান করে। সেঞ্চুরি মিসের সেই আক্ষেপ মেটাতে একদমই সময় নিলেন না এ উইকেটরক্ষক ব্যাটার।

ঢাকায় সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসেই জাদুকরী তিন অঙ্কের দেখা পেলেন লিটন। মাত্র ২৪ রানে ৫ উইকেট পতনের পর উইকেটে এসে দলকে চাপমুক্ত করে ব্যক্তিগত এ মাইলফলকে পৌঁছে গেছেন তিনি। ক্যারিয়ারের তৃতীয় সেঞ্চুরি পূরণ করতে ১৪৯ বল খেলেছেন লিটন, যেখানে ছিল ১৩টি চারের মার।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৬৪.২ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ২১৩ রান। অবিচ্ছিন্ন ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে এরই মধ্যে ১৮৯ রান যোগ করে ফেলেছেন মুশফিকুর রহিম ও লিটন। ক্যারিয়ারের নবম সেঞ্চুরির আশা জাগিয়ে মুশফিক খেলছেন ৮৭ রান নিয়ে, লিটন অপরাজিত ১০৬ রানে।

মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দুই লঙ্কান পেসার কাসুন রাজিথা ও আসিথা ফার্নান্দোর তোপে ইনিংসের সপ্তম ওভারের মধ্যে সাজঘরে ফিরে গিয়েছিলেন বাংলাদেশের প্রথম পাঁচ ব্যাটার। ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই সাজঘরের পথ ধরেন মাহমুদুল হাসান জয়। মাত্র পাঁচ টেস্টের ক্যারিয়ারে জয়ের এটি চতুর্থ ডাক।

তার দেখানো পথে হাঁটতে সময় নেননি তামিম ইকবাল (০), নাজমুল হোসেন শান্ত (৮), মুমিনুল হক (৯) ও সাকিব আল হাসানরা (০)। মাত্র ২৪ রানে কিংবা সপ্তম ওভারের মধ্যে পাঁচ উইকেট পতনের নজির আগেও ছিল বাংলাদেশের। তাই এ অভিজ্ঞতা মোটেও নতুন নয় টাইগারদের জন্য

তবে সেখান থেকে আর সাফল্যের দেখা পায়নি লঙ্কানরা। প্রথম সেশনের বাকি সময়টা দেখেশুনে কাটিয়ে দেন লিটন-মুশফিক। যার ব্যতিক্রম ঘটেনি দ্বিতীয় সেশনেও। যেখানে ৩০ ওভার খেলে ৮৭ রান যোগ করে এ জুটি। দুজনই তুলে নেন নিজেদের ফিফটি।

অবশ্য দ্বিতীয় সেশনে ফিফটিতে পৌঁছানোর আগেই ফিরতে পারতেন লিটন। আসিথা ফার্নান্দোর বলে পুল করতে গিয়ে আকাশে ভাসিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। শর্ট ফাইন লেগ থেকে পেছনে দৌড়ে বলের কাছাকাছি পৌঁছলেও হাতে রাখতে পারেননি কামিন্দু মেন্ডিস। ফলে ৪৭ রানে জীবন পেয়ে যান লিটন।

এই একবারই কেবল লিটনকে আউটের সম্ভাবনা জাগায় লঙ্কানরা। এর আগে-পরে লিটন কোনো সুযোগই দেননি। তাকে আউট করতে অনসাইডে একঝাঁক ফিল্ডার নিয়ে দুই পেসার মিলে শর্ট বলের পসরা সাজিয়েছিল। সব ফিল্ডারদের ফাঁকি দিয়েই একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়েছেন লিটন। পুল শটেই প্রায় অর্ধেক রান করেছেন তিনি।

টেস্ট ক্যারিয়ারে লিটনের এটি তৃতীয় সেঞ্চুরি। চলতি বছরেই করলেন দুইটি। গত জানুয়ারিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ক্রাইস্টচার্চে খেলেছিলেন ১০২ রানের ইনিংস। এর আগে গত বছর পাকিস্তানের বিপক্ষে চট্টগ্রামে নিজের প্রথম সেঞ্চুরি করেছিলেন লিটন।

এসএএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]