আমি চাই ‘চাচা’ যেন সবসময় কাছাকাছি থাকেন: ডোনাল্ড

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৩০ পিএম, ২৫ মে ২০২২

খালেদ মাহমুদ সুজনকে বাংলাদেশ ক্রিকেটের এক অবিচ্ছেদ্য অংশই বলা চলে। নব্বইয়ের দশকে খেলোয়াড় হিসেবে, খেলা ছাড়ার পর কোচ কিংবা সংগঠক হিসেবে জাতীয় দলের এ সাবেক অধিনায়ক প্রায় তিন দশক ধরে বাংলাদেশ ক্রিকেটের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত।

খেলোয়াড়ি জীবনেই সতীর্থ খেলোয়াড়রা তাকে ডাকতেন চাচা হিসেবে। সবার ভালো-মন্দের খোঁজ রাখায় তৎপর থাকতেন বলেই মূলত অভিভাবক হিসেবে এই চাচা নামটি পান সুজন। যা এখন ছড়িয়ে পড়েছে বর্তমান প্রজন্মের ক্রিকেটার থেকে শুরু করে বিদেশি কোচদের মধ্যেও।

তাই তো আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে পর্যন্ত সুজনকে চাচা হিসেবে সম্বোধন করেন বিদেশি কোচরা। বর্তমান হেড রাসেল ডোমিঙ্গো প্রায়ই তাকে চাচা ডেকে কথা বলেন। এবার তার সঙ্গে যোগ দিলেন পেস বোলিং কোচ অ্যালান ডোনাল্ডও। আজ (বুধবার) সংবাদ সম্মেলনে সুজনকে চাচা হিসেবে সম্বোধন করেছেন ডোনাল্ড।

মিরপুর টেস্টের তৃতীয় দিনের খেলা শেষে ডোনাল্ডের কাছে প্রশ্ন রাখা হয়, বাংলাদেশ দলের পেসারদের শেখানোর ক্ষেত্রে তাকে ভাষাজনিত কোনো সমস্যায় পড়তে হয় কি না? এর উত্তরে তিনি জানান, সবসময় চাচা সুজনকে কাছাকাছিই রাখেন। যাতে করে তার বার্তাটা ভালোভাবে বুঝতে পারেন পেসাররা।

ডোনাল্ডের ভাষ্য, ‘আমি সবসময় এটি নিশ্চিত করি, সবসময় চাচা যেনো আমার আশপাশে, কাছাকাছি থাকে। আমার বার্তাটা যেনো তারা (পেসাররা) ঠিকঠাক পায় এটি আগে নিশ্চিত করি। আমরা বাইরে তেমন কথা বলি না। তবে প্রতিটি বিরতিতে ড্রেসিংরুমে কথা বলি।’

sujon

গত দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে এ কাজটি করেছেন দলের মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমাম। এ কথা জানিয়ে ডোনাল্ড বলেছেন, ‘এটি নিশ্চিত করি যেনো আশপাশে কেউ থাকে যারা আমার কথা বুঝবে, যাতে বার্তাটা পেসারদের বোঝাতে পারে। দক্ষিণ আফ্রিকায় রাবিদ এ বিষয়ে সাহায্য করেছে। সে এটি নিশ্চিত করেছে ভাষাগত সমস্যার কারণে যেনো কিছু মিস না হয়।’

তবে এখন খালেদ আহমেদ, এবাদত হোসেনরা ইংরেজি কথাও ঠিকঠাক ধরতে পারছেন বলে জানালেন টাইগারদের পেস বোলিং কোচ, ‘এখন তারা বুঝতে শুরু করেছে। ইংরেজি কথার মূলভাবটা ধরতে পারছে খালেদ-এবাদতরা। তাই আমি মনে করি বার্তাটা যথাযথ হওয়া উচিত। তাই কৌশলগত পরিকল্পনার সময় আমরা আলোচনা সহজ রাখতে চেষ্টা করি। যাতে কিছু জটিল না হয়।’

এসময় ডোনাল্ডের কাছে জানতে চাওয়া হয়, সুজনকে চাচা হিসেবে ডাকলেন কেন তিনি? এর উত্তর দিয়ে এ দক্ষিণ আফ্রিকান কোচ সুজনকে প্রথম দেখার স্মৃতিচারণও করেছেন।

ডোনাল্ড বলেছেন, ‘আমাকে বলা হয়েছে, তাকে যেনো চাচা ডাকি। বাংলাদেশ যখন প্রথমবার দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে গিয়েছিল, তখন আমি এই ছোটখাটো গড়নের মিডিয়াম পেসারকে দেখেছি। তখন সে বেশ বর্ণিল চরিত্রের ছিল। তাকে আমার খুব ভালো লেগেছিল।’

দলের সব খেলোয়াড় সুজনকে শ্রদ্ধা করে জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘তার মধ্যে পিতৃত্বসুলভ গুণাবলি রয়েছে। দলের সব খেলোয়াড় তাকে শ্রদ্ধা করে। যেকোনো পরিকল্পনা সম্পর্কে আলোচনা করার জন্য দারুণ ব্যক্তি সে। আপনার যদি কোনো কিছুর প্রয়োজন হয়, চাচা সেটি সহজেই করে দেন।’

এসএএস/আইএইচএস/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]