ইনজুরিতেই ‘মজা’ খুঁজে নিচ্ছেন তাসকিন

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:০৬ পিএম, ০১ জুন ২০২২

ফাস্ট বোলারদের চোটে পড়তেই হয়। তাসকিন আহমেদ যেন এটাকে নিয়তির লিখনই ধরে নিয়েছেন। চোট কাটিয়ে সম্প্রতি আবার জাতীয় দলের অনুশীলনে ফিরেছেন।

বুধবার মিরপুরে সংবাদ সম্মেলনে স্বস্তি ঝরে পড়লো তার কণ্ঠে। ডানহাতি এই গতিতারকা বলেন, ‘অনেকদিন পরে বোলিং শুরু করতে পেরেছি এতেই অনেক খুশি। মাশাআল্লাহ, আজকে অনেকদিন পর ৮ ওভার বোলিং করলাম। রিহ্যাব করাটা একা একা অনেক বোরিং এবং একজন প্লেয়ারের জন্য বাইরে বসে খেলা দেখা কঠিন। আল্লাহর রহমতে আজকে বোলিং করতে পেরে ভালোই লাগছে।’

তাসকিন আশা করছেন, খুব শিগগিরই সেরা ছন্দে ফিরতে পারবেন। চোট নিয়ে তার কথা, ‘বিসিবি যখন আমাকে ইংল্যান্ডে পাঠিয়েছিল, তখন দেবাশীষ স্যার (বিসিবির চিকিৎসক) গিয়েছিলেন। সবার পরামর্শেই আমরা রিহ্যাব শুরু করেছি এবং এটার ইম্প্রুভ হচ্ছে, এটাই কিন্তু গুড সাই। যদি রিহ্যাব করতে থাকি আরও ইম্প্রুভ হবে।’

খেলতে গেলে চোট যেহেতু হবেই। সেটা নিয়ে দুশ্চিন্তা না করে উপভোগ করতে চান তাসকিন। তিনি বলেন, ‘ইনজুরি তো পার্ট অফ লাইফ। দুনিয়াতে সব ফাস্ট বোলারদের কম বেশি ইনজুরি হয়ে থাকে। এটা হবেই। আবার কামব্যাক করতে হবে। এটাই চ্যালেঞ্জ আর এটাই মজা।’

ইনজুরির বাধা জয় করার জন্য অগ্রজ মাশরাফি বিন মর্তুজাকে প্রেরণা ধরে এগোতে চান তাসকিন। তার ভাষায়, ‘ইনজুরি বাধা মাঝে মাঝে আসবে আর সেটাকে ওভারকাম করতে হবে। আমাদের সবচেয়ে বড় উদাহরণ তো মাশরাফি ভাই, সেও অনেক ইনজুরির সঙ্গে ফাইট করে খেলেছে। এসব দেখার পর আমরা তরুণ ফাস্ট বোলাররা আরও প্রেরণা পাই যে ইনজুরি হবেই, আবার কামব্যাকও করতে হবে।’

যেহেতু চোটপ্রবণতা আছে, তিন ফরম্যাটে খেলার বিষয়টি নিয়ে নতুন করে ভাবছেন কি? তাসকিনের জবাব, ‘না, আসলে এরকম কোনো চিন্তা ভাবনা করিনি। আমি এখনও তরুণ। আমি যখন আরও সিনিয়র হবো, যখন অনেক লোড পড়বে, তখন বোর্ড সিদ্ধান্ত নেবে কোনটা খেলতে হবে কোনটা হবে না। ব্যক্তিগতভাবে আমি তিন ফরম্যাটেই খেলতে চাই। সবাই শুধু দোয়া করবেন।’

এমএমআর/জিকেএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।