ভয়াবহ ফেরিযাত্রার ‘অজুহাত’ দিতে নারাজ ডোমিঙ্গো

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:০৯ এএম, ০৩ জুলাই ২০২২
আতহার আলি খানের ফেসবুক থেকে

অডিও শুনুন

সেইন্ট লুসিয়া থেকে মার্টিনেক হয়ে ডমিনিকা। মাঝে চল্লিশ মিনিটের যাত্রা বিরতি। সবমিলিয়ে প্রায় পাঁচ ঘণ্টার যাত্রা। পুরোটা পথ পাড়ি দিতে হয়েছে ফেরিতে করে উত্তাল আটলান্টিকের মাঝে। শুরুতে এ যাত্রা উপভোগ্য থাকলেও, ক্রমশ মোশন সিকনেসে আক্রান্ত হন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা।

নুরুল হাসান সোহান, শরিফুল ইসলাম, মুনিম শাহরিয়াদের অবস্থা বেশিই খারাপ হয়ে যায়। তবে বড় ধরনের কোনো ক্ষতি ছাড়াই নিরাপদে ডমিনিকায় পৌঁছায় বাংলাদেশ দল। সেখানে গিয়ে শুক্রবার অনুশীলনের কথা ছিল টাইগারদের। বৃষ্টির কারণে হয়নি অনুশীলন।

পরে সিরিজের প্রথম ম্যাচেও বাগড়া দিলো বৃষ্টি। শনিবার বাংলাদেশ সময় রাতে বৃষ্টির কারণে মাত্র ১৩ ওভারেই পরিত্যক্ত হয়ে গেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষের সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি। ম্যাচ সমাপ্তির ঘোষণা আসার আগে ১৩ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১০৫ রান করেছে বাংলাদেশ।

ব্যাটারদের মধ্যে দুই অঙ্কে গেছেন কেবল এনামুল হক বিজয় (১০ বলে ১৬), সাকিব আল হাসান (১৫ বলে ২৯) ও নুরুল হাসান সোহান (১৬ বলে ২৫)। হতাশ করেছেন মুনিম শাহরিয়ার, লিটন দাস, আফিফ হোসেন, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা। যে কারণে ১৩ ওভারেই পড়ে যায় ৮ উইকেট।

স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন আসে, তাহলে কি সেই ভয়াবহ ফেরিযাত্রার পর কোনো অনুশীলন ছাড়া খেলার কারণেই এমন হলো পারফরম্যান্স? বাংলাদেশের হেড কোচ এই প্রশ্নের সঙ্গে পুরোপুরি একমত নন। ফেরিযাত্রাকে অজুহাত হিসেবে মানতে নারাজ তিনি। তবে অনুশীলনের ঘাটতির কথা বলেছেন টাইগার কোচ।

ম্যাচ পরিত্যক হওয়ার পর সংক্ষিপ্ত সংবাদ সম্মেলনে রাসেল ডোমিঙ্গো বলেছেন, ‘(ফেরিযাত্রার প্রভাব) কোনো অজুহাত হতে পারে না। এটি ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন্যও সমান ছিল। তারাও গতকাল অনুশীলন করতে পারেনি, তারাও একই ফেরিতে ছিল। তাই এ ব্যাপারে কোনো অজুহাত নয়।’

টাইগার কোচ আরও যোগ করেন, ‘বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় গত কয়েক সপ্তাহ ধরে কোনো ম্যাচ খেলেনি। আফিফ, মাহমুদউল্লাহ... তারা ঢাকায় অনুশীলন করছিল শুধু। অন্তত আজকে কিছু সময় পাওয়া গেছে ম্যাচের। আমি নিশ্চিত দ্বিতীয় ম্যাচে আমরা ভালো খেলবো।’

ম্যাচ পরিত্যক্ত হলেও ১৩ ওভার খেলাকে ইতিবাচক হিসেবেই নিচ্ছেন ডোমিঙ্গো, ‘গতকাল (শুক্রবার) কোনো অনুশীলন করা সম্ভব হয়নি... আজকের খেলাও পরিত্যক্ত হয়ে গেলো। তবু ১২-১৩ ওভারের মতো খেলার সুযোগ পেলাম আমরা। আমি নিশ্চিত পরের ম্যাচে আরও ভালো পারফরম্যান্স দেখা যাবে।’

এসএএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]