সূর্যের আগুন নেভানোর উপায় বলে দিলেন এনটিনি

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:৪৭ পিএম, ০৩ অক্টোবর ২০২২

ডেভিড মিলার ও কুইন্টন ডি ককের বিশ্বরেকর্ড জুটির পরও ভারতের বিপক্ষে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে জিততে পারেনি দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দল। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি সেঞ্চুরিতে মিলার করেন ৪৭ বলে ১০৬ রান। ডি কক অপরাজিত থাকেন ৪৮ বলে ৬৯ রান করে।

এ দুজনের ১৭৪ রানের বিশ্বরেকর্ডগড়া জুটিও পারেনি ভারতের করা ২৩৭ রানের বিশাল সংগ্রহ টপকে যেতে। শেষ পর্যন্ত তারা থেমেছে ২২১ রানে। দুই দল মিলে ৪৫৮ রানের এই টি-টোয়েন্টি ম্যাচে বড় পার্থক্য গড়ে দিয়েছেন ভারতের মারকুটে ব্যাটার সূর্যকুমার যাদব।

ইনিংসের ১২তম ওভারে ব্যাটিংয়ে নেমে মোটে ৬.৪ ওভার ছিলেন উইকেটে। তাতেই প্রোটিয়া বোলারদের নিয়ে ছেলেখেলা করে মাত্র ২২ বলে ৬১ রানের তাণ্ডব চালান সূর্য। তিনি উইকেটে থাকা ৬.৪ ওভারে ১০২ রান পেয়েছে ভারত। যা তাদের গড়ে দেয় বিশাল সংগ্রহের ভিত।

শুধু এই ম্যাচ নয়, টি-টোয়েন্টি অভিষেকের পর থেকে নিয়মিতই এমন ঝড় তোলা ইনিংস খেলছেন সূর্য। এখন পর্যন্ত খেলা ৩১ ইনিংসে ফিফটি হাঁকিয়েছেন ৯টি, সেঞ্চুরি করেছেন একটি, করেছেন মোট ১০৩৭ রান। তবে এই রান তিনি করেছে ১৭৭.২৬ স্ট্রাইকরেট ও ৩৯.৮৬ গড়ে।

সাম্প্রতিক সময়ে এতো বেশি গড় ও স্ট্রাইকরেটে রান করতে পারেননি কোনো ব্যাটার। চলতি সিরিজে তাকে থামানোর কোনো পথই পাচ্ছে না দক্ষিণ আফ্রিকার বোলাররা। প্রথম ম্যাচেও ৩৩ বলে ৫০ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে দলকে জিতিয়েছিলেন ৩২ বছর বয়সী এ ব্যাটার।

দ্বিতীয় ম্যাচেও সূর্যের আগুনে পুড়ে ছারখার হওয়ার পর প্রোটিয়া বোলারদের জন্য পরামর্শ নিয়ে হাজির হয়েছেন দেশটির কিংবদন্তি পেসার মাখায়া এনটিনি। তার মতে, সূর্যের বিপক্ষে টানা গুড লেন্থে বোলিং করে যেতে হবে। যাতে বলের সুইং ধরতে না পারেন সূর্য।

ইএসপিএন ক্রিকইনফোর আলোচনা অনুষ্ঠানে এনটিনি বলেছেন, ‘আমি এখানে একটু ভিন্নভাবে চিন্তা করছি। নিজেকে বোলারদের জায়গায় রেখে ভাবছি। আমার মনে হয় তাদের পরিকল্পনাটা কাজে লাগেনি। তাকে (সূর্যকুমার) আটকানোর জন্য আমার পরিকল্পনা হলো একটি নির্দিষ্ট লেন্থ খুঁজে বের করা। যাতে সে বাউন্ডারি হাঁকাতে না পারে।’

তিনি আরও বলেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকার বোলাররা এটি করতে পারেনি। এটি আসলে মাইন্ডসেটের মাধ্যমে আসে। যেমন অফস্ট্যাম্পের বাইরে করলে ভালো লেন্থ খুঁজে বের করতে হবে। আমি যদি ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার পেসারদের তুলনা করি, বিশেষ করে প্রথম পাওয়ার প্লেতে ভারত যে লেন্থে বল করেছে সেখান থেকে বোঝা কঠিন বল কোনদিকে সুইং করবে।’

‘কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার পেসাররা ৭-৮ গজের লেন্থে বোলিং করেছে। যা তাকে বলের সুইং দেখার জন্য যথেষ্ট সময় দিয়েছে। আমার মনে হয় দক্ষিণ আফ্রিকার দৃষ্টিকোণ থেকে এ জিনিসটা ঠিক করতে হবে, তাদের নির্দিষ্ট লেন্থ বের করতে হবে এবং সেটিকে ধরে রাখতে হবে।’

এসএএস/জিকেএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।