পাকিস্তানের বিপক্ষে ওপেন করবেন কে? মিরাজ-সাব্বির না মিরাজ-লিটন?

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৭:১০ পিএম, ০৬ অক্টোবর ২০২২

ম্যাচের হিসেব করে লাভ নেই। সময়ের হিসেব কষাই ভাল। সেই গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকেই বাংলাদেশের ওপেনিং জুটির অবস্থা ভালো না। ভালো না মানে, শুনে মনে হতে পারে, ‘ভাল না। তবে খারাপ না।’

আসলে তা না। খারাপ। বেশ খারাপ। এক কথায় কাঁচভঙ্গুর উদ্বোধনী জুটি। ইনিংস শুরুর পর পরই যা ভেঙ্গে গেছে। একবার নয়। বারবার।

এ অবস্থার উন্নতি ঘটাতে চেষ্টাও করা হয়েছে বিস্তর। ঘনঘন ওপেনিং জুটিতে আনা হয়েছে পরিবর্তন। নাইম শেখ, লিটন দাসকে বদলে বিভিন্ন সময় সাইফ হাসান, এনামুল হক বিজয়, পারভেজ হোসেন প্রমুখসহ ৭/৮ জনকে দিয়ে চেষ্টা করা হয়েছে; কিন্তু কিছুতেই কোনো কাজ হয়নি। অবশেষে ভিন্ন পথে হাঁটার চিন্তা করে টিম ম্যানেজমেন্ট।

প্রথাগত পথে না হেঁটে বিকল্পদের দিয়ে ওপেনিং করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। ‘মেকশিফট’ ওপেনার হিসেবে এশিয়া কাপে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে শেষ ম্যাচে আর দুবাইতে আরব আমিরাতের বিপক্ষে ২ ম্যাচের সিরিজে ব্যাট হাতে ইনিংসের সূচনা করেছেন সাব্বির রহমান আর মেহেদী হাসান মিরাজ।

miraj

তাতে যে উদ্বোধনী জুটির শনির দশা কেটেছে, তা নয়। মিরাজ মোটামুটি রান পেলেও সাব্বির কিছুই করতে পারেননি। তিন ম্যাচে তাদের ওপেনিং জুটিতে উঠেছে ১৯ (২.৫ ওভারে), ১১ (১.৩ ওভার) আর ২৭ (৩.৪ ওভারে) রান।

৩ ম্যাচে সাব্বিরের সংগ্রহ মোটে (৫+০+১২ ) ১৭। আর মিরাজের সংগ্রহ যথাক্রমে ২৬ বলে ৩৮, ১২ ও ৩৭ বলে ৪৬। সাব্বিরের তুলনায় অনেক ভাল করেছেন। স্ট্রাইকরেট আহামরি না হলেও তিন ম্যাচে দু’বার মধ্য তিরিশ পেরিয়ে গেছে মিরাজের ব্যাট।

সাব্বির তেমন কিছু করতে না পারলেও শেষ ম্যাচে ফ্রি-হিটে নাগালের ভেতরে বল পেয়ে ডিপ মিড উইকেটের ওপর দিয়ে বিশাল ছক্কা হাঁকিয়ে ব্যাটিং কোচ জেমি সিডন্সের মন জয় করে নিয়েছেন। জেমি মিডিয়ায় বলেছেন, ‘সাব্বির কি পারে, তা ওই এক ছক্কাতেই দেখিয়ে দিয়েছে।’

কেউ কেউ ব্যাটিং কোচ জেমির এমন মন্তব্যকে সাব্বিরের ওপেনার হিসেবে দলে থাকার প্রামাণ্য দলিল ভেবেছেন; কিন্তু বাস্তবতা ভিন্ন। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দরজায় কড়া নাড়ছে। খেলা হবে অস্ট্রেলিয়ার তুলনামূলক দ্রুত গতি আর বাড়তি বাউন্সি উইকেটে।

তার ঠিক আগে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে তিনজাতি সিরিজ। আবহাওয়া, জলবায়ু সম্পূর্ণ ভিন্ন। তাপমাত্রা ৮-৯ সেলসিয়াস। শীত ও কনকনে বাতাস। ফাস্ট বোলারদের আদর্শ পরিবেশ। এরমধ্যে বাংলাদেশের ব্যাটিংটা কেমন হবে? বিশেষ করে ওপেনিং জুটি কী করবে?

শেষ ৩ ম্যাচের মত শুক্রবারও কী প্রথাগত ওপেনার বাদ দিয়ে ‘মেকশিফট’ ওপেনার দিয়েই ওপেনিং জুটি সাজাবে বাংলাদেশ?

সবার কৌতুহল, ৭ অক্টোবর থেকে ক্রাইস্টচার্চে যে তিনজাতি ক্রিকেট শুরু হচ্ছে, তাতেই কী বাংলাদেশ দুই মেকশিফট ওপেনার মিরাজ আর সাব্বিরকেই ওপেনিংয়ে পাঠাবে, নাকি আরব আমিরাতের বিপক্ষে না খেলা অধিনায়ক সাকিব দলে ফেরায় লিটন দাসকে তিন নম্বর থেকে ওপরে তুলে মিরাজের সঙ্গী করা হবে? এবং সাব্বিরকে নিচে নামিয়ে দেয়া হবে?

বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্ট এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে কোন আনুষ্ঠানিক বক্তব্য দেয়নি। তিনজাতি আসর শুরুর আগে যেহেতু অধিনায়ক সাকিব, টেকনিক্যাল অ্যাডভাইজার শ্রীধরন শ্রীরাম আর টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজনের মত গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকা কেউ মিডিয়ার সাথে কথা বলেননি, তাই এ প্রশ্নের উত্তর অজানাই থেকে গেছে। তবে যতদুর জানা গেছে, তাতে করে মিরাজ আর সাব্বিরের ওপেন করার সম্ভাবনাই বেশি।

এআরবি/আইএইচএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।