কাঠমান্ডুতে গ্রেফতার নেপালি ক্রিকেটার সন্দিপ লামিচানে

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৫৮ পিএম, ০৬ অক্টোবর ২০২২

এক নাবালিকাকে ধর্ষণের দায়ে অবশেষে গ্রেফতার হতে হলো নেপাল জাতীয় দলের সদ্য সাবেক অধিনায়ক সন্দিপ লামিচানেকে। মাস খানেক আগে কাঠমান্ডু আদালতে লামিচানের বিপক্ষে ধর্ষণের অভিযোগ আনা হলে আদালত তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে।

প্রায় একমাস পর এই অভিযোগের বিষয়ে আইনী লড়াই করার জন্য নেপাল ফিরলে কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয় এবং সেখানেই পুলিশের হেফাজতে রাখা হয়েছে।

যদিও এর আগে নেপাল ক্রিকেট দলের সাবেক এই অধিনায়ক তথা ধর্ষণের অভিযুক্ত সন্দিপ লামিচানে ধর্ষণের মামলায় আত্মসমর্পণ করতে রাজি হয়েছিলেন। সে উদ্দেশ্যে সিপিএল বাদ দিয়ে তিনি দেশে ফিরে আসেন।

নেপালের জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক সন্দিপ লামিচানের বিরুদ্ধে ১৭ বছরের এক নাবালিকা মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ তোলা হয়। এ ঘটনায় সন্দিপকে খুঁজছিল নেপাল পুলিশ। বলা হচ্ছিল সে নেপাল থেকে পালিয়ে গিয়েছিল।

তবে একদিন আগেই লামিচানে বলেছেন যে, তিনি আত্মসমর্পণ করতে প্রস্তুত এবং ৬ অক্টোবর (অর্থাৎ আজ বৃহস্পতিবার) দেশে ফিরবেন। সন্দিপ লামিচানে নিজের ফেসবুক পোস্টে বলেছিলেন, ‘আমি তদন্তের সমস্ত পর্যায়ে সম্পূর্ণ সহযোগিতা করব এবং আমার নিজেকে নির্দোষ প্রমাণের জন্য আইনি লড়াই লড়ব।’

Lamichane

সন্দিপ লামিচানে নিজের ফেসবুকে ভক্তদের উদ্দেশ্য করে লেখেন, ‘আপনাদের সমর্থন, আস্থা, আত্মবিশ্বাস এবং আপনাদের সমালোচনামূলক মন্তব্য আমার কাছে সম্পদ। এটাকে আমি আমার অনুপ্রেরণা এবং শক্তি হিসাবে গ্রহণ করেছি। আমি জানি যে, আমি ষড়যন্ত্র এবং মিথ্যা অভিযোগের একটি কঠিন সময়ের মুখোমুখি এবং এর প্রভাব অকল্পনীয়।আমি নিশ্চিত যে নির্দোষ প্রমাণিত আসামিদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার জন্য আমাদের আইনি ব্যবস্থায় কিছু ব্যবস্থা থাকা উচিত। আমি শিগগিরই আমার বিরুদ্ধে দায়ের করা অন্যায় মামলা এবং অভিযোগের বিরুদ্ধে আইনি সহায়তা চাইব এবং আমি নিশ্চিত যে, ন্যায়বিচার পাব এবং আমি আমার প্রিয় দেশের নাম ও খ্যাতি বাড়াদে শিগগিরই ক্রিকেট মাঠে ফিরে আসবো এবং আমি দ্রুত বিচারের জন্য প্রার্থনা করছি।’

সন্দিপ লামিচানে আরও লিখেছেন, ‘আমি সকাল ১০টায় কাতার এয়ারওয়েজে কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করছি। আত্মসমর্পণের ইচ্ছার কথা ইতিমধ্যেই লিখিতভাবে পুলিশকে জানিয়েছি। আমার নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য পুলিশ প্রক্রিয়াচলাকালীন আমার অ্যাডভোকেট সরোজ কৃষ্ণ ঘিমির (অ্যাডভোকেট) উপস্থিত থাকার জন্য আমি পুলিশের কাছে বিনীত অনুরোধ করেছি। তদন্তের সব পর্যায়ে পূর্ণ সহযোগিতা করব এবং আমার নির্দোষ প্রমাণের জন্য আইনি লড়াই লড়বো। ন্যায়বিচারের জয় হোক।’

উল্লেখ্য, লামিচানে অভিযোগ ওঠার পর দেশ ছেড়েছিলেন বলে দাবি করা হয়। ‍যদিও সন্দিপ লামিচানে ওয়েস্ট ইন্ডিজে সিপিএল খেলতে গিয়েছিলেন এবং সেখান থেকে দেশে ফিরে আসেন।

এর মধ্যে সন্দিপের সন্ধান না পাওয়ায় নেপাল পুলিশ আন্তর্জাতিক পুলিশ অর্থাৎ ইন্টারপোলের কাছে সাহায্য চেয়েছিল। নেপাল পুলিশের এ কথা মেনে নিয়ে ইন্টারপোল সন্দিপ লামিচানের বিরুদ্ধে ডিফিউশন নোটিশ জারি করে। বলা হয়েছিল, সন্দিপ ক্যারিবিয়ান দেশগুলিতে রয়েছেন। ৮ সেপ্টেম্বর নেপাল পুলিশ সন্দিপ লামিচানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছিল।

আইএইচএস/

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।