মঙ্গলবার মুখোমুখি সাইফ-টিসি

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৬:২৩ পিএম, ২২ জানুয়ারি ২০১৮ | আপডেট: ০৬:৩৩ পিএম, ২২ জানুয়ারি ২০১৮
মঙ্গলবার মুখোমুখি সাইফ-টিসি

সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের ইংলিশ কোচ রায়ান নর্থমোর বেশ রোমাঞ্চিত। প্রথম কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচে ডাগআউটে দাঁড়ানোর আগে যে কারোরই শিহরিত হওয়ার কথা। ব্যতিক্রম নন তিনিও। আবার এমন একটা ম্যাচ কে না স্মরণীয় করে রাখতে চান? অভিষেকটা স্বাগতিকদের ডাগআউটে বলে এ ইংলিশও চান জয় দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার শুরু করতে।

তার অভিষেকটা কী স্মরণীয় করতে পারবে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব? বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের নবাগত দলটি খেলতে নামছে এএফসি কাপের কোয়ালিফাইং রাউন্ডের প্রথম প্লে-অফ ম্যাচ। প্রতিপক্ষ মালদ্বীপের ট্র্যাস্ট অ্যান্ড কেয়ার (টিসি) ফুটবল ক্লাব। মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ ও মালদ্বীপের এই দুই দল।

দল ও কোচের আন্তর্জাতিক অভিষেকটা স্মরণীয় হয়ে থাকবে- এমন প্রত্যাশা স্বাগতিক দর্শকদের। গ্যালারিতে দর্শক আনতে চেষ্টার কমতি নেই স্বাগতিক সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের। দর্শকদের মাঠে আসার আহ্বানের পাশাপাশি থাকছে তাদের জন্য লোভনীয় পুরস্কার- দলের সঙ্গে মালদ্বীপ যাওয়ার সুযোগ পাবেন ৩ জন। আরো ৭ জনের জন্য থাকবে মোবাইল সেটসহ আকর্ষণীয় কিছু পুরস্কার।

সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব বাংলাদেশের ঘরোয়া ফুটবলে একদমই নতুন দল। মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টসের ইতিহাস ঐহিত্যও তেমন সমৃদ্ধ নয়। বছর চারেক ধরে ক্লাবটি খেলছে প্রিমিয়ার লিগে। তাদের নামটি এ অঞ্চলের মানুষে কাছে বেশি পৌঁছেছে গত বছর চট্টগ্রামে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাপে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর।

ক্লাবটির প্রথম আন্তর্জাতিক ট্রফি উপহার দেয়া বাংলাদেশতো তাদের জন্য পয়মন্তই বটে। ঢাকা থেকেও তারা ফিরতে যায় সে ধারাবাহিকতা বজায় রেখে। জয়ে চোখ রেখেই রোববার মালদ্বীপের দলটি ঢাকায় এসেছে। সোমবার বিকেলে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে শেষবারের মতো শিষ্যদের ঝালিয়ে নিলেন ক্লাবটির কোচ আহমেদ নিজাম।

হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ম্যাচে প্রত্যেক দলই চায় ঘরের মাঠে খেলার সুবিধা কাজে লাগাতে। সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবও সে সুবিধা কাজে লাগিয়ে জয় নিয়ে উড়াল দিতে চায় মালদ্বীপে ফিরতি ম্যাচ খেলতে। ৩০ জানুয়ারি মালের ওই ম্যাচই নির্ধারণ করবে কোয়ালিফাইং রাউন্ডের প্রথম প্লে-অফ জিতবে কারা। ঘরে জিতলে মনোবল বাড়িয়েই মালদ্বীপ যেতে যান সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের কোচ। কিন্তু সে সুযোগ দিতে চাননা অতিথি দলের কোচ আহম্মেদ নিজাম।

প্রতিপক্ষের মাঠে ড্র করে ঘরের ম্যাচে জেতার একটা কৌশল থাকেই সফরকারী দলের। মালদ্বীপের দলটির কোচের মনে এমন গোপন কৌশল থাকলেও সোমবার সংবাদ সম্মেলনে অবশ্য বলেছেন, ‘আমরা ড্রয়ের কোনো চিন্তাই করছি না। জিতেই দেশে ফিরতে চাই।’

ইতিহাস ঐহিত্যে প্রতিপক্ষ একটু এগিয়ে থাকলেও সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের কোচ এ ম্যাচে নিজেদেরই ফেভারিট মানছেন। মানসিকভাবে তার এগিয়ে থাকার কারণ অবশ্যই লিগের দলটিকে আরো শক্তিশালী করা। এএফসি কাপের জন্য সাইফ ধার নিয়েছে চট্টগ্রাম আবাহনীর ৭ জন ফুটবলার। মোহামেডানের নাইজেরিয়ান এনকোচা কিংসলেও খেলবেন সাইফের জার্সি গায়ে। টিমটাকে গায়-গতরে বেশ নাদুস-নুদুশই বলা যায়, পুরো ৯০ মিনিট খাটুনির সামর্থ্যও আছে।

আরআই/আইএইচএস/আইআই