বিশ্বকাপ সম্প্রচার নিয়ে কাতার-ইসরায়েল যুদ্ধ

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:৪৩ পিএম, ১৪ মার্চ ২০১৮

ফিলিস্তিন নিয়ে এখনও আরব-ইসরায়েল যুদ্ধ বিদ্যমান। যদিও, সময়ের বিবর্তনে রাজনৈতিক মেরুকরণ ঘটেছে অনেক বেশি। মিশর-সৌদি আরব, আরব আমিরাতসহ অনেকগুলো আরব দেশ এখন দাঁড়িয়েছে ইসরায়েলের পাশে; কিন্তু কয়েকটি আরব রাষ্ট্র তো এখনও ইসরায়েলকে মেনে নিতে পারেনি। ফিলিস্তিন ইস্যুতে ইসরায়েলর নানা পদক্ষেপের ক্রমশ বিরোধিতা করে যাচ্ছে। সে দেশগুলোর মধ্যে কাতারও একটি।

তবে এবার আর রাজনৈতিক নয়, সম্পূর্ণ ভিন্ন একটি বিষয় নিয়ে রীতিমতো যুদ্ধ লেগে যাওয়ার অবস্থা কাতার-ইসরায়েলের। ভিন্নভাবে বললেও বলতে হয়, আরও একটি আরব-ইসরায়েল যুদ্ধ। অবাক হলেও, সম্পূর্ণ ভিন্ন সেই বিষয়টি হচ্ছে, খেলাধুলা। আরও বিশেষ করে বললেন, ফিফা বিশ্বকাপ ফুটবল।

আরব অঞ্চল, তথা পুরো মধ্য প্রাচ্যে ফিফা বিশ্বকাপের সরাসরি সম্প্রচারের জন্য স্বত্ব কিনেছিল কাতার ভিত্তিক টিভি চ্যানেল বে-ইন স্পোর্টস। অনেক আগে থেকেই তারা ঘোষণা দিয়ে আসছে মধ্যপ্রাচ্য অঞ্চলে ফিফা বিশ্বকাপ ফুটবলের একমাত্র সম্প্রচার সত্ত্বাধিকারী প্রতিষ্ঠান তারা। এ জন্য বিশ্বকাপের সময় প্রতিটি টিভি সাবস্ক্রাইভারকে ৪৫ ডলার করে প্রদান করতে হবে।

কিন্তু হঠাৎ করেই বে-ইন এর ব্যবসায় ধ্বস নামানোর পরিকল্পনা হাতে নিয়ে মাঠে নেমেছে ইসরায়েলি মালিকানাধীন টিভি চ্যানেল মাকান। মধ্যপ্রাচ্য অঞ্চলের জন্য তারাও ফিফা বিশ্বকাপ সম্প্রচারের স্বত্ব কিনে নিয়েছে ৫৬ লাখ ডলারের বিনিময়ে। এত বিশাল পরিমাণে অর্থ ব্যায় করেও মাকান টিভি চ্যানেল ঘোষণা দিয়েছে, তারা বিশ্বকাপের খেলা দেখার জন্য সাবস্ক্রাইবারের কাছ থেকে কোনো অর্থ গ্রহণ করবে না। অর্থ্যাৎ সম্পূর্ণ ফ্রি-তে সমর্থকরা বিশ্বকাপের খেলা দেখতে পারবে মাকান টিভিতে।

ইসরায়েল, ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীর, মিশর, জর্ডান, লেবাননের ফুটবলপ্রেমীদের জন্য পুরোপুরি ফ্রিতে বিশ্বকাপের খেলা দেখার ব্যবস্থা করে দিচ্ছে ইসরায়েলি টিভি চ্যানেলটি। এর অর্থ হচ্ছে, কাতারের যে একচ্ছত্র ব্যবসা হওয়ার কথা ছিল তাতে পুরোপুরি ভাগ বসিয়ে দিয়েছে ইসরায়েল।

ইসরায়েল ঘোষণা দিয়েছে, তারা আরব অঞ্চলে পুরোপুরি ফ্রিতে বিশ্বকাপের খেলা দেখার ব্যবস্থা করবে। শুধু তাই নয়, আরবিতে ধারাভাষ্যও সম্প্রচার করা হবে তাতে। থাকবে হিব্রু ভাষার ধারাভাষ্যও। আরবি ভাষায় খোলা একটি ফেসবুক পেজে দেয়া এক পোস্টে এই ঘোষণা দেয় ইসরায়েল।

আইএইচএস/আরআইপি

আপনার মতামত লিখুন :