সাফ ভুলে এবার বঙ্গমাতা গোল্ডকাপে চোখ মেয়েদের

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৬:৫১ পিএম, ২২ মার্চ ২০১৯

মিয়ানমার থেকে নেপালের বিরাটনগর। এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপ বাছাইয়ের দ্বিতীয় পর্ব থেকে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ। দুটি টুর্নামেন্ট বাংলাদেশের মেয়েদের খেলতে হয়েছে ২০ দিনে। ভ্রমণ, অনুশীলন ও ৬ টি ম্যাচ। লাল-সবুজ জার্সিধারী মেয়েদের ওপর দিয়ে একটা ধকলই গেছে।

সাফের সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিয়ে বৃহস্পতিবার নেপাল থেকে ঘরে ফিরেছে সাবিনা-মারিয়ারা। কিন্তু মেয়েদের ছুটি নেই। সামনে যে আরেকটি টুর্নামেন্ট। এবার বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন আয়োজিত নতুন টুর্নামেন্ট বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ নারী আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপ। মেয়েদের নতুন এই আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট শুরু হবে ২২ এপ্রিল ঢাকায়। শেষ হবে ৩ মে।

এক মাস বাকি থাকা টুর্নামেন্ট সামনে রেখে বাংলাদেশের মেয়েরা প্রস্তুতি নেমে পড়বে ২৯ মার্চ সকাল থেকে। তার আগ পর্যন্ত মেয়েরা বাফুফে ভবনে ক্যাম্পেই থাকবে। নেপালে ২১ জন ফুটবলার নিয়ে গিয়েছিলেন কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন। সাফের দল থেকে বয়সের কারণে বাদ পড়বেন শুধু স্ট্রাইকার সাবিনা খাতুন। বাকি সবাই অনূর্ধ্ব-১৯ দলে থাকবেন। এক কথায় জাতীয় দলটিকেই বাংলাদেশ খেলাতে পারছে বঙ্গমাতা গোল্ডকাপে।

বয়সভিত্তিক টুর্নামেন্ট বলেই বাংলাদেশের মেয়েদের নিয়ে আশা বঙ্গমাতা গোল্ডকাপে। ফেভারিট হিসেবেই বাংলাদেশ খেলতে নামবে।

‘সিনিয়র খেলোয়াড় কম আছে বলে আমাদের জাতীয় দল তেমন ভালো করতে পারে না। কিন্তু এই টুর্নামেন্টে আমরা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্যই খেলবো। ঘরের মাঠে খেলা। বঙ্গমাতার নামে টুর্নামেন্ট। আমরা চ্যাম্পিয়ন হতে সিরিয়াস থাকবো’-বলেছেন মহিলা ফুটবল দলের কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন।

টুর্নামেন্টে ‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশের সঙ্গে পড়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও কিরগিজস্তান। এই লেভেলে এ দুটি দলের সঙ্গে বাংলাদেশের মেয়েরা কখনো খেলেনি। তবে অনূর্ধ্ব-১৬ টুর্নামেন্টে দুটি দেশের সঙ্গেই খেলেছে বাংলাদেশ। দুটি দলের বিরুদ্ধেই সহজ জয়ের অভিজ্ঞতা বাংলাদেশের।

২০১৪ সালে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাই পর্বে বাংলাদেশের গ্রুপে ছিল সংযুক্ত আরব আমিরাত। বাংলাদেশ জিতেছিল ৬-০ গোলে। এ দলটির বিরুদ্ধে ২০১৬ সালে একই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ জিতেছিল ৪-০ গোলে এবং ২০১৮ সালে ৭-০ গোলে। ২০১৬ সালে কিরগিজস্তানকেও পেয়েছিল বাংলাদেশের মেয়েরা। জিতেছিল ১০-০ গোলে।

আরআই/এমএমআর/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :