ম্যাচ পাতানোর অভিযুক্তদের মধ্যে জাতীয় দলের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়াও

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:৩৮ পিএম, ২২ মার্চ ২০১৯

পাতানো খেলার সন্দেহে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব ও চট্টগ্রাম আবাহনীর যে ৬ ফুটবলারকে তলব করেছে, বাফুফের পাতানো খেলা সনাক্তকরণ কমিটি তাদের মধ্যে আছেন জাতীয় ফুটবল দলের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়াও। তিনি সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবেরও অধিনায়ক।

তলব করা সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের অন্য দুই ফুটবলার হচ্ছেন-ডিফেন্ডার ইয়াসিন আরাফাত ও ফরোয়ার্ড জাফর ইকবাল। চট্টগ্রাম আবাহনীর ৩ ফুটবলার অধিনায়ক ও মিডফিল্ডার মোনায়েম খান রাজু, দুই ফরোয়ার্ড আবদুল মালেক ও নাইজেরিয়ান আওয়ালা মাগালান।

এই ৬ ফুটবলারকে রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় ডেকেছেন পাতানো খেলা সনাক্তকরণ কমিটি। সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের অভিযুক্ত ৩ ফুটবলারের ২ জন দেশে নেই। ডিফেন্ডার ইয়াসিন আরাফাত ও জাফর ইকবাল আছেন জাতীয় অনূর্ধ্ব-২৩ দলের সঙ্গে বাহরাইন।

সাবেক সচিব হুমায়ুন খালিদকে চেয়ারম্যান এবং সাবেক যুগ্মসচিব সরদার মোহাম্মদ সোয়েবকে সদস্য করে গঠিত দুই সদস্যের পাতানো খেলা সনাক্তকরণ কমিটি বৃহস্পতিবার প্রথম সভা করে এই ৬ ফুটবলারকে জিজ্ঞাসাবাদের সিন্ধান্ত নিয়ে তাদের তলব করেছে।

গত ২৩ ফেব্রুয়ারি ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে মুখোমুখি হয়েছিল সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব ও চট্টগ্রাম আবাহনী। ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হয়েছে। ওই ম্যাচটি সমঝোতামূলক ছিল কিনা তা খতিয়ে দেখছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)।

আরআই/এমএমআর/এমকেএইচ