‘নতুন মেসি’কে নিজেদের কাছে রেখে দিতে চায় স্পেন

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৪২ পিএম, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯

লা মাসিয়া থেকে যখন লিওনেল মেসি বেড়ে উঠলেন, তখন স্পেন চেষ্টা করেছিল আগামীর এই তারকাকে নাগরিকত্ব দিয়ে নিজেদের দেশে রেখে দিতে। কিন্তু পারেনি। মেসি নিজ দেশ আর্জেন্টিনার হয়ে খেলাকেই প্রাধান্য দিলেন। সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন স্পেন একজন খাঁটি স্ট্রাইকারের অভাব সব সময়ই অনুভব করে। ২০১০ বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হলেও খাঁটি স্ট্রাইকার ছিল না তাদের হাতে। ডেভিড ভিয়া কিংবা ফার্নান্দো তোরেসদের দিয়ে সেই শূন্যস্থান কিছুটা পূরণের চেষ্টা ছিল মাত্র।

ভিয়া কিংবা তোরেসদের বিদায়ে তো খাঁটি স্ট্রাইকারের অভাব পুরোপুরি দেখা যাচ্ছে স্পেন ফুটবলে। যে কারণে ব্রাজিলিয়ান দিয়েগো কস্তাকে নাগরিকত্ব দিয়ে স্ট্রাইকার রূপে খেলিয়েছে ইউরো ও বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। তাতে দুধের স্বাদ ঘোলে মিটেছে কেবল, কাজের কাজ কিছুই হয়নি।

এ কারণে ভবিষ্যতের এক তারকার দিকে হাত বাড়িয়ে দিয়েছে স্পেন ফুটবল ফেডারেশন। বার্সেলোনার লা মাসিয়ায় বেড়ে ওঠা আফ্রিকান দেশ গিনি বিসাউয়ের ফুটবলার আনসু ফাতিকে নাগরিকত্ব দিয়ে স্পেনের ফুটবলার হিসেবেই গড়ে তুলতে চায় ইউরোপিয়ান দেশটির ফুটবল ফেডারেশন।

স্পেনের কোচ রবার্তো মোরেনো মিডিয়াকে নিশ্চিত করেছেন, স্পেন ফুটবল ফেডারেশন চেষ্টা করছে আনসু ফাতিকে দেশের নাগরিকত্ব প্রদানের। শনিবার রাতে ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে যে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখিয়েছে আনসু ফাতি, তাতে তাকে নাগরিকত্ব দিয়ে নিজেদের কাছেই রেখে দেয়ার পক্ষে জোরালো যুক্তি পেয়ে গেছে স্পেন ফুটবল ফেডারেশন।

Ansu-Fati-1

একটি টিভি সাক্ষাৎকারে স্পেন কোচ রবার্তো মোরেনো বলেন, ‘স্পেন ফুটবল ফেডারেশনের কর্মকর্তারা চেষ্টা করছেন আনসু ফাতিকে নাগরিকত্ব দিয়ে নিজেদের কাছে রেখে দেয়ার। তবে, সিদ্ধান্ত পুরোপুরিই কিন্তু খেলোয়াড়ের নিজের। তবে ফেডারেশন সব সময়ই চেষ্টা করে সেরা খেলোয়াড়দের নিয়ে কাজ করতে। এটা বার্সার জন্য একটি গর্বের ব্যাপার। কারণ, সে লা মাসিয়া থেকেই উঠে এসেছে।’

স্পেনের নাগরিকত্ব দেয়ার ব্যাপারে প্রথম পদক্ষেপ হবে তার বাবাকে স্পেনের নাগরিকত্ব গ্রহণের প্রস্তাব দেয়া। আইন অনুসারে তিনি সব শর্ত পূরণ করে ফেলেছেন ইতিমধ্যে। কারণ স্পেনে গত এক দশক ধরে বসবাস, কাজ করে যাওয়া- সবই করেছেন। সুতরাং, তার স্প্যানিশ নাগরিকত্ব নিতে কোনো অসুবিধা নেই। এরপর হবে পরবর্তী পদক্ষেপ।

মূলতঃ আনসু ফাতিকে বলা হচ্ছে বার্সেলোনার ‘নতুন মেসি’। মাত্র ১৬ বছর বয়সেই তার অভিষেক হয়ে গেছে পেশাদার ফুটবলে। বার্সার ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বকনিষ্ঠ ফুটবলার হিসেবে লা লিগায় রিয়াল বেটিসের বিপক্ষে অভিষেক হয়েছিল আফ্রিকান দেশ গিনি বিসাউয়ের এই কিশোরের। লা মাসিয়ায় বেড়ে ওঠা আনসু ফাতিকে মনে করা হচ্ছে, আগামী দিনের মেসি হিসেবে। কারণ, তার মধ্যে সে সম্ভাবনাই দেখা যাচ্ছে।

৬ বছর বয়সে পশ্চিম আফ্রিকার ছোট্ট দেশ গিনি বিসাউ থেকে বাবার সঙ্গে স্পেনে চলে আসেন আনসু ফাতি। বসবাস শুরু করেন সেভিয়ার হেরেরাতে। রিয়াল মাদ্রিদ-ভ্যালেন্সিয়াকে পেছনে ফেলে ১০ বছর বয়সেই ফাতিকে লা মাসিয়ায় নিয়ে আসে বার্সোলানা। এরপর থেকেই ধীরে ধীরে আগামী দিনের মেসি হিসেবে গড়ে উঠছে আফ্রিকান এই রত্ন।

আইএইচএস/জেআইএম