৬ মাস না যেতেই রিয়াল থেকে বরখাস্ত হচ্ছেন জিদান!

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:০৪ পিএম, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

মাত্র ৬ মাসের ব্যবধানে ক্লাবের সঙ্গে সম্পর্ক চূড়ান্ত পর্যায়ে খারাপা হয়ে গেলো রিয়াল মাদ্রিদ কোচ জিনেদিন জিদানের। শুধু খারাপই নয়, চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্রথম ম্যাচে পিএসজির মাঠে গিয়ে ৩-০ গোলে হেরে আসার পর জিদানকে বরখাস্ত করা হতে পারে বলেই গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে।

গুঞ্জন এতটাই ছড়িয়েছে যে, ইউরোপিয়ান মিডিয়ায় এখন একটাই খবর, বরখাস্ত হচ্ছেন জিদান এবং তার পরিবর্তে কে আসতে পারেন, তার সম্ভাব্য তালিকাও করা হয়ে গেছে।

প্রথমবার রিয়ালের কোচ হয়ে টানা তিনটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা উপহার দিয়েছিলেন জিদান। এরপর ২০১৭-১৮ মৌসুম শেষ হতে না হতেই রিয়াল মাদ্রিদের কোচিং ছেড়ে দেন তিনি। এর মধ্যে রিয়াল কোচ হিসেবে নিয়োগ দেয় হুলেন লোপেতেগুইকে।

সাবেক স্পেন কোচের অধীনে রিয়ালের যাত্রাটা ছিল খুবই বাজে। যে কারণে তাকে বরখাস্ত করে দায়িত্ব দেয়া হয় সান্তিয়াগো সোলারিকে। কিন্তু অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় এ বছর মার্চে দ্বিতীয় মেয়াদে ফিরিয়ে আনা হয় জিদানকে।

কিন্তু ৬ মাস যেতে না যেতেই রিয়াল মাদ্রিদে অপাঙ্তেয় হয়ে উঠেছেন জিদান। ক্লাবে নতুন খেলোয়াড় নিয়ে আসা, লা লিগার মৌসুমে শুরুতে জিতলেও পরে হোঁচট খাওয়া, চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্রথম ম্যাচেই পিএসজির কাছে বড় ধরনের হোঁচট খাওয়া- সব মিলিয়ে জিদান এখন আর রিয়ালে পছন্দের ব্যক্তি নন।

মাত্র ৬ মাসেই দারুণ অপছন্দের ব্যক্তিতে পরিণত হয়েছেন তিনি। ২০০৫ সালের পর এই প্রথম চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্রথম ম্যাচে হেরেছে রিয়াল। অন্যদিকে মার্চে কোচ হিসেবে দায়িত্ব নিয়ে আসার পর ১১ ম্যাচ খেলে জিদানের অধীনে রিয়াল জিতেছে কেবল ৫টিতে।

এবারের মৌসুমে জিদান ৬ জন নতুন ফুটবলার নিয়ে এসেছে রিয়ালে। এরা হলেন এডার মিলিতাও, ইডেন হ্যাজার্ড, ফারল্যান্ড মেন্ডি, লুকা জোভিক, রদ্রিগো এবং আলবার্তো সোরো। একই সঙ্গে হামেশ রদ্রিগেজকে দুই বছর পর বায়ার্ন মিউনিখ থেকে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। অর্থ্যাৎ মোট ৩০৩ মিলিয়ন ইউরো ব্যয় করেছেন জিদান।

তবুও, জিদানের আশা পূর্ণ হয়নি। কারণ, পল পগবাই ছিল তার প্রথম পছন্দ। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে পগবাকে দলে নিতে পারেননি তিনি।

অন্যদিকে ইউরোপিয়ান মিডিয়ায় রিপোর্ট, ‘রিয়ালের ড্রেসিং রুম বলছে প্রথমবার কোচ হওয়ার পর জিদান যেমন ছিলেন, দ্বিতীয়বার কোচ হয়ে আসার পর তেমনটা নেই। পুরোপুরি উল্টো। অন্যদিকে খেলোয়াড়দের অধিকাংশই আবার কিছুটা ভয়ে রয়েছেন। কারণ, শোনা যাচ্ছে জিদানকে পরিবর্তন করে আনা হচ্ছে হোসে মরিনহোকে।

আইএইচএস/এমকেএইচ