কী উপহার নিয়ে ঢাকা আসছেন ফিফা প্রেসিডেন্ট?

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:০০ পিএম, ১২ অক্টোবর ২০১৯

কয়েকদিন ধরেই বাতাসে ভাসছিল ফিফা প্রেসিডেন্ট জিয়ান্নি ইনফ্যান্তিনো প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ সফরে আসবেন; কিন্তু বাফুফে তা আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা দেয়নি তার আগমনের দিনক্ষণ নিশ্চিত না হওয়ায়।

দু’দিন আগেও বাফুফে সাধারণ সম্পাদক মো. আবু নাঈম সোহাগ ও ফিফার কাউন্সিল মেম্বার মাহফুজা আক্তার কিরণ বলেছিলেন, ‘ফিফা প্রেসিডেন্ট এশিয়ার কয়েকটি দেশ সফরে আসছেন; কিন্তু বাংলাদেশে আসার বিষয়টি এখনো নিশ্চিত নয়।’

শুক্রবার রাতে বাফুফে নিশ্চিত হয়েছে, ১৬ অক্টোবর মঙ্গোলিয়া থেকে ঢাকায় আসবেন বিশ্ব ফুটবলের এই অভিভাবক ব্যক্তিটি। পরেরদিন বিকেলে তিনি চলে যাবেন লাওস।

সূচি নিশ্চিত হওয়ার পরই আজ (শনিবার) বাফুফে সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিন দেখা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ফিফা প্রেসিডেন্টের সাক্ষাতের সময় পাওয়ার পরই দুপুরে তাৎক্ষণিক সংবাদ সম্মেলন করে ইনফ্যান্তিনোর ঢাকা সফরের সূচি ঘোষণা করেন বাফুফে সভাপতি। এ সময় বাফুফের সহ-সভাপতি কাজী নাবিল আহমেদ, সদস্য হারুনুর রশিদ, শওকত আলী খান জাহাঙ্গীর, মাহফুজা আক্তার কিরণ ও ইকবাল হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

বিশ্ব ফুটবলের বস আসছেন। স্বাভাবিকভাবেই সবার জানার ইচ্ছে থাকে, ফিফা সভাপতির এই সফরে কি পাবে বাংলাদেশ? সংবাদ সম্মেলনে এ প্রশ্নটাও উঠলো; কিন্তু বাফুফে সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিন বরাবরের মতোই বললেন, ‘তার কাছে তো আমরা আগ বাড়িয়ে চাইতে পারি না। ফিফা প্রেসিডেন্ট সব দেশের কার্যক্রম নিয়ে ওয়াকিবহাল। ক্লাবের খবর পর্যন্ত আছে তার কাছে।’

বাফুফের সহ-সভাপতি কাজী নাবিল আহমেদ ফিফা প্রেসিডেন্টের ঢাকা সফরের বিস্তারিত জানাতে গিয়ে বলেন, ‘তিনি শুভেচ্ছা সফরে এশিয়ার কয়েকটি দেশ ভ্রমণ করছেন। আমাদের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নের জন্যই তিনি আসবেন। আমাদের কার্যক্রমগুলো সম্পর্কে ধারণা নেবেন।’

ফিফা প্রেসিডেন্ট বুধবার বিকেলে আসলেও বিমান বন্দরে অভ্যার্থনা ছাড়া ওইদিন তাকে নিয়ে আর কোনো কর্মসূচি নেই বাফুফের। পরেরদিন সকালে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতের মধ্য দিয়েই শুরু হবে ফিফা প্রেসিডেন্টের ঢাকার কর্মসূচি।

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতের পরই ফিফা প্রেসিডেন্ট আসবেন মতিঝিলস্থ বাফুফে ভবনে। সেখানে বাফুফের নির্বাহী কমিটির সঙ্গে বাংলাদেশের ফুটবল উন্নয়ন নিয়ে আলোচনা করবেন ইনফ্যান্তিনো। ‘তিনি আমাদের সঙ্গে বাংলাদেশের ফুটবল উন্নয়ন নিয়ে আলোচনা করবেন। গাইডলাইন দেবেন। তিনি আমাদের অভিভাবক, আমাদের মেহমান। আমরা ফিফা প্রেসিডেন্টের সামনে আমাদের কার্যক্রম উপস্থাপন করবো। তখন তিনি বুঝতে পারবেন আমাদের প্রয়োজনগুলো। মেহমানের কাছে আমরা তো কিছু আবদার করতে পারি না’- বলেছেন বাফুফের সহসভাপতি কাজী নাবিল আহমেদ।

দুই দিনের সফরে ফিফা প্রেসিডেন্টকে নিয়ে বাফুফের কি কি কর্মসূচি থাকবে তা অবশ্য বিস্তারিত জানাতে পারেনি বাফুফের কর্মকর্তারা। কাজী মো. সালাউদ্দিন বলেছেন, ‘আমরা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ইনফ্যান্তিনোর সাক্ষাতের সময় ঠিক করেছি প্রথম। এখন আমরা সেভাবে তার কর্মসূচিগুলো ঠিক করবো। করলেই তা জানিয়ে দেয়া হবে।’

আরআই/আইএইচএস/জেআইএম