কে দেবে এত টাকা? তাই অনিশ্চিত ঢাকায় মেসিদের ম্যাচ

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:১১ পিএম, ২১ অক্টোবর ২০১৯

সাজ সাজ একটা রব পড়ে গিয়েছিল। চারিদিকে খবর ছড়িয়ে পড়ে, ঢাকায় আবার দেখা যাবে বিশ্বসেরা ফুটবলার লিওনেল মেসি ও তার দলকে। দিনক্ষণওতো ঠিক-ঠাক ছিল। ১৮ নভেম্বর ম্যাচ। প্রতিপক্ষ প্যারাগুয়ে।

আর্জেন্টিনার অক্টোবর ও নভেম্বরে যে চারটি ম্যাচের সিডিউল ছিল, সেখানে জ্বলজ্বল করছিল ঢাকার নামও। প্যারাগুয়ের সিডিউলেও তাই। ব্যাস, ২০১১ সালের পর আবার ঢাকা আসছেন মেসিরা। চারিদিকে হই-হই, রই-রই।

কিন্তু এ খবর চাউর হওয়ার দুই সপ্তাহ পরই ঘটনা উল্টো মোড় নিলো। ১৮ নভেম্বর ম্যাচ হলে তো বাকি মাত্র ২৭ দিন। তাহলে কোনো আলোচনা নেই কেন? ম্যাচটি কি হচ্ছে? বাফুফের একটি সূত্র বলছে, ‘সম্ভাবনা কম। তবে বাতিল করে দিচ্ছি না। আগামী সপ্তাহে বোঝা যাবে কি হচ্ছে।’

আর্জেন্টিনা তাদের সূচি থেকে ঢাকার ম্যাচ সরিয়ে পরের দিন ১৯ নভেম্বর ইসরাইলের তৃতীয় বৃহত্তর শহর হাইফাতে ম্যাচ খেলবে উরুগুয়ের বিরুদ্ধে। ইতিমধ্যে এ ম্যাচটি তাদের সূচিতে অন্তর্ভূক্ত হয়েছে মেসিদের নভেম্বরের সিডিউলে।

এ তথ্যটি জানানোর পর বাফুফের শীর্ষ স্থানীয় ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘তাহলে তো বিষয়টি কনফিউজিং। টাকা কোত্থেকে আসবে সেটাও তো কথা। তাই বলতে পারছি না ম্যাচটি হবে কি হবে না।’

এ ম্যাচটি আয়োজনের প্রস্তাব ছিল যে এজেন্টের, তারা এখনো টাকার ব্যবস্থা করতে পারেনি। আবার যুব ক্রীড়া মন্ত্রণালয় থেকে এজেন্টদের শর্ত দিয়েছে মেসি থাকতে হবে দলে। দুইয়ে-দুইয়ে চার মিলতে হবে। সেটা হয়তো মিলবে। কিন্তু মিলছে না টাকার হিসেব। কে দেবে এতো টাকা? পরিমাণটা তো চল্লিশ কোটির বেশি।

ম্যাচটি হবে কি হবে না-সেটা পরিষ্কার করছেন না কেউ। তের দিন আগে বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ বলেছিলেন, সম্ভাবনা ফিফটি-ফিফটি। তখন আর্জেন্টিনার সূচিতে ম্যাচটি ছিল। এখন মেসিরা ১৯ নভেম্বর ইসরাইলে উরুগুয়ের বিরুদ্ধে ম্যাচ খেললে আগের দিন প্যারাগুয়ের বিরুদ্ধে কি করে সম্ভব? এর উত্তর নেই কারো কাছে।

আরআই/এমএমআর/জেআইএম