‘জিদান তুমি গু খাও’

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:১২ এএম, ১৯ জুন ২০২০

স্বদেশিকে এমন অবহেলা, আর কত সহ্য করবেন! এবার খেপে গিয়ে দু’চার কথা শুনিয়েই দিলেন জিনেদিন জিদানকে। কলম্বিয়ার সাবেক ফুটবলার ফস্তিনো আসপ্রিয়া রিয়াল মাদ্রিদের ফরাসি কোচকে আক্রমণ করলেন বেশ নোংরা শব্দচয়নে।

জেমস রদ্রিগেসকে রিয়াল কেন মাঠে নামার সুযোগ দিচ্ছে না, সেটি নিয়েই ক্ষোভ আসপ্রিয়ার। উত্তরসূরীর সঙ্গে রীতিমত অবিচার করা হচ্ছে বলে মনে করেন তিনি।

২০১৪ সালে ব্রাজিল বিশ্বকাপে গোল্ডেন বুট জেতার পরই রদ্রিগেসকে ৭৫ মিলিয়ন পাউন্ডে মোনাকো থেকে কিনে নেয় রিয়াল। কিন্তু কলম্বিয়ান এই প্লে-মেকারকে যেন বসিয়ে রাখার জন্যই কিনেছিল তারা।

দলে কাজে আসছে না বলে মাঝে দুই বছরের লোনে তাকে পাঠানো হয় বায়ার্ন মিউনিখে। সেখান থেকে ফিরেছেন গত গ্রীষ্ম মৌসুমে। কিন্তু জিদানের দলে জায়গা কই?

আগে না হয় টিম কম্বিনেশনের দোহাই ছিল। করোনার পর ফুটবলে নিয়ম বদলেছে। এখন চাইলে ম্যাচে পাঁচজন বদলি নামানো যায়। কিন্তু এত বড় সুযোগ থাকার পরও রদ্রিগেসকে মাঠে নামতে দিচ্ছেন না জিদান।

গত রোববার ঘরের মাঠে এইবারের বিপক্ষে ৩-১ গোলের জয়ে ফার্লেন্ড মেন্দি, এডের মিলিতাও, গ্যারেথ বেল, ভিনিসিয়াস জুনিয়র এবং ফেদে ভালভার্দে বদলি হিসেবে নেমেছেন। কিন্তু ২৮ বছর বয়সী রদ্রিগেজের কথা ভাবেননি জিদান।

কলম্বিয়ান এই তারকার সঙ্গে কোচের এমন আচরণ কিছুতেই মানতে পারছেন না আসপ্রিয়া। ‘রেডিও কলম্বিয়া’র সঙ্গে সাক্ষাৎকারে সাবেক এই ফুটবলার বলেন, ‘হামেস তো দায়িত্বজ্ঞানহীন নয়। সবার মতোই সে প্রতিদিন অনুশীলন করে। কোচরা বলেন যে তাদের কাছে সব খেলোয়াড়ই সমান। বদলি খেলোয়াড়দের অনুপ্রেরণা দিতেই এসব বলেন। কিন্তু তাদের তিন চারজন খেলোয়াড় আছে, যারা সবসময় সুযোগ পায়।’

আসপ্রিয়া মনে করেন, বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ গোলদাতা রদ্রিগেসকে ধৈর্যের চূড়ান্ত সীমায় পৌঁছে দিয়েছেন জিদান। ফরাসি কোচকে আক্রমণ করে তিনি বলেন, ‘বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ গোলদাতা (রদ্রিগেস) মারিয়ানো বা যারা সুযোগ পাচ্ছে তাদের চেয়ে খারাপ, এমনটা নিশ্চয়ই বলবেন না। একটু হলেও তো সম্মান দেখানো উচিত। হামেস ধৈর্য ধরে আছে। আমি হলে তো বলতাম-জিদান তুমি গু খাও।’

এমএমআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]