পর্নো তারকার সঙ্গে কি সম্পর্ক রিয়াল মাদ্রিদ তারকার?

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:০০ পিএম, ২৭ জুলাই ২০২০

রিয়াল মাদ্রিদের কলম্বিয়ান তারকা ফুটবলার হামেশ রদ্রিগেজকে নিয়ে এমনিতেই গত কিছুদিন ধরে মিডিয়া বেশ সরগরম। কারণ, লম্বা সময় ধরে জিদানের একাদশে কোনো জায়গাই হয়ে ওঠে না রদ্রিগেজের।

এমনকি এ নিয়ে কলম্বিয়ান ফুটবল সমর্থকরা জিদানের কঠোর সমালোচনা পর্যন্ত করেছেন। কিন্তু লা লিগায় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য এসব সমালোচনা মোটেও গায়ে মাখেননি জিদান। ম্যাচের পর ম্যাচ তিনি সাইড বেঞ্চে বসিয়ে রেখেছিলেন ২০১৪ বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ গোলদাতাকে।

তবে সম্প্রতি হামেশ রদ্রিগেজ আরও একটি কারণে শিরোনামে এসেছেন। যেটা তাকে বেশ বিব্রতকর অবস্থায়ও ফেলে দিয়েছে। অনেকে ছি! ছি! ও করেছেন এই শিরোনামের কারণে। যেটা হচ্ছে, নামকরা এক পর্ণ তারকার সঙ্গে তার সম্পর্কের বিষয়টি।

আড়ালে-আবডালে যাই থাকুক, সেটা হয়তো মিডিয়ায়ও আসতো না। কিন্তু গত ১২ জুলাই ছিল রদ্রিগেজের ২৯তম জন্মদিন। সেদিনই রদ্রিগেজকে শুভেচ্ছা জানিয়ে টুইটারে একটি পোস্ট দেন পর্ণ তারকা কেন্দ্রা লাস্ট। অথচ, নিল ছবির দুনিয়ার এই তারকার বয়স কিন্তু ৪১ বছর। রদ্রিগেজের চেয়ে ১২ বছরের বড়।

টুইটার পোস্টে কেন্দ্রা লাস্ট রদ্রিগেজকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে লেখেন, ‘হ্যাপ বার্থডে হামেশ, হোপ ইট ওয়াজ অ্যা গুড ওয়ান।’

কেন্দ্রা লাস্টের এই টুইট দেখেই চারদিকে শোরগোল পড়ে যায়। পর্নো তারকার সঙ্গে তাহলে কি সম্পর্ক রিয়াল তারকার? এবং সেই সম্পর্কের গভীরতাই বা কতুটুক। খুঁজতে গিয়ে নেটিজেনরা বের করেছেন, ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকেই কেন্দ্রাকে টুইটার এবং ইনস্টাগ্রামে ফলো করছেন হামেশ।

ওই সময়ই স্ত্রী ড্যানিয়েলা ওসপিনার সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয়ে গিয়েছিল রিয়ালের এই তারকার। একই সঙ্গে হামেশকেও সোশ্যাল মিডিয়ায় ফলো করতে শুরু করেন কেন্দ্রা।

বিষয়টা নিয়ে ২০১৮ সালের শুরুতে একটু নাড়াচাড়া হলেও, খুব বেশি জল ঘোলা হয়নি। কিন্তু প্রায় আড়াই বছর পর কেন্দ্রার টুইটার পোস্ট দেখেই সবাই নড়েচড়ে বসেছেন। সবাই ধরে নিয়েছে, ভেতরে ভেতরে গত দুই বছরে হয়তো জল অনেক দূর গড়িয়ে গেছে, যা টের পায়নি পাপারাজ্জিরা।

হামেশ রদ্রিগেজের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকটিভিটি দেখেই অনেকে তাকে পর্নো তারকার সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়ে সন্দেহ করতেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত যখন কেন্দ্রা লাস্ট নিজেই পোস্ট করলেন, তখন তাতে আর কারো সন্দেহের কোনো কারণ রইলো না।

কেন্দ্রার টুইটার পোস্টে একজন ব্যবহারকারী মন্তব্য করেছেন, ‘আপনি কি ভাবতে পারছেন যে, আমি কি ভাবছি?’ আরেকজন লিখেছেন, ‘আমি একবার শুনেছিলাম রদ্রিগেজ কেন্দ্রা লাস্টের প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছে। এরপরই একজন আরেকজনকে ইনস্টাগ্রাম এবং টুইটারে ফলো করা শুরু করেন। হুমমম, আমি এর চেয়ে বেশিকিছু জানি।’

অন্য একজন লিখেছেন, ‘তাদের সম্পর্কের বয়স এখন দুই বছর পার হতে চললো।’ একজন তো মজা করে লিখেই ফেললেন, ‘২০২০ সালের সবচেয়ে বড় বিজয়ী হচ্ছেন হামেশ এবং কেন্দ্রা- দু’জনই।’

৪১ বছর বয়সী কেন্দ্রা বিয়ে করেছেন চার্লস ক্লেভ ম্যাসনকে। যাকে ২০১৮ সালেই একটি ভিডিওতে রদ্রিগেজের সঙ্গে ট্যাগ করেছিলেন কেন্দ্রা। ২০১২ সালেই অবশ্য পর্নো জগৎ থেকে বের হয়ে আসেন তিনি। তার আগেই ১২০টি নিল ছবি করেন কেন্দ্রা। এরপর নার্সিং ইনস্টিটিউট থেকে ব্যাচেলর ডিগ্রি অর্জন করে, গত সাত বছর নার্স হিসেবেই জীবন অতিবাহিত করছেন।

/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]