বাফুফে নির্বাচনে আবারও দৃশ্যপটে বাদল রায়

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৭:১২ পিএম, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) নির্বাচন থেকে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নিলেও সভাপতি পদের ব্যালটে থাকবে বাদল রায়ের নাম। কারণ, তিনি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের আবেদন করেছিলেন, নির্ধারিত সময়ের ঘণ্টাখানেক পর। যে কারণে বর্তমান এ সহ-সভাপতির আবেদন গ্রহণ করেনি নির্বাচন কমিশন।

বাদল রায়ের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের আবেদন জমা দিয়েছিলেন তার স্ত্রী মাধুরী রায়। ব্যালটে নাম থাকবে বলে বাদল রায়ের সমর্থকরা যখন তার পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা চালানো শুরু করেছিলেন তখন তিনি আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলন করে দ্বিতীয়বার প্রার্থিতা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছিলেন।

আগামী ৩ অক্টোবর অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচন সামনে রেখে সাবেক এ তারকা ফুটবলার আবার সক্রিয় হয়েছেন। নিজের ফেসবুক ওয়ালে পোস্ট দিয়ে বাফুফেতে পরিবর্তনের ডাক দিয়েছেন। সোমবার বিকেলে নিজের ফেসবুক ওয়ালে বাদল রায় বলেন, ‘এখনই নেতৃত্ব পরিবর্তনের সময়।’

বাদল রায় তার ফেসবুক ওয়ালে লিখেছেন-

‘বাফুফে নির্বাচন ২০২০ এখনই নেতৃত্বের পরিবর্তনের সময়....

প্রিয় ফুটবলের তৃণমূলের অভিভাবকবৃন্দ/সংগঠকবৃন্দ, আসুন এবারের বাফুফে নির্বাচনে আমরা পরিবর্তনের পক্ষে রায় দেই।

আপনারা সবাই জানেন ফুটবল যতটুকু বেঁচে আছে তা শুধু জননেত্রী মমতাময়ী মা, শেখ হাসিনা’র কারণেই বেঁচে আছে। কারণ ফুটবল তৃণমূলে যতটুকু গিয়েছে তা শুধু তার দূরদর্শী চিন্তাভাবনার কারণে গিয়েছে। তার উদ্যোগে বঙ্গবন্ধু, বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্ট আয়োজন হয়েছে। তার কারণেই নতুন প্রজন্মের সংগঠক খেলোয়াড়গণ স্বপ্ন দেখছে। এটা বাফুফের কোনো কৃতিত্ব নয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফুটবলের প্রতি এত আন্তরিকতা থাকার পরও ফুটবল কেন ১২ বছরেও এগোতে পারেনি? এটা আপনাদের সবার বুঝতে হবে। তাই আমি বলবো, আপনাদের এখন সময় এই নির্বাচনের মাধ্যমে আপনারা আপনাদের সঠিক রায়টি দেবেন।

যেন আমাদের ফুটবলকে আগামী প্রজন্মের কাছে সুন্দরভাবে তুলে ধরতে পারি। তাই আপনার মূল্যবান ভোট পরিবর্তনের পক্ষে রায় দেবেন। কারণ ফুটবল বাঁচাতে এর কোনো বিকল্প নেই। আমি আপনাদের সাথে ছিলাম, আছি এবং সবসময় আপনাদের পাশেই থাকবো।

আপনাদের স্নেহমুগ্ধ-
বাদল রায়’

কিছুদিন বাফুফের নির্বাচনী আলোচনা থেকে নিজেকে গুটিয়ে রেখেছিলেন বাদল রায়। ফেসবুকের মাধ্যমে কাউন্সিলরদের প্রতি এ আহ্বান জানানোর মধ্যে দিয়ে আবার নির্বাচনী দৃশ্যপটে ফিরে আসলেন দীর্ঘ ১২ বছর ধরে বাফুফের সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করা সাবেক এ ফুটবলার।

বাদল রায় স্ট্যাটাসে পরিবর্তনের ডাক দিলেও সভাপতি পদে কাকে ভোট দিতে কাউন্সিলরদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তা পরিষ্কার করেননি। ফোন করলে বাফুফের বতর্মান এ সহ-সভাপতি বলেন, ‘পরিবর্তন মানেই তো সভাপতি পদে পরিবর্তন। সেটা সবাই বোঝেন।’

আপনি নির্বাচন থেকে সরে গেছেন। এখন সফিকুল ইসলাম মানিক আছেন সভাপতি পদে। তো ভোটারদের কি সফিকুল ইসলাম মানিককে ভোট দিতে বলছেন? নাকি আপনাকে? ‘সেটা বিবেচনা করবেন কাউন্সিলররা। আমি বলছি পরিবর্তন করতে হবে। কাউন্সিলররা যাকে ভোট দেবেন তিনিই পাস করবেন। যেই পাস করুক তাকেই তো দায়িত্ব নিতে হবে’- বলেছেন বাদল রায়।

আরআই/আইএইচএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]