‘বার্সা খেলোয়াড়দের মেসির সঙ্গে মানিয়ে নিতে হবে’

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:৩৬ এএম, ২৭ অক্টোবর ২০২০

গত মৌসুমের প্রায় পুরোটা সময় ছন্নছাড়া ফুটবল খেলেছে স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনা। যে কারণে হাতছাড়া হয়েছে স্প্যানিশ লা লিগা ও কোপা দেল রে শিরোপা, ২-৮ গোলের ভরাডুবি হয়েছে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে। নতুন মৌসুমেও সেই ছন্দহীন ফুটবল থেকে বের হতে পারেনি কাতালান ক্লাবটি।

দলের সমস্যা সমাধানে কোচ বদলের পাশাপাশি আমূল পরিবর্তনের আভাস দিয়েছিলেন বার্সেলোনার ক্লাব প্রেসিডেন্ট জোসেফ বার্তেমেউ। কিন্তু আসেনি তেমন পরিবর্তন, বদলায়নি বার্সার মাঠের অবস্থাও। তবে মাঠের বাইরে যাইহোক, মাঠের ভেতরে বার্সেলোনার পারফরম্যান্সের অনেকটাই আবর্তিত হয় অধিনায়ক লিওনেল মেসিকে ঘিরে।

সেই মেসিই এবার রয়েছেন অফফর্মে। মৌসুমে ছয়টি ম্যাচ খেলে ফেললেও ওপেন প্লে থেকে পারেননি কোনো গোল দিতে। যে দুইটি গোল করেছেন, সেগুলো ছিলো পেনাল্টি থেকে। বিশেষজ্ঞদের মত, নতুন কোচ রোনাল্ড কোম্যানের ৪-২-৩-১ ফরমেশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারছেন না মেসি।

এতে অবশ্য তেমন কোনো সমস্যা দেখছেন না বার্সেলোনার তরুণ মিডফিল্ডার ফ্রেংকি ডি ইয়ং। তার মতে, মেসি এখনও বিশ্বসেরা খেলোয়াড়। তবে তাকে (মেসি) তার সেরা পজিশনে খেলানোর পরামর্শই দিয়েছেন ইয়ং। পাশাপাশি মেসির সঙ্গে বাকিদের মানিয়ে নেয়ার কথাও বলেছেন তিনি। চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপপর্বে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচের আগে উয়েফাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে উঠে এসেছে এসব কথা।

তিনি বলেন, ‘আপনার দলে মেসি থাকা মানে বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়টাই আপনার দলে আছে। আপনি তাকে সেরা পজিশনে দিয়ে ম্যাচের ফলাফল নিজেদের পক্ষে আনার পরিকল্পনা করবেন। আমি মনে করি, মেসির সঙ্গে আমাদের মানিয়ে নিতে হবে। যখন সে এমন কোনো পজিশনে বল পায়, যেখান থেকে পরিস্থিতি বদলে দেয়া সম্ভব, সে তখন প্রতিবারই এটা করে থাকে।’

বার্সেলোনার হয়ে প্রথম মৌসুমে মানিয়ে নিতে বেশ সমস্যায় পড়তে হয়েছিল ডি ইয়ংকে। তবে কোম্যানের অধীনে অভিজ্ঞ মিডফিল্ডার সার্জিও বুসকেটসের সঙ্গে মিলে দারুণ জুটি গড়েছেন তিনি। গত মৌসুমের চেয়ে ভালো হচ্ছে তার ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সও। এক্ষেত্রে বুসকেটসের সঙ্গে বোঝাপড়ার কৃতিত্বই দিলেন তিনি।

ডি ইয়ংয়ের ভাষ্য, ‘খেলোয়াড় হিসেবে আমার ধরনটা হলো যে, দ্রুত বল পাবো এবং সেটাকে গোলের জন্য বানিয়ে দেবো। বলের জন্য অপেক্ষা করাটা, বল কম পাওয়া আমার ধরনের মধ্যে পড়ে না। অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার হিসেবে পিভট পজিশনটাই ভালো আমার জন্য। এটা তেমন বড় কিছু না। তবে আমাকে বেছে নিতে বললে পিভটাল খেলোয়াড় হিসেবে ফলস নাইন পজিশনই নিতাম।’

এসএএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]