‘ম্যারাডোনাকে ভালোবাসলে ন্যাপোলিতে যাও’

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:৩২ পিএম, ১৩ ডিসেম্বর ২০২০

মৃত্যুর পর পুরো বিশ্বই ভেসেছে শোকের সাগরে। দিয়েগো ম্যারাডোনার জন্য এখনও শোকে স্তব্দ ফুটবল দুনিয়া। লিওনেল মেসি যে ম্যারাডোনার শোকে কতটা কাতর হয়েছেন তা বলে বোঝানোর সাধ্য নেই অনেকের। ম্যারাডোনার মৃত্যুর পর মেসি তারই বোকা জুনিয়র্সের জার্সি পরে মাঠে গিয়েছিলেন এবং গোল করার পর সেটাকে আর্জেন্টাইন কিংবদন্তির নামে উৎসর্গ করেছিলেন। যে কারণে জরিমানার মুখোমুখিও হতে হয়েছে মেসিকে।

তবে, জার্মানি এবং ঘানার মিডফিল্ডার কেভিন প্রিন্স বোয়েটাং মেসির কাছ থেকে ম্যারাডোনার প্রতি ভালোবাসার নিদর্শণটা আরেকটু বেশি করে পেতে চান। যে কারণে মেসিকে তিনি পরামর্শ দিয়েছেন, বার্সেলোনা ছেড়ে অন্য কোথাও নয়, ইতালিয়ান ক্লাব ন্যাপোলিতে গিয়ে খেলার জন্য।

ইতালিয়ান সিরি ‘বি’-এর ক্লাব মোনজায় খেলেন এখন বোয়েটাং। এক সময় এসি মিলানের হয়ে খেলেছিলেন এই ফুটবলার। আবার ২০১৯ সালে লোনে গিয়ে বার্সার জার্সিতেও মেসির সতীর্থ হিসেবে খেলে এসেছিলেন তিনি। তবে, ২০১০ বিশ্বকাপে ঘানাকে কোয়ার্টার ফাইনালে তুলে দেয়ার অন্যতম নায়ক ছিলেন এই বোয়েটাং।

সেই বোয়েটাংই পরামর্শ নিয়ে হাজির হয়েছেন মেসির কাছে। তার মতে ম্যারাডোনার স্মৃতির প্রতি মেসির সম্মান জানানোর সর্বোত্তম পন্থাই হতে পারে, ন্যাপোলিতে গিয়ে তার খেলা।

ইএসপিএনের সঙ্গে দেয়া সাক্ষাৎকারে সাবেক সতীর্থের প্রতি বোয়েটাং বলেন, ‘মেসি বার্সায় তার চুক্তির মেয়াদ শেষ করতে যাচ্ছে। এখন কেমন হয় এটা যে, ন্যাপোলি তাকে ডাকলো (প্রস্তাব দিলো), আর সে শুধু বললো, আমি আসতেছি!’

মেসির হয়েই যেন কথা বলছিলেন বোয়েটাং। মেসির জবানিতে তিনি বলেন, ‘তারা হয়তো ১০ নাম্বার জার্সিটা আমাকে দেবে না। আমিও ম্যারাডোনার ১০ নম্বর জার্সিটাকে অনেক বেশি সম্মান করি। আমি ন্যাপোলিতে আসাটাকেই সম্মানের মনে করবো এবং খেলতে চাই একটি বছর কিংবা দুটি বছর। বিষয়টাতে মোটেও টাকা-পয়সার স্বার্থ থাকবে না। বিষয়টা হবে শুধুমাত্র হৃদয় থেকে।’

বোয়েটাং বিশ্বাস করেন, এমন বিষয়বস্তু নিয়ে যদি কোনো মুভিও তৈরি যায় এবং সমর্থকরাও এটাকে খুব পছন্দ করবেন। তিনি বলেন, ‘এটা একটা মুভি হতে পারে। সে (মেসি) সেখানে হেলিকপ্টারে করে প্র্যাকটিস করতে যেতে পারে। যদি মেসি বলে যে, আমি ম্যারাডোনার সম্মানে ন্যাপোলিতে খেলতে যাবো- তাহলে সারা বিশ্বের জন্য এটা কত বড় গল্প হতে পারে- একবার চিন্তা করুন!’

আইএইচএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]