দক্ষিণ এশিয়ার রেকর্ডধারী ফুটবলার বিপ্লবের নতুন দায়িত্ব

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৫:০৮ পিএম, ১৮ জানুয়ারি ২০২১

টানা আটটি সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ খেলা দক্ষিণ এশিয়ার একমাত্র ফুটবলার বিপ্লব ভট্টাচার্য্যকে এখন থেকে দেখা যাবে নতুন দায়িত্বে। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন জাতীয় দলের সাবেক এ গোলরক্ষককে নিয়োগ দেয়া হয়েছে গোলরক্ষক কোচ হিসেবে।

তিনি বাফুফের জাতীয় পর্যায়ের দলগুলোতে দায়িত্ব পালন করবেন। ২০২১ সালের জন্য নিয়োগ পেয়েছেন গোলকিপিংয়ে ‘বি’ লাইসেন্স কোর্স করা এ গোলরক্ষক। এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন (এএফসি) থেকে বেতন পাবেন তিনি।

নিয়োগ পাওয়ার পর বিপ্লব ভট্টাচার্য বলেন, ‘জাতীয় দলের গোলকিপিং কোচ হবো এটা ছিল আমার কাছে স্বপ্ন। জাতীয় দলের জন্যই ক্লাবের কোচিং ছেড়ে দিয়েছি। আমার চুক্তি এক বছরের- জানুয়ারি থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। আমার কাজ হলো জাতীয় দলের পাশাপাশি বয়সভিত্তিক অনূর্ধ্ব-২৩ দলের কোচিং করানো। সারা দেশে যে প্রতিভা অন্বেষণ হচ্ছে, সেখানে প্রতিটি জেলায় যাবো গোলকিপার খুঁজতে।’

বিপ্লব বলেছেন, ‘গত মৌসুমে শেখ জামালের গোলকিপার কোচ থেকে পদত্যাগ করেছি। সর্বশেষ ফুটবল খেলেছি ব্রাদার্সের হয়ে ২০১৮ সালে।
একজন ফুটবলার হিসেবে দীর্ঘ ক্যারিয়ার আমার। সবার একটা স্বপ্ন থাকে। এত বছর খেলেছি। আমার অভিজ্ঞতা দিয়ে ভবিষ্যত বাংলাদেশের জন্য ভালো মানের গোলকিপার বের করে আনা। আমি জেমি ডে ও স্টুয়ার্টে সঙ্গে কথা বলেছি।’

কোচ হিসেবে গোলরক্ষকের পারফরম্যান্সকেই গুরুত্ব দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন বিপ্লব, ‘আমার একটাই কথা, যারাই মাঠে পারফর্ম করবে তারাই সুযোগ পাবে দলে। সারা বছর খেলবে না ওরকম কাউকে নেব না। আমি এরই মধ্যে লিগের ৫টা ম্যাচ দেখেছি। যাদের ডাকবো তাদের জাতীয় দলে খেলার মতো যোগ্যতা থাকতে হবে। আমি প্রতি জেলায় যাবো। নতুন গোলরক্ষক খুঁজে খুঁজে বের করবো। অনেক গোলকিপার হয়তো খেলে না; কিন্তু তাদেরও বেসিকসহ অনেক কিছু দেখবো। ওয়ার্কশপে ডাকবো। ওখান থেকে যদি পারি ওদের ভবিষ্যতের জন্য তৈরি করবো। এখন যেমন জিকো, পাপ্পু দলের ভবিষ্যত। আশরাফুল রানার এখন বয়স হচ্ছে। নতুন কে আসবে সেটা আমাকেই দেখতে হবে।’

বিপ্লব ভট্টাচার্য্য ১৯৯৭ সাল থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত জাতীয় দলে খেলেছেন। টানা ৮টি সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ খেলেছেন। এছাড়া একটা সাফ গেমস খেলেছেন ১৯৯৯ সালে। ওই গেমসে সোনা জেতে বাংলাদেশ। দক্ষিণ এশিয়ার আর কোনো ফুটবলারের ৮টি সাফ খেলার অভিজ্ঞতা নেই।

আরআই/আইএইচএস/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]