ম্যারাডোনার ১০ কোটি ডলার কোথায়?

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:২৭ পিএম, ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১

মারিয়ানো ইসরায়েলিট হচ্ছেন দিয়েগো ম্যারাডোনার খুব কাছের যে ক’জন বন্ধু ছিলেন, তাদের একজন। ম্যারাডোনার অনেক অন্দরের খবর জানতেন তিনি। এই মারিয়ানোই এবার এক চমকপ্রদ তথ্য সামনে আনলেন। তিনি জানিয়েছেন, ম্যারাডোনার ১০০ মিলিয়ন ডলার (১০ কোটি ডলার) রয়েছে। কিন্তু কেউই জানে না সেটা কোথায়?

ইসরায়েলিট তার খুব কাছের বন্ধুর হয়ে আরও বেশ কিছু তথ্য প্রকাশ করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, ‘সাবেক এই তারকা ফুটবলারের যে পরিমাণ অর্থ ছিল, সে হিসেবে তিনি জীবন-যাপন করতেন না। প্রয়োজনীয় ঔষধ খেতেন না, চিকিৎসা নিতেন না এমনকি বিলাসী জীবন-যাপন পর্যন্ত করতেন না।’

এই টেলিভিশন শো’য়ে ইসরায়েলিট বলেন, ‘সবাই জানতো তার হৃদরোগের সমস্যা রয়েছে; কিন্তু প্রয়োজনানুসারে কোনোভাবেই ঔষধ খেতেন না কিংবা চিকিৎসা নিতেন না তিনি।’

এরপরই মারিয়ানো ইসরায়েলিট বলেন, ‘যখনই ম্যারাডোনা মেক্সিকো থেকে ফিরে এসেছেন, তিনি তখন আমাকে বলেছিলেন, তুমি জানো না আমি কিভাবে দুবাইয়ের পর থাকতে পেরেছিলাম। আমার কাছে ১০০ মিলিয়ন (ডলার) রয়েছে।’

মারিয়ানো এর জবাবে কী বলেছিলেন, সেটাই জানাচ্ছেন, ‘এটাই আমাকে তিনি বলেছিলেন এবং আমি তাকে জবাব দিয়েছিলাম, তুমি তো একজন রাজা। তাহলে তো তুমি যেভাবে চাও সেভাবেই জীবন যাপন করতে পারো।’

ইসরায়েলিট নিশ্চিত করতে পারেননি, ম্যারাডোনার সেই ১০০ মিলিয়ন ডলার অর্থ কোথায় রয়েছে? এমনকি জীবনের শেষ দিনগুলোতে সেই অর্থ তিনি ব্যবহার করতে পেরেছিলেন কি না। তিনি বলেন, ‘তার শেষ সময়গুলো ভালো অবস্থায় যায়নি। সেখানে (যেখানে ম্যারাডোনা ছিলেন) দেয়ালে ফুটো ছিল। কোনো এয়ারকন্ডিশন ছিল না। প্রয়োজন অনুযায়ী গরমের কোনো ব্যবস্থা ছিল না। অথচ, আমরা এমন একজনের ব্যাপারে কথা বলছি, যার ১০০ মিলিয়ন ডলার অর্থ ছিল। কেউ জানে না, সেই অর্থ কোথায় আছে।’

আইএইচএস/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]