‘ক্যারিয়ার শুরুর পর এতদিন মাঠের বাইরে থাকিনি’

রফিকুল ইসলাম
রফিকুল ইসলাম রফিকুল ইসলাম , বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:১৭ পিএম, ২২ এপ্রিল ২০২১

জাহিদ হাসান এমিলি দল পাননি গত মৌসুমে। যে কারণে পরিত্যক্ত মৌসুমে তার মাঠেই নামা হয়নি। চলমান ফুটবল মৌসুমে স্ট্রাইকার এমিলিকে দেখা যাবে ব্রাদার্সের জার্সিতে। যে ক্লাবের হয়েই যার শীর্ষ লিগে অভিষেক হয়েছিল ২০০২ সালে।

ব্রাদার্স ইউনিয়ন প্রিমিয়ার লিগের দ্বিতীয় পর্বে দলে সংযোজন-বিয়োজন করেছে। এর মধ্যে অন্যতম সংযোজন হচ্ছে জাহিদ হাসান এমিলি। সর্বশেষ মোহামেডানে খেলা এমিলি অনেকদিন পর মাঠে নামার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

জাগো নিউজ : প্রিমিয়ার লিগ তো শুরু হয়ে যাচ্ছে ৩০ এপ্রিল। তো আপনার ও আপনার ক্লাবের প্রস্তুতি কেমন?

এমিলি : আপনার কাছেই শুনলাম লিগ শুরু হয়ে যাচ্ছে। আমি অবশ্য ভাবিনি ঈদের আগে খেলা শুরু হবে। আমের ভাইও (ব্রাদার্স ইউনিয়নের ম্যানেজার আমের খান) তেমন আভাস দিয়েছিলেন। যাক, দ্রুত শুরু হলে দ্রুতই মাঠে নামতে পারবো।

জাগো নিউজ : বড় একটা গ্যাপ গেলো আপনার। গত মৌসুমে খেলেননি, এবার খেলবেন লিগের দ্বিতীয় পর্বে। একজন ফুটবলার হিসেবে নিশ্চয়ই খারাপ সময় কেটেছে আপনার?

এমিলি : তাতো অবশ্যই। আমি খেলা শুরুর পর এতদিন মাঠের বাইরে থাকিনি। লিগের তারিখ হয়ে গেছে, ক্লাব এখন নিশ্চয়ই প্রাকটিস শুরু করবে। আমি মাঠে নামতে মুখিয়ে আছি। খেলা শুরু হওয়াটা গুরুত্বপূর্ণ।

জাগো নিউজ : দীর্ঘদিনের গ্যাপে তো সেভাবে অনুশীলন করা হয়নি। তাহলে ফিটনেস কিভাবে ধরে রেখেছেন?

এমিলি : আসলে দলীয় অনুশীলন আর ব্যক্তিগত অনুশীলনের মধ্যে অনেক তফাৎ। আমি একা একা অনুশীলন করেছি। জিম করেছি। তাই নিজেকে শতভাগ ফিট মনে করছি না। সত্যি বলতে এ মুহূর্তে আমি ৬০ থেকে ৭০ ভাগ ফিট আছি।

জাগো নিউজ : আপনি স্ট্রাইকার। ক্লাব, সমর্থক আর দর্শক গোল দেখতে চাইবে আপনার কাছ থেকে। নিশ্চয়ই একটা লক্ষ্য নিয়ে খেলা শুরু করবেন।

এমিলি : আমি অনেক দিন প্রতিযোগিতামূলক খেলার মধ্যে নেই। মাঠে নেমে দুই-এক ম্যাচ খেলার পর বুঝতে পারবো আমি কোন জায়গায় কী অবস্থানে আছি। তাই এখনই বলা যাবে না যে, কয়টা গোল করতে পারবো কি পারবো না।

জাগো নিউজ : এক মৌসুম না খেলায় অনেকে বলেছেন আপনি হারিয়ে গেছেন। তো আর কতদিন খেলার ইচ্ছা আছে?

এমিলি : ফুটবল আমার ভালোবাসার জায়গা, আবেগের জায়গা। খেলতে না পারলে মন খারাপ হয়। কারণ, টাকার জন্য খেলি না, ফুটবলের প্রতি ভালোবাসা থেকেই খেলি। তাই যতদিন পারবো খেলবো।

জাগো নিউজ : হয়তো এক বা দুই মৌসুম আরো খেললেন। এরপর কী করবেন? খেলা ছেড়ে কী ফুটবলও ছেড়ে দেবেন?

এমিলি : না। ফুটবল আমি ছাড়বো না। খেলা ছাড়ার পর ফুটবলের সঙ্গে যে থাকবো সেটা শতভাগ নিশ্চিত। এখন কথা হলো কিভাবে থাকবো সেটাই বিষয়।

জাগো নিউজ : অনেক ফুটবলারই তো কোচিং পেশায় আসছেন। আপনার কি ওই রকম কোনো ইচ্ছা আছে?

এমিলি : না। কোচিংয়ে আমি আসবো না এটা নিশ্চিত। আমি ফুটবলে সংগঠক হিসেবে কাজ করতে চাই। যদি তেমন সুযোগ পাই তাহলে অবশ্যই ফুটবল নিয়ে কাজ করবো।

জাগো নিউজ : অনেক দিন মোহামেডানে খেলেছেন। আপনার প্রিয় ক্লাবও মোহামেডান। সেখানে কী ভবিষ্যতে কাজ করার ইচ্ছে আছে?

এমিলি : আমি মোহামেডানে খেলেছি অনেক দিন। কেবল খেলোয়াড়ই ছিলাম না, আমি মোহামেডানের সমর্থকও। এক কথায় আমার প্রিয় ক্লাব মোহামেডান। তো সেখানে কাজের সুযোগ পাবো কিনা সেটা অন্য বিষয়। আমি যেখানে কাজের সুযোগ পাবো সেখানেই ফুটবল নিয়ে কাজ করবো।

আরআই/আইএইচএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]